আজ বৃহস্পতিবার, ০৪ জুন ২০২০ ইং

বিজেপি নয়, ২০২১ সালে পশ্চিমবঙ্গের নেতৃত্বে আসবে আরএসএস

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৯-১১-০৬ ১৮:৫৪:২৯

সিলেটভিউ ডেস্ক :: ‘আমরা অনেকটা হাওয়ার মতো। আছি কিন্তু দেখতে পাবেন না।’ লোকসভা ভোটে বাংলায় বিজেপির উত্থানের পর কেশব ভবন গিয়ে এরকমই মন্তব্য শুনেছিলাম বঙ্গ-আরএসএসের এক শীর্ষ নেতার থেকে। পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির ২ থেকে ১৮ লোকসভা আসনের এই জার্নিতে রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘের (আরএসএস) ভূমিকা নিয়ে প্রচুর আলোচনা হয়েছে। খবর কলকাতা টাইমস এর।

যদিও সরাসরি প্রশ্নে আরএসএস নেতারা এড়িয়ে গেছেন বিষয়টি। ২০১৯, ২৩ মে মুরলিধর লেনের বঙ্গ-বিজেপির সদর দফতরে গেরুয়া আবির নিয়ে নাচ চলছিল। তার থেকে ৫ কিলোমিটারের মধ্যে থাকা বঙ্গ-আরএসএসের সদর দফতর ছিল উত্তাপহীন। বিজেপির নিচে অন্তশলিলা নদীর মতো কাজ করে যাওয়া আরএসএসের কার্য কলাপের টের পেতে তাই যথেষ্ট বেগ পেতে হয়।
হিন্দুত্ববাদী সংগঠনটি ২০১৯ এ মোদিকে আরও একবার ক্ষমতার মসনদে বসানোর জন্য কাজ শুরু করেছিল ২০১৬ সালেই। একইভাবে ২০২১ এ বাংলায় বিজেপিকে ক্ষমতায় আনতে এখনই প্রস্তুতি শুরু করেছে আরএসএস। সূত্রের খবর, ছোটো ছোটো টিমে ভাগ হয়ে গ্রামে গ্রামে গিয়ে এনআরসি, রাম মন্দিরসহ একাধিক ইস্যু সাধারণ মানুষের সামনে তুলে ধরছে বিশ্বহিন্দু পরিষদ এবং আরএসএস।
 
বাংলার আরএসএসের এক শীর্ষ নেতাকে এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, ‘দেখুন আরএসএস একটি অরাজনৈতিক সংগঠন। দেশ ও সাধারণ মানুষের ভালো হয় এরকম কাজে আরএসএসের স্বয়ংসেবকরা সারা বছর যুক্ত থাকেন। আমরা কোনও দলের হয়ে প্রচার করি না। মানুষ যাকে খুশি ভোট দিক। কিন্তু ভোট দেওয়াটা কতটা গুরুত্বপূর্ণ সেটাই আমরা তুলে ধরি। আমরা সাধারণ মানুষকে সচেতন করি।’

গত কয়েক বছরে পশ্চিমবঙ্গে শক্তি বৃদ্ধি করেছে আরএসএস। পশ্চিমবঙ্গে অনেকটাই বেড়েছে আরএসএস-এর শাখা। শুধুমাত্র উত্তর দিনাজপুরেই সঙ্ঘের ১৫০টি শাখা সক্রিয়ভাবে কাজ করছে বলে আরএসএস সূত্রে জানানো হয়েছে। গোয়ালপোখর চাকুলিয়া, করণদিঘির মতো একাধিক এলাকা এখন সঙ্ঘের শক্ত ঘাঁটি। দক্ষিণবঙ্গের ৩৩টি সাংগঠনিক জেলায় তাদের প্রায় দু’হাজার শাখা রয়েছে। গত বছর এই সংখ্যাটা হাজারখানের মতো ছিল। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন এই বর্ধিত সদস্যের উপর ভর করেই ২০২১ এর জন্য বিজেপির পালে হাওয়া লাগাতে চলেছে আরএসএস।


সৌজন্যে : বিডি প্রতিদিন
সিলেটভিউ২৪ডটকম/৬ নভেম্বর ২০১৯/জিএসি

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন