আজ রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০১৯ ইং

বর্ষাকাল না আসতেই বৃষ্টির আগমন

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৯-০৪-০৭ ১৭:৩৮:৫৪

রুবাইয়াত-ই-জান্নাত :: বাংলাদেশে ছয়টি ঋতু থাকলেও বর্ষাকালের বৈশিষ্ট্য সবচেয়ে আলাদা। কিন্তু বর্ষাকালের আগেই যখন বৃষ্টির আগমনি বার্তা আসে তখন তা আনন্দের সাথে বেশ কিছু দুর্ভোগ বয়ে আনে।

এবার সারা দেশেই বর্ষাকাল আসার আগেই মেঘলা আকাশ আর বৃষ্টির উপস্থিতি দেখা যাচ্ছে। তবে সিলেটে যেন এদের উপস্থিতি সবচেয়ে বেশি।

সিলেটে দিনের শুরু রোদেলা আকাশ দিয়ে হলেও মূহুর্তের মধ্যে মেঘের ভয়ংকর গর্জন আর কালো আকাশ সম্পুর্ণ পরিবেশকে অন্যরকম করে তোলে। আর তার কিছুক্ষণ পর যখন বৃষ্টি পড়া শুরু হয় ঘরের বাইরে থাকা মানুষগুলো ছুটাছুটি শুরু করে বৃষ্টি থেকে নিজেকে একটু বাঁচার জন্য। এ সময় যাদের কাছে ছাতা থাকে তারা নিজেকে অনেক ভাগ্যবান মনে করে।

এই হঠাৎ বৃষ্টি দুষ্টু ছেলেমেয়েদের জন্য অনেক মিষ্টি সময় বয়ে নিয়ে আসে। কারণ তারা বৃষ্টিতে ভিজে, কাদাতে খেলে অনেক মজা পায়। একই সময় আবার অনেকে ঘরে বসে থাকে মেঘের গর্জনের শব্দ শুনে।

সিলেটে এই অসময়ের বৃষ্টিতে ভাঙ্গা রাস্তাগুলো পানিতে ভরে যায়। রাস্তায় যানবাহন চলাচলে অসুবিধা সহ মানুষের চলাচলও বেশ দুর্বিষহ হয়ে যায়। আবার দিনমজুরদের জন্যেও এই ধরণের দিন কাম্য নয়। দোকানিদের বিক্রি এসময় কমে যায় বলে তারাও বেশ চিন্তিত থাকে। বিদ্যুৎ বিভ্রাটও এই সময়ের নিত্য ঘটনা হয়ে যায়।

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষের ছাত্রী আশানূর আলতাফ জেরিন বলেন, সিলেটের এমন আবহাওয়া আর বিদ্যুৎ বিভ্রাট এর বেপারে আগে জানতাম না। তাই মোমবাতি আর চার্জার সাথে রাখি নি। এই কারণে কারেন্ট চলে গেলে পড়তে অনেক সমস্যা হয়। আর পরীক্ষার আগের দিনের রাতে অবস্থা আরো খারাপ হয়ে যায়।

তবে এই দিন এ সিলেটের ছাতা, মোমবাতি, চার্জার এসব জিনিসের বিক্রি বেড়ে যায়। আর আবহাওয়া একটু ভালো হলে ঝালমুড়ি এর ভ্যানের সামনে মানুষের ভিড় দেখা যায়। হোটেলগুলোতে খিচুড়ির ক্রেতার সংখ্যাও বাড়ে সমান হারে। বর্ষার সিক্ততা এসব খাবারের প্রতি যেন মানুষের আকর্ষণকে বাড়িয়ে দেয়।

সিলেটের বালুচর এলাকার এক অধিবাসী ফরিদ মিয়া সাথে কথা বলে জানতে পারি- সিলেটে এই সময় বাড়ি থেকে টাকা নিয়ে না বের হলেও ছাতা নিয়ে বের হতে হয়। ছাতা ছাড়া এই দিনে চলা যায় না।

সারা দেশের মধ্যে সিলেটে তুলনামুলক বৃষ্টি বেশি হয়। সিলেটে বসবাসকারী মানুষের ধারণা সিলেটে বৃষ্টিপাতের হার দিন দিন আরো বাড়বে।


লেখক- রুবাইয়াত-ই-জান্নাত, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়।

@

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   শফিকুল হক আমকুনীর মৃত্যুতে মেয়র আরিফের শোক
  •   শাহবাগ প্রবাসী ট্রাস্টের অর্থায়নে ফ্রী খতনা ক্যাম্প সম্পন্ন
  •   সাংবাদিক ইকবাল মনসুরের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মিলাদ মাহফিল
  •   হবিগঞ্জে পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু
  •   বদলে যাচ্ছে সিলেটের মানিক পীর কবরস্থান
  •   নানা সংকটে ধুঁকছে কুলাউড়া সরকারী হাসপাতাল, দূর্ভোগ
  •   গহরপুর আব্দুল মতিন মহিলা একাডেমির বার্ষিক মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত
  •   মাওলানা শফিকুল হক আমকুনীর মৃত্যুতে সিকৃবি রেজিস্ট্রারের শোক
  •   বালাগঞ্জে শিলাবৃষ্টিতে বোরো ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি
  •   জুড়ীতে সাংবাদিক চম্পুর উপর সন্ত্রাসী হামলা
  •   মাওলানা আমকুনী ও শাহপরাণ মাজারের প্রধান খাদিমের মৃত্যুতে শফিক চৌধুরীর শোক
  •   লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান থেকে মূল্যবান আগর গাছ চুরি!
  •   সিলেটে জয়বাংলা-ইয়ং বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্তদের সাথে মতবিনিময়
  •   কমলগঞ্জে জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা সপ্তাহ সমাপ্ত
  •   ছাতকে ক্রিকেট প্রিমিয়ার লীগের ফাইনাল সম্পন্ন
  • সাম্প্রতিক ফিচার খবর

  •   অন্যরকম বৈশাখ
  •   অগ্নিকাণ্ডের সময় রাসূল সা. যা করতে বলেছেন
  •   দোলের রঙে জীবনের একাত্মতা
  •   মৃত্যুকালে রাসূল (সা:) যে কথাটি বারবার বলেছিলেন
  •   দৌড়ে ছিনতাইকারী ধরা বিসিএস ক্যাডার সালমার গল্প
  •   ফেরিওয়ালা থেকে সেরা করদাতা হয়ে ওঠার গল্প
  •   শহীদ জগৎজ্যোতি: আমাদের দীপশিখা
  •   হিমোফিলিয়া: একটি রাজকীয় রোগের নাম
  •   স্কুলগুলো একেকটা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ছাড়া কিছুই নয়
  •   নারী-পুরুষের যেসব শারীরিক সমস্যায় সন্তান হয় না: ডা. উম্মুল খায়ের
  •   নৈতিক অবক্ষয়ের রঙ্গমঞ্চে শিক্ষাঙ্গন, লাগাম ধরবে কে?
  •   ৭৮ টি লাশ: শুধুই দূঘর্টনা নাকি হত্যা?
  •   একটি বাড়ি, চেতনার বাতিঘর...
  •   শিশুদের মনস্তাত্ত্বিক ভিত্তি পর্যবেক্ষেণেই কর্মমুখী শিক্ষার প্রয়োজন
  •   নবীন প্রাণে বসন্তের আহবান