আজ বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯ ইং

গ্রামে সন্ত্রাসীর হামলায় নিহত ১০০ রক্ষা পেল মাত্র ৫০ জন

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৯-০৬-১১ ১২:১৯:০৩


সিলেটভিউ ডেস্ক :: কেন্দ্রীয় মালির একটি গ্রামে ডোগন ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ওপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় একশ জনের মতো নিহত হয়েছে। ওই হামলা থেকে গ্রামটির মাত্র ৫০ জন মানুষ রক্ষা পেয়েছেন।

হামলার পর এখনও ১৯ জন মানুষ নিখোঁজ রয়েছে। আরও সহিংসতা ঠেকাতে ওই অঞ্চলে বিমান সহায়তা পাঠিয়েছে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী বাহিনী।

কর্তৃপক্ষ বলছে, মোবতি এলাকায় সানগা শহরের কাছে সোবামে দা গ্রামে ওই হামলার ঘটনা ঘটেছে। ওই গ্রামটিতে মাত্র ৩শ জনের মতো বাসিন্দা বসবাস করত। স্থানীয় বাসিন্দারা বলছেন, এখন পর্যন্ত ৯৫ জনের মরদেহ পাওয়া গেছে। এদের অনেকেরই শরীর পোড়া ছিল। এখনও নিহতদের খোঁজে কাজ চলছে।

মালিতে সম্প্রতি বেশ কয়েকটি হামলার ঘটনা ঘটেছে। এর কিছু হয়েছে গোষ্ঠীগত বিরোধের কারণে আবার কিছু ছিল জিহাদি গ্রুপের হামলা।

ডোগন শিকারি এবং সেমি নোমাডিক ফুলানি হার্ডার মধ্যে সংঘর্ষ সেখানে নৈমিত্তিক ঘটনা। মালির সরকার বলছে, সন্দেহভাজন সন্ত্রাসীরা এই হামলা চালিয়েছে এবং এখনও ১৯ জন নিখোঁজ রয়েছে।

আমাদো টোগো নামের এক ব্যক্তি ওই হামলা থেকে প্রাণে বেঁচে গেছেন। তিনি সংবাদ সংস্থা এএফপিকে বলেন, ৫০ জনের মতো ভারী অস্ত্রসজ্জিত ব্যক্তি মোটরবাইক এবং পিকআপে করে আসে। তারা প্রথমে পুরো গ্রামটি ঘিরে ফেলে এবং হামলা করে। যারাই পালানোর চেষ্টা করেছে তাদেরই হত্যা করা হয়েছে।

আমাদো টোগো আরও বলেন, এই হামলা থেকে কেউ রক্ষা পায়নি। নারী, শিশু, বৃদ্ধ-কেউ না। এদিকে কোন গ্রুপ এখনও পর্যন্ত ওই হামলার দায় স্বীকার করেনি।

ওই অঞ্চলে ডোগন এবং ফুলানি বাসিন্দাদের মধ্যে বহুদিনের দ্বন্দ্ব রয়েছে। এর মূল কারণ ডোগনরা প্রথাগত পদ্ধতিতে চাষবাস করে জীবিকা নির্বাহ করে।

অন্যদিকে, পশ্চিম আফ্রিকা থেকে আসা ফুলানি গোত্রের লোকেরা কিছুটা যাযাবর জীবনযাপন করে। এই দুই গোষ্ঠীর মধ্যে জমির মালিকানা নিয়ে বিরোধ অনেক পুরোনো।

তবে বিবিসি বলছে, ২০১২ সালে ওই অঞ্চলে ইসলামি জঙ্গি গোষ্ঠীর উত্থানের পর থেকে সংঘাত ও হামলার ঘটনা বেড়ে চলেছে। ফুলানিরা ওই অঞ্চলে মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগোষ্ঠী, সে কারণে তাদের সঙ্গে ইসলামি জঙ্গি গোষ্ঠীর সংশ্লিষ্টতা রয়েছে এমন অভিযোগ করা হয়।

সৌজন্যে : জাগোনিউজ ২৪
 
সিলেটভিউ ২৪ডটকম/১১ জুন ২০১৯/মিআচ 

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   সিলেট বিভাগের একটিসহ দেশের ১০ জেলায় নেই জাতীয় মহাসড়ক
  •   জাহানারা ইমাম আমৃত্যু সংগ্রামী এক জননী: মিসবাহ সিরাজ
  •   ফ্রান্সের সেরা সেফ হলেন সিলেটের আব্দুর রহিম
  •   পদ্মশ্রী পুরস্কার ও একুশে পদক জয়ী ঝর্ণা ধারা চৌধুরী আর নেই
  •   রোহিঙ্গাদের ফেরত না পাঠাতে পারলে নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে
  •   স্ত্রীর সামনে স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা
  •   ঢাকা-সিলেট চারলেন বাস্তবায়নসহ ছয়দফা দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন
  •   সেমির আশা বাচিয়ে রাখল পাকিস্তান
  •   নিয়োগে বাণিজ্যর অভিযোগে মৌলভীবাজারে এসআই বরখাস্ত, কনস্টেবল আটক
  •   মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার আন্তর্জাতিক দিবসে বিশ্বনাথে র‌্যালী-সভা
  •   বিশ্বনাথে বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন
  •   কাউন্সিলর আফতাব মিনি ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজনের লক্ষ্যে সভা
  •   রাজনগরে মাদক বিরোধী দিবস পালিত
  •   সিলেট সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে ৫নং ওয়ার্ডের মসজিদ-মন্দিরে অনুদান
  •   সিলেট যুবলীগে সম্মেলনের সুর!
  • সাম্প্রতিক আন্তর্জাতিক খবর

  •   ইসরাইলের পরমাণু অস্ত্র নিয়ে আপনি কথা বলছেন না কেন? ট্রাম্পকে রুহানি
  •   মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় মোদি ব্যথিত
  •   রাশিয়া-ফ্রান্সের সহযোগিতা নেবে ফিলিস্তিন
  •   যুক্তরাষ্ট্রে ঢুকতে গিয়ে বাবা-মেয়ের নির্মম মৃত্যু
  •   লাইভ টকশো'তে সাংবাদিককে ফেলে পেটালেন পিটিআই নেতা!
  •   ভারতে ঝাড়খণ্ডে মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যায় গ্রেফতার ৫
  •   'মধ্যপ্রাচ্যসহ সারা বিশ্বে সংকটের প্রধান কারণ যুক্তরাষ্ট্র'
  •   'ট্রাম্পকে যুদ্ধের ফাঁদে ফেলে দিচ্ছিল বি-টিম'
  •   ফের আফগানিস্তানের তালেবানের সঙ্গে আলোচনায় বসছে যুক্তরাষ্ট্র
  •   ইরানকে উসকানি দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, বিশ্বযুদ্ধের আশঙ্কা: মাহাথির
  •   ঝড়ে ভারতের মন্দিরে প্যান্ডেল ভেঙে নিহত ১৪
  •   শ্রীলংকায় আরও এক মাস জরুরি অবস্থা
  •   ইরান-যুক্তরাষ্ট্র উত্তেজনা তুঙ্গে, ট্রাম্পের পাশে ইসরায়েল
  •   ট্রাম্প নয়, যুক্তরাষ্ট্রের মৃত্যুদণ্ড চাইল ইরানের সংসদ!
  •   ইরানকে নিশ্চিহ্ন করে দেয়ার হুমকি দিলেন ট্রাম্প