আজ বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯ ইং

নারী-পুরুষের যেসব শারীরিক সমস্যায় সন্তান হয় না: ডা. উম্মুল খায়ের

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৯-০২-২৭ ০২:২৯:০২

একটি পরিবারে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সেতুবন্ধন হচ্ছে সন্তান। সন্তান না থাকলে স্বামী-স্ত্রী একটি নির্দিষ্ট সময়ের পর যেমন দু:শ্চিন্তাগ্রস্ত হয়ে পড়ে, তেমনি সামাজিক ভাবেও নানা ধরনের প্রশ্নের মুখোমুখি হয়। সেজন্য নিরবিচ্ছিন্ন ও হেলদি সম্পর্কের জন্য পরিবারে সন্তান কাম্য। কিন্তু নানা কারণে আমাদের সমাজে সন্তান ধারণ ক্ষমতা হারাচ্ছেন নারী। সন্তান না হওয়ার ক্ষেত্রে পুরুষও কম দায়ী নয়।

বন্ধ্যাত্ব বলতে আমরা বুঝি যদি সন্তান প্রত্যাশী হয়ে জন্মনিয়ন্ত্রন পদ্ধতি ব্যবহার না করে একবছর একই ছাদের নিচে স্বামী-স্ত্রী থাকেন কিন্তু তারপরও স্ত্রী গর্ভধারন না করেন। এমতাবস্থায় সাধারণত দেখা যায় প্রথম একবছরের মধ্যে আশি ভাগ দম্পতি সন্তান লাভ করে থাকে। দশ ভাগ সন্তান লাভ করে দ্বিতীয় বছরে। বাকি দশভাগ কোনো ভাবেই সন্তান পায় না।

আমরা যদি বন্ধ্যাত্বের কারণ খুঁজতে যাই তাহলে প্রথমে দেখতে হবে সন্তান কীভাবে জন্ম নেয়। একজন মেয়ে শিশুর প্রথম দিকে ডিম্বানুর পরিমাণ থাকে দশ থেকে বিশ লাখ। ধীরে ধীরে সেই শিশু যখন প্রাপ্তবয়স্ক হয় বা মাসিকের সময় হয় (আমাদের দেশে মাসিকের সময় দশ থেকে চৌদ্দ বছর।) তখন মেয়েদের ডিম্বানুর পরিমাণ থাকে চল্লিশ হাজার। বাকি ডিম্বানুগুলো নষ্ট হয়ে যায়।

এই সময় (১০-১৪বছর) থেকে ৫২ বছর বা আরও নির্দিষ্ট করে বললে ৪০ বছর বয়স পর্যন্ত প্রতি মাসে বিপুল সংখ্যক ডিম্বানু নষ্ট হয়ে যাচ্ছে প্রাপ্তবয়স্ক নারীর। শুধু মাত্র একটি ডিম্বানু প্রতি মাসে পরিস্ফুটন হয়। এই মাসিকের সময়টা হচ্ছে ২৮ থেকে ৩০ দিন। ১৩ বা ১৪ তম দিনে ডিম্বানু ফুটে। সেটা তখন ডিম্বনালীতে আসে। যদি সে বিবাহিত হয় তাহলে স্বামীর সঙ্গে মিলিত হওয়ার পর শুক্রানুর সঙ্গে নিষিক্ত হয়। তখন জাইগোট তৈরি হয়।

সেটি পরে জরায়ুর ভেতরে ঢুকে। জরায়ুকে আকড়ে ধরে ভ্রুন তৈরি হয়। ভ্রুনটি ধীরে ধীরে বড় হয়ে মানব শরীরে রূপ নেয়। সেটি প্রসবের মাধ্যমে পৃথিবীতে আসে। এভাবে জন্ম নেয় মানব শিশু। এটি হচ্ছে সন্তান জন্ম দেওয়ার স্বাভাবিক পদ্ধতি।

আমি আমার অধিকাংশ রোগীর বেলায় দেখি ডিম্বানু বড় না হওয়া। বেশীরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় Polycystic Ovarian Syndrome- এই জিনিসটা হয়। এছাড়া থাইরয়েডের সমস্যা থাকলে বা Prolectine হরমোন বেড়ে গেলে ডিম্বানু পরিষ্ফুটন নাও হতে পারে বা বড় নাও হতে পারে।

এছাড়া এন্ড্রোমেট্রোসিস্ট-এর কারণেও অনেক সময় ডিম্বানু বড় না হওয়া বা পরিষ্ফুটন না হওয়ার ঘটনা ঘটতে পারে। আরেকটি বিষয় হলো- মানবদেহে যেসব প্রজননতন্ত্র আছে- জরায়ু, জরায়ুর দুই পাশে ডিম্বনালী আছে তার নিচে আছে মাসিকের রাস্তা বা যোনিপথ। যদি কারো ডিম্বনালীতে সমস্যা থাকে বা বাধা থাকে সেক্ষেত্রেও স্বাভাবিক সন্তান ধারণে সমস্যা দেখা দেয়।

বাধাটা প্রধানত হয় ইনফেকশন থেকে। ইনফেকশনের কারণে কারো ডিম্বনালী যদি কেটেই ফেলা হয় বা কারো যদি টিউমার লাইগেশন করে দেওয়া হয়, সেক্ষেত্রে স্বামী- স্ত্রী মিলন করলেও ডিম্বানু নিষিক্ত হবে না।

এবার আসা যাক জরায়ুর ক্ষেত্রে। জরায়ুতে টিউমার হতে পারে। এর ফলে যদি কোনো সমস্যা হয় ভ্রুণটা যদি জরায়ুতে প্রতিস্থাপন করা সুযোগ না থাকে, বা জরায়ুর চামড়া যদি কোনো কারণে পাতলা হয়, তাহলে ভ্রুণ সেখানে প্রতিস্থাপন হবে না। তখন ওই নারী সন্তান ধারনে অক্ষম বলে বিবেচিত হবেন।

এবার আসা যাক জরায়ুর মুখের সমস্যায়। ইনফেকশন হয়ে যদি কোনো সমস্যা হয়, জরায়ুর মুখ যদি সংকীর্ণ হয়, যদি বীর্য কোনো কারণে জরায়ুর মধ্যে প্রবেশ করতে বাধা পায়, তাহলেও সন্তান লাভ করতে পারে না।

সবশেষে আসা যাক যোনীপথের কথায়। যোনী পথ যদি বাঁকা থাকে, যোনী পথে যদি কোন ধরনের পর্দা থাকে বা যোনীপথের মুখে যদি কিছু থাকে তাহলে স্বামী স্ত্রী সহবাস করতে পারেন না। বা কোনো কারণে যদি স্পার্ম জরায়ুতে না ঢুকতে পারে তাহলেও সন্তান হবে না।

প্রজননতন্ত্রের আশপাশে যদি কোনো সমস্যা হয়, সেক্ষেত্রে বাচ্চা হতে বাধা সৃষ্টি করে।

আর কখনো কখনো সন্তান জন্ম না নেওয়ার পেছনে কোনো কারণ-ই থাকে না। অর্থাৎ স্বামী- স্ত্রী কারো কোনো সমস্যা নেই, দু`জনেই সুস্থ এরপরও সন্তান গর্ভে আসে না, এমন ঘটনা ঘটতে পারে। শতকরা ১০-১৫ ভাগ ক্ষেত্রে এমনটি ঘটে থাকে।

পুরুষদের যেসব সমস্যায় সন্তান হয় না
এতক্ষণ যা বললাম এগুলো নারীর শারীরিক সমস্যা। পুরুষের শারীরীক সমস্যার জন্যও সন্তান জন্ম না নিতে পারে। এবার পুরুষের সমস্যাগুলো নিয়ে বলি। পুরুষের শুক্রানু যদি না থাকে বা শুক্রানু যদি কম থাকে, যদি তাদের সহবাসে কোনো সমস্যা হয়, সেক্ষেত্রে সন্তানের জন্ম হবে না।

নানা কারণে পুরুষের শুক্রানু নষ্ট হয়। পুরুষরা অনেক সময় গরমে কাজ করেন। বিশেষ করে যারা মধ্যপ্রাচ্যে থাকেন, তাদের প্রচুর গরমে কাজ করতে হয়। গরম পানিতে গোসল করলে বা নাইলন আন্ডাওয়্যার পড়লেও শুক্রানু নষ্ট হয়।

ছোট বেলায় কারো যদি মামস হয় বা লিঙ্গ ও অন্ডকোষ বা তার আশপাশে যদি কোন অপারেশন হয়, বা সিফিলিস গনোরিয়া জাতীয় কোন যৌন রোগ হয়- সেক্ষেত্রে শুক্রানু নষ্ট হতে পারে। আবার অনেকে নানা ধরণের ওষুধ খান। যেসব ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ফলে সন্তান জন্ম দেওয়ার ক্ষমতা হারাতে হয়। তবে অনেক সময় অজানা কারণেও স্বামী স্ত্রী সন্তান গর্ভধারন বা জন্মদানের ক্ষমতা হারাতে পারেন।

লেখক: প্রসূতি, স্ত্রীরোগ ও বন্ধ্যাত্ব বিশেষজ্ঞ এবং সার্জন। তিনি শমরিতা হাসাপাতাল এবং শিশু ও মাতৃস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটে কর্মরত।

অনুলেখক: আলী আদনান।   একুশে টেলিভিশন

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   লন্ডনে লোক পাঠানোর নামে সক্রিয় প্রতারক চক্র, সতর্ক করলো ‘বিসিএ’
  •   সিলেট বিভাগের একটিসহ দেশের ১০ জেলায় নেই জাতীয় মহাসড়ক
  •   জাহানারা ইমাম আমৃত্যু সংগ্রামী এক জননী: মিসবাহ সিরাজ
  •   ফ্রান্সের সেরা সেফ হলেন সিলেটের আব্দুর রহিম
  •   পদ্মশ্রী পুরস্কার ও একুশে পদক জয়ী ঝর্ণা ধারা চৌধুরী আর নেই
  •   রোহিঙ্গাদের ফেরত না পাঠাতে পারলে নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে
  •   স্ত্রীর সামনে স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা
  •   ঢাকা-সিলেট চারলেন বাস্তবায়নসহ ছয়দফা দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন
  •   সেমির আশা বাচিয়ে রাখল পাকিস্তান
  •   নিয়োগে বাণিজ্যর অভিযোগে মৌলভীবাজারে এসআই বরখাস্ত, কনস্টেবল আটক
  •   মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার আন্তর্জাতিক দিবসে বিশ্বনাথে র‌্যালী-সভা
  •   বিশ্বনাথে বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন
  •   কাউন্সিলর আফতাব মিনি ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজনের লক্ষ্যে সভা
  •   রাজনগরে মাদক বিরোধী দিবস পালিত
  •   সিলেট সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে ৫নং ওয়ার্ডের মসজিদ-মন্দিরে অনুদান
  • সাম্প্রতিক ফিচার খবর

  •   ইয়াহুর ত্রুটি ধরে জিতলেন ১৫ লাখ ডলার!
  •   এ বছরের জনপ্রতি ফিতরা সর্বনিম্ন ৭০, সর্বোচ্চ ১৯৮০ টাকা
  •   রাসূল (সা:) পছন্দ করতেন যে ১২টি খাবার
  •   "পিতার লোভে, পুত্র ধ্বংস"
  •   অন্যরকম বৈশাখ
  •   বর্ষাকাল না আসতেই বৃষ্টির আগমন
  •   অগ্নিকাণ্ডের সময় রাসূল সা. যা করতে বলেছেন
  •   দোলের রঙে জীবনের একাত্মতা
  •   মৃত্যুকালে রাসূল (সা:) যে কথাটি বারবার বলেছিলেন
  •   দৌড়ে ছিনতাইকারী ধরা বিসিএস ক্যাডার সালমার গল্প
  •   ফেরিওয়ালা থেকে সেরা করদাতা হয়ে ওঠার গল্প
  •   শহীদ জগৎজ্যোতি: আমাদের দীপশিখা
  •   হিমোফিলিয়া: একটি রাজকীয় রোগের নাম
  •   স্কুলগুলো একেকটা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ছাড়া কিছুই নয়
  •   নৈতিক অবক্ষয়ের রঙ্গমঞ্চে শিক্ষাঙ্গন, লাগাম ধরবে কে?