আজ বৃহস্পতিবার, ২১ জুন ২০১৮ ইং

‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস’, কী আশ্চর্য!

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৭-১১-০৮ ০১:০৩:০৯

ব্যারিস্টার এনামুল কবির ইমন :: ৭-ই নভেম্বরকে বিএনপি বলছে ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস’। কিন্তু বীর মুক্তিযুদ্ধাদের হত্যা করা ছাড়া প্রকৃত অর্থে সে দিন কিছুই ঘটেনি।

১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করা হলো; ৩ নভেম্বরে জেলের ভেতরে জাতীয় নেতাদের হত্যা করা হলো; মোশতাকের টুপির ভেতরে দেশ যখন তলিয়ে যাচ্ছে তিনি কোন উদ্যোগ গ্রহণ না করে বলতে লাগলেন, ‘লেট আস ওয়েট এন্ড সি’।

জিয়াউর রহমানের নির্লিপ্ততায় এগিয়ে আসেন খালেদ মোশারফ। সিদ্ধান্ত নেন, সেনাবাহিনির প্রধান হিসেবে জিয়াউর রহমান যেহেতু চেইন অব কমান্ড ফিরিয়ে আনতে ব্যর্থ হয়েছেন তাই তারা তাকে বন্দী করবেন এবং মোশতাক ও তার সহযোগীদের আত্মসমর্পনে বাধ্য করবে। সে দিন জিয়াউর রহমান এই পরিস্থিতি থেকে নিজেকে সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে সেনাবাহিনি থেকে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন। পদত্যাগের পাশাপাশি এই আবেদন করেন যে, তাকে যেন অবসরকালীন পেনশন ও ভাতাটুকু দেয়া হয়। বন্দী ও চালাক জিয়াউর রহমান আরো একটি কাজ করেন। তিনি বুঝতে পারেন যে যদি কেউ তাকে রক্ষা করে সেটা কর্নেল তাহের। তাই তিনি শোবার রুমে গিয়ে কর্নেল তাহেরকে ফোন করে নিচু স্বরে বলেন, ‘তাহের লিসেন কেয়ারফুললি, আই এম এই ডেঞ্জার, সেভ মাই লাইফ’।

কর্নেল তাহের ব্যাপকভাবে সেনাবাহিনিতে জনপ্রিয় ছিলেন। জিয়া সেই সুযোগ নিলো। কর্নেল তাহেরের চেষ্টায় জিয়া ৭ নভেম্বর মুক্ত হলো। খালেদ মোশারফসহ অসংখ্য দেশপ্রেমিক মুক্তিযোদ্ধা সে দিন পরিস্থিতির ভেতরে প্রাণ দিলো। জিয়াকে যিনি মুক্ত করে আনলেন সেই কর্নেল তাহেরকে ফাঁসি দিলেন জিয়া। দেশপ্রেমী এতোগুলো মুক্তিযোদ্ধার প্রাণ নিয়ে জিয়ার দল দিনটিকে ঘোষণা করলো, ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস’। কী আশ্চর্য! কী আশ্চর্য।

লেখক: সাধারণ সম্পাদক, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ।

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   কুলাউড়ার বন্যাকবলিত মানুষের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ
  •   মৌলভীবাজারের বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি, বেড়েছে দুর্ভোগ
  •   সোনাই নদীর ভাঙনে রাস্তা বিলীন, দুর্ভোগ
  •   রাজধানীতে আন্তর্জাতিক যোগ দিবস পালিত
  •   বিয়ানীবাজার পৌরসভার বাজেট নিয়ে সাংবাদিকদের সাথে মেয়রের মতবিনিময়
  •   দিরাই থেকে ৫ দিন ধরে ছাত্রী নিখোঁজ
  •   বালাগঞ্জে ৪০হাজার লোক পানিবন্দী
  •   ‘বৃহত্তর আন্দোলনের নির্দেশ খালেদা জিয়ার’
  •   যুক্তরাষ্ট্রে চাপের মুখে অভিবাসন নীতিতে পরিবর্তন
  •   রাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় যুবকের মৃত্যু
  •   ইসকন সিলেটের ৮তম গীতা শিক্ষা কোর্স শুরু হচ্ছে
  •   নবনির্বাচিত ছাত্রদল নেতৃবৃন্দকে বালাগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের অভিনন্দন
  •   অভিনব পন্থায় জয় উদযাপন করলেন সেনেগাল সমর্থকরা
  •   রাশিয়ার জন্মহার বাড়াবে ফুটবল বিশ্বকাপ
  •   বিশ্বকাপের কল্যাণে ফের বেঁচে উঠলেন ওসামা!
  • সাম্প্রতিক ফিচার খবর

  •   মৌলভীবাজা‌রের বন্যা ও লন্ড‌নে‌র টিভি‌তে ভিক্ষা তোলা
  •   বাবা, তুমি আছো অস্তিত্বজুড়ে
  •   বাবার জন্যে ভালোবাসা
  •   আমার তারকা আমার বিশ্বকাপ
  •   আমি ছিলাম বাবার হৃদপিন্ড, বাবা ছিলেন আমার বটবৃক্ষ
  •   কূট‌নৈ‌তিক অাকা‌শে অাজ শকু‌নের হান‌া
  •   স্বাধিকার আন্দোলনের প্রথম শহীদ বিয়ানীবাজারের সূর্যসন্তান শহীদ মনু মিয়া
  •   সুনামগঞ্জের আলোকিত গীতিকার ও সুরকার শেখ এমএ ওয়ারিশ
  •   বিশ্বের সবচেয়ে দামি ১০ পাসপোর্ট
  •   ফেসবুকে প্রয়াত সিরাজুল জব্বারকে নিয়ে সিকৃবি রেজিস্ট্রার শোয়েবের স্মৃতিচারণ
  •   অাসামে বাঙ্গালীরা অাজ অসহায়
  •   বিশ্বকাপে আত্মঘাতী গোল, জীবন দিয়ে খেসারত ফুটবলারের
  •   বদমাইশির চেয়ে বিয়ে উত্তম!
  •   চেহারা দেখে মানুষ চেনা যায় না
  •   ঘিলাছড়ার রসালো লিচু