আজ সোমবার, ০১ জুন ২০২০ ইং

আসামে এনআরসি থেকে বাদ পড়াদের জন্য তৈরি হচ্ছে বন্দীশালা

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৯-০৯-১৪ ১৩:২২:৩৬

সিলেটভিউ ডেস্ক :: কয়েক সপ্তাহ আগে আসামে প্রকাশিত হয়েছে চূড়ান্ত জাতীয় নাগরিক তালিকা। ১৯ লক্ষ মানুষ তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন। তাদের জন্য আসামের গোয়ালপাড়া জেলার পশ্চিম মাটিয়ায় তৈরি হচ্ছে বন্দীশালা (ডিটেনশন সেন্টার)। অনুপ্রবেশকারীদের আটকে রাখার জন্য এই বন্দীশালার কাজ চলছে জোর গতিতে।

আসামের ডিটেনশন সেন্টারের জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার রবীন দাস বলেন, ভারত সরকারের নির্দেশে অনুপ্রবেশকারীদের জন্য বন্দীশিবির বানানোর কাজ শুরু হয়েছে ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে। পুরো প্রকল্পের জন্য খরচ ধরা হয়েছে ৪৬ কোটি রুপি। মোট ১৫টি চারতলা বিল্ডিং তৈরি হচ্ছে। তার ১৩টি পুরুষদের জন্য, দু’টি নারীদের জন্য।

এদিকে যারা নাগরিক তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন, তারা নাম তোলার জন্য ভারতের ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালের সামনে আবেদন করতে পারবেন। সেজন্য সময় দেওয়া হয়েছে ১২০ দিন। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে ২০০-র বেশি ট্রাইব্যুনাল তৈরি হয়েছে। এর আগে নাগরিক তালিকা থেকে বাদ পড়া মানুষজনকে রাখার জন্য অস্থায়ী ডিটেনশন ক্যাম্প তৈরি হয়েছিল আসামের নানা প্রান্তে। পশ্চিম মাটিয়ার ডিটেনশন ক্যাম্প তৈরি শেষ হলে তা হবে দেশের প্রথম স্থায়ী বন্দীশিবির। তার আয়তন ২ লক্ষ ৮৮ হাজার বর্গ ফুট। তাতে নিরাপত্তারক্ষী ও অফিসারদের থাকার জন্য তৈরি হচ্ছে আলাদা ফ্ল্যাট।

উল্লেখ্য, ভারতের আসামে জাতীয় নাগরিক তালিকা বা এনআরসি নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। খোদ ভারতেই এ নিয়ে প্রশ্ন ওঠছে। ক্ষোভ-হতাশা প্রকাশ করেছেন অনেকে। জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থার প্রধান ফিলিপ্পো গ্রান্ডি এক বিবৃতিতে বলেছেন, ভারতকে এটা নিশ্চিত করতে হবে, আসামে একজন ব্যক্তিও রাষ্ট্রবিহীন হয়ে পড়বেন না এবং তাদের পুরো প্রক্রিয়ায় তথ্যগত প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করতে হবে। সূত্র : দ্য ওয়াল।

সৌজন্যে :বিডি-প্রতিদিন

সি‌লেট‌ভিউ২৪ডটকম/১৪‌ সে‌প্টেম্বর ২০১৯/মিআচৌ 

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন