আজ বৃহস্পতিবার, ২১ জুন ২০১৮ ইং

ফুসফুস ক্যান্সার প্রতিরোধে প্রাচীন মহৌষধি

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৭-১১-১২ ০০:৫৫:১৩

আমরা সাধারণত ফুসফুসের খুব একটা যত্ন নেই না বললেই চলে। অথচ ফুসফুসই আমাদেরকে কোনো রোগ সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করতে প্রথম লড়াইটা করে।

ফুসফুসের প্রতি আমরা নজর দেই তখনই যখন এটি আক্রান্ত হয়ে পড়ে। আমরা জানি যে, বাইরের বাতাস আমাদের ফুসফুসের ভালো থাকা বা খারাপ থাকার পেছনে প্রধান ভুমিকা পালন করে। তবে ফুসফুসের জন্য সবচেয়ে বিপজ্জনক উপাদান হলো টার এবং নিকোটিন। ধুমপান বা অন্যদের ধুমপানের ফলে বাতাসে ছড়িয়ে পড়া টার আর নিকোটিন ফুসফুসের ক্ষতির কারণ।

এসব উপাদান ফুসফুসে জমা হয়ে বিষক্রিয়া করে ফুসফুসকে ধ্বংস করতে থাকে। নিকোটিন দেহে প্রবেশ করা মাত্রই রক্তচাপ বেড়ে যায় এবং রক্তের শিরা-উপশিরাগুলোকে সংকুচিত করতে থাকে।

টার ফুসফুসের বায়ুথলিগুলোতে জমা হয়ে সেগুলোর বাতাস বিশুদ্ধকরনের কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত করে।

ফুসফুসের এসব বিষাক্ত উপাদানকে পরিষ্কার করতে প্রাচীন একটি কার্যকর প্রাকৃতিক মহৌষধি আছে। আসুন জেনে নেওয়া যাক।

মহৌষধিটির উপাদান:
১ লিটার পানি
৪০০ গ্রাম পেঁয়াজ
২ চামচ আদা এবং হলুদ
৪০০ গ্রাম মধু

বানানোর পদ্ধতি:
পানির সঙ্গে বাটা পেঁয়াজ টুকু মিশিয়ে হালকা আগুনে সেদ্ধ করুন। এর সঙ্গে দুই চামচ বাটা আদা ও হলুদ গুড়ো মেশান। ১০ মিনিট ধরে সেদ্ধ করার পর তাতে মধুটুকু মিশিয়ে দিন। এরপর ভালোভাবে নেড়ে নেড়ে মেশান। মিশ্রণটি আরো ভারী করতে চাইলে আরো বেশি সময় ধরে আগুনে সেদ্ধ করুন।

এই মিশ্রণটি থেকে প্রতিদিন সকালে দুই চামচ আর রাতে ঘুমানোর আগে দুই চামচ করে খান।

এই মিশ্রণটি আপনার ফুসফুস থেকে সবধরনের বিষাক্ত উপাদান পরিষ্কার করতে সক্ষম। প্রাচীন কাল থেকেই ভারত উপমহাদেশিয় চিকিৎসা ব্যবস্থায় এই মহৌষধিটি ব্যবহৃত আসছে ফুসফুসের ক্যান্সার প্রতিরোধে।

এই মিশ্রণটি সেবন শুরু করার পর প্রথমদিকে হালকা কফ দেখা দিতে পারে। যা খুবই স্বাভাবিক। ওই কফের সাথে ফুসফুসে জমে থাকা বিষাক্ত উপাদানগুলো বের হয়ে আসতে শুরু করবে।

আপনি যতদিন ইচ্ছা এই ওষুধটি সেবন করতে পারেন। তবে মনে রাখবেন, আদা রক্তকে পাতলা করে। ফলে আপনার যদি এই সংক্রান্ত কোনো সমস্যা থেকে থাকে তাহলে অবশ্যই ডাক্তারের সঙ্গে আগে পরামর্শ করে নিবেন। সূত্র: বোল্ডস্কাই

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   কুলাউড়ার বন্যাকবলিত মানুষের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ
  •   মৌলভীবাজারের বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি, বেড়েছে দুর্ভোগ
  •   সোনাই নদীর ভাঙনে রাস্তা বিলীন, দুর্ভোগ
  •   রাজধানীতে আন্তর্জাতিক যোগ দিবস পালিত
  •   বিয়ানীবাজার পৌরসভার বাজেট নিয়ে সাংবাদিকদের সাথে মেয়রের মতবিনিময়
  •   দিরাই থেকে ৫ দিন ধরে ছাত্রী নিখোঁজ
  •   বালাগঞ্জে ৪০হাজার লোক পানিবন্দী
  •   ‘বৃহত্তর আন্দোলনের নির্দেশ খালেদা জিয়ার’
  •   যুক্তরাষ্ট্রে চাপের মুখে অভিবাসন নীতিতে পরিবর্তন
  •   রাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় যুবকের মৃত্যু
  •   ইসকন সিলেটের ৮তম গীতা শিক্ষা কোর্স শুরু হচ্ছে
  •   নবনির্বাচিত ছাত্রদল নেতৃবৃন্দকে বালাগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের অভিনন্দন
  •   অভিনব পন্থায় জয় উদযাপন করলেন সেনেগাল সমর্থকরা
  •   রাশিয়ার জন্মহার বাড়াবে ফুটবল বিশ্বকাপ
  •   বিশ্বকাপের কল্যাণে ফের বেঁচে উঠলেন ওসামা!
  • সাম্প্রতিক জীবন ধারা খবর

  •   যেসব কারণে শহরের মেয়েরা বেশি মোটা হয়!
  •   বিয়েতে কমে হৃদরোগ ও স্ট্রোকের সম্ভাবনা
  •   মধুর সম্পর্ক যে কারণে বিরক্তিকর হয়ে উঠে!
  •   ছেলেদের কাছে যে বিষয়গুলো গোপন করে মেয়েরা
  •   কাপড়ের রঙ দীর্ঘদিন উজ্জ্বল রাখার কৌশল
  •   সেমাই কীভাবে ঈদের অনুষঙ্গ হয়ে উঠলো?
  •   হেডফোনের মারাত্মক ক্ষতিকর দিক
  •   জিন্স প্যান্টের সামনে ক্ষুদ্র পকেট থাকে কেন?
  •   দেখা গেছে চাঁদ, বাংলাদেশে ঈদ শনিবার
  •   টিভির নেশা অকাল মৃত্যুর কারণ হতে পারে!
  •   মাইল্ড স্ট্রোক সম্পর্কে যা জানা জরুরি
  •   সকালে ঘুম থেকে উঠেই মাথাব্যথা কেন?
  •   মশার উপদ্রবে থেকে বাঁচতে পারফিউম!
  •   ৩০ বছর পর কিভাবে যৌবন ধরে রাখবেন?
  •   নারীদের যে কাজে বেশি কষ্ট পায় পুরুষরা