আজ রবিবার, ৩১ মে ২০২০ ইং

স্বপ্নের ফেরা

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২০-০৫-০৮ ২০:০৬:২৭




|| আহমদ সাঈদ সালমী ||

সাজিদ আজ ঘুম থেকে আগেভাগে উঠে পড়েছে। খুবই উত্তেজিত। নতুন শার্ট প্যান্ট বের করে রেখেছে, জুতো জুড়াও কালি করা শেষ। আজকে অনেকদিন পর অফিস যাবে। তার স্ত্রী নাফিসাও ঘুম থেকে উঠে নাস্তা রেডি করছে। একটি নামকরা স্কুলের শিক্ষক নাফিসা। নাস্তা রেডি করতে করতে ভাবছে আজকে অনেকদিন পর সেও স্কুল এ যাবে। কলিগ, বাচ্চা-কাচ্চাদের সাথে দেখা হবে। সাজিদ এর ভাবনাটাও এরকম। অফিসের কলিগরা সবাই ভাই ভাই এবং খুবই আন্তরিক। গতকাল রাতে ভিডিওকলে প্ল্যান করেছে আজকে সবাই মিলে রেস্টুরেন্টে লাঞ্চ করবে।

করোনা মহামারির কারণে অন্যান্য পেশাজীবিদের মতো দীর্ঘদিন বন্ধ ছিলো তাদের দুজনের কর্মক্ষেত্র। সম্প্রতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্হা অফিসিয়ালি ঘোষণা দিয়েছে মহামারী করোনা থেকে পৃথিবী মুক্তি লাভ করেছে। বিগত কয়েকদিন আমাদের দেশেও আক্রান্ত এবং মৃত্যু নেই। যারা অসুস্থ ছিলেন তারাও বাসায় চলে গেছেন। বৈশ্বিক এ মহামারী থেকে রেহাই পেয়ে সবাই উৎফুল্ল, আনন্দিত!

সরকারের পক্ষ থেকে আগেই যারা জীবন বাজি রেখে এ মহামারির বিরুদ্ধে লড়াই করেছেন তাদেরকে দেয়া হয়েছে স্বাস্হ্য বীমা, প্রণোদনা। লিডার অফ স্টেট, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশের সবার জন্য আগামী এক সপ্তাহ ফ্রি গণপরিবহণের ব্যবস্হা করেছেন উপহার স্বরুপ। প্রতিটি গলির সামনে দাড়িয়ে আছে বাস, সিএনজি অটোরিকশা, লেগুনা-সবাইকে গন্তব্যস্থলে নিয়ে যাওয়ার জন্য।

সাজিদ আর নাফিসা তাড়াতাড়ি নাস্তা করে রেডি হয়ে গেলো। বাসার বারান্দা দিয়ে মেইন রোড এ চোখ গেলো নাফিসার। সবাই সবার কর্মক্ষেত্রে যাওয়ার জন্য বের হয়েছে। সবার মুখে হাসি, দীর্ঘদিনের হতাশা, ভয় থেকে মুক্তির ছাপ স্পস্ট। দুজনই এখন বের হবে। সাজিদ দরজা খুললো…বাইরে পা রাখতেই…

মাইকিং এর আওয়াজে ঘুম ভেঙে গেলো সাজিদের। ঠাস করে উঠে বসলো। ঘড়ির কাটায় দেখলো ১১.৩০ বাজে। প্রতিদিন আরও আগেই ঘুম থেকে উঠে পড়ে। নাফিসার দিকে তাকালো, সে ঘুমে বিভোর। রাস্তায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিং করা হচ্ছে ‘জরুরি কাজ ব্যতিত বাইরে বের হবেন না, করোনা মহামারীতে পুরো পৃথিবীতে লক্ষ লক্ষ লোক আক্রান্ত, সাবধানে থাকুন’। মোবাইল হাতে নিয়ে ফেসবুকে ঢুকতেই টাইমলাইনে দেখতে পেলো ‌‌‌‌''গত ২৪ ঘন্টায় দেশে আরও ৭০০ এর অধিক আক্রান্ত, একদিনেই মারা গেছেন ১৩ জন"।

হতাশা আর ভয়ে কুকড়ে যায় সাজিদ, বারান্দায় গিয়ে জনমানবহীন রাস্তার দিকে তাকিয়ে থাকে,পুরো এলাকা যেনো এক মৃত্যুপুরী !

আহা কি সুন্দর আলো ঝলমলে একটা স্বপ্ন ছিলো।মনে মনে ভাবে কবে বাস্তবে রুপ নিবে সেই সকাল। ভাবতে ভাবতে চোখ ঝাপসা হয়ে আসে তার…

লেখক: সিনিয়র অফিসার, রূপালী ব্যাংক লিমিটেড

@

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন