আজ সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ইং

শুক্রবার বসছে পদ্মা সেতুর ১৩তম স্প্যান দৃশ্যমান হবে প্রায় দুই কিলোমিটার সেতু

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৯-০৫-২৩ ১৫:২৪:১৮

ফাইল ছবি

সিলেটভিউ ডেস্ক:: কয়েকদফা পিছিয়ে অবশেষে কাল বসছে পদ্মা সেতুর ১৩তম স্প্যান। নদীর মাওয়া প্রান্তে আগে বসানো দশম স্প্যানের পাশে বসানো হবে এ স্প্যানটি। দুইটি স্প্যান পাশাপাশি বসাতে হলে যে লিফটিং ক্রেন ব্যবহার করা হয়, সেটিতে যান্ত্রিক জটিলতা দেখা দেয়ায় স্প্যান বসাতে বিলম্ব হয়। আগামীকাল ১৪ ও ১৫ নম্বর পিলারের ওপর এ স্প্যানটি বসানো হলে নদীর দুই প্রান্ত মিলিয়ে দৃশ্যমান হবে প্রায় দুই কিলোমিটার সেতু।

স্বপ্নের সেতু ডানা মেলছে। কাজে আসছে দ্রুত দৃশ্যমান অগ্রগতি। জাজিরা প্রান্তে এক সাথে দৃশ্যমান প্রায় ১ কিলোমিটার সেতুর আদলে এখন দ্রুত মাওয়া প্রান্তের কাজও এগিয়ে নেয়া হচ্ছে।

আগে বসানো ১২টি স্প্যানের ৯টি একসাথে জাজিরা প্রান্তে। একটি স্প্যান বসানো হয়েছে মাঝনদীতে। আর মাওয়া প্রান্তে আলাদাভাবে বসানো আছে ২টি স্প্যান। এখন সেগুলোর একটির পাশেই যোগ করা হবে নতুন স্প্যানটি।

আগে এখানকার ১৩ ও ১৪ নম্বর পিলারে বসানো হয়েছিলো দশম স্প্যান। এখন তার পাশে ১৩তম স্প্যানটি বসানোর জন্য এরমধ্যে প্রস্তুত করে তোলা হয়েছে ১৫ নম্বর পিলারও। এ স্প্যানটি বসলে দুই প্রান্ত মিলিয়ে দৃশ্যমান হবে ১ হাজার ৯৫০ মিটার সেতু।

আপাতত মূল নদীর মাওয়া প্রান্তে পুরো গতিতে কাজ চালিয়ে নেয়া গেলেও সমানের বর্ষা মৌসুমে তীব্র স্রোতের কারণে ব্যাহত হবে কাজ। সেটাকে ঘিরে তাই নিতে হচ্ছে বিশেষ পরিকল্পনা।

প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম বলেন, আমাদের লোকেরা এই রাতের বেলা ঢেউ হোক বা তুফান তারা তো নদীর মাঝে ছোট ছোট স্পিডবোট দিয়ে আসা যাওয়া করছে। এটাও তো সমস্যা কিন্তু সমস্যা নিয়েই তো চলতে হবে।


চীন থেকে আনা স্প্যানের ছোট টুকরোগুলো মাওয়ার ইয়ার্ডে জোড়া লাগিয়ে প্রায় মাসখানেক সময় নিয়ে ধূসর রং করার কাজও সেরে ফেলা হয়েছে। প্রায় ৪ হাজার মেট্রিকটন ওজন বহনে সক্ষম ভাসমান ক্রেনে তুলে নেয়া হয়েছে স্প্যানটি। জাজিরা প্রান্তে দূরত্বের কারণে স্প্যান নিয়ে রওয়ানা দেয়ার পর বসাতে ২ দিন সময় লাগলেও মাওয়া প্রান্তে একদিনেই স্প্যান বসিয়ে দেয়া সম্ভব হচ্ছে।
সিলেটভিউ ২৪ডটকম/২৩ মে ২০১৯/এমএইচআর

সৌজন্যেঃ সময় টিভি

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   রেজিষ্ট্রেশনবিহীন সিএনজি চলাচল বন্ধে সড়ক পরিবহণ মালিক সমিতির স্মারকলিপি
  •   আসামের ১৯ লাখ মানুষ নিয়ে মন্তব্যে সরকার প্রতিবাদ করে না : ফখরুল
  •   ছাত্রলীগকে ১ কোটি টাকা ঈদ সালামি দিয়েছেন ভিসি
  •   নিউইয়র্কে সাবেক অর্থমন্ত্রী সাইফুর রহমানের স্মরণসভা
  •   সিওমেক সন্ধানীর উদ্যোগে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি
  •   রাউজানে তৈরি হচ্ছে ভারতীয় নকল ওষুধ
  •   সিকৃবির কৃষি অনুষদের ডিনকে রংপুর সমিতির সংবর্ধনা
  •   জৈন্তাপুরে পুকুরে ডুবে শিশুর মৃত্যু
  •   ফেঞ্চুগঞ্জ কল্যাণ সমিতি ইউকে’র নির্বাচন সম্পন্ন
  •   সিলেটে ছাত্রলীগ কর্মী জাহিদ হত্যা মামলার স্বাক্ষিদের আসামীর হুমকি
  •   জকিগঞ্জে সাংবাদিক রহমত আলীর মাতৃবিয়োগ
  •   কুলাউড়ায় বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের চ্যাম্পিয়ান পৃথিমপাশা
  •   কমলগঞ্জে বঙ্গবন্ধু ফুটবল টুর্নামেন্ট জিতলো রহিমপুর ইউনিয়ন
  •   কমলগঞ্জে স্কুলছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে দপ্তরী আটক
  •   জৈন্তাপুরে ভারতীয় চোরাই গরুর বড় চালান আটক
  • সাম্প্রতিক জাতীয় খবর

  •   ছাত্রলীগকে ১ কোটি টাকা ঈদ সালামি দিয়েছেন ভিসি
  •   রাউজানে তৈরি হচ্ছে ভারতীয় নকল ওষুধ
  •   যত বড় নেতাই হোন, অপকর্ম করলে ছাড় নেই : ওবায়দুল কাদের
  •   আসামি ছেড়ে ইয়াবা ভাগবাটোয়ারা, ৫ পুলিশ গ্রেফতার
  •   জাবি ভিসি ফারজানাও বিতর্কের কাঠগড়ায়, অডিও ফাঁস
  •   বিমানবন্দরে মৌমাছি আটকেদিল তথ্যমন্ত্রীকে
  •   ট্রাফিক পুলিশকে পেটানোয় ভাইস চেয়ারম্যান কারাগারে
  •   ২০১৯ সালের ভারতের ড. কালাম স্মৃতি পদক পাচ্ছেন শেখ হাসিনা
  •   দাম নিয়ন্ত্রণে আজ থেকে শুরু হচ্ছে খোলাবাজারে টিসিবির পেঁয়াজ বিক্রি
  •   একটি ছাগলের ৮টি ছানা প্রসব!
  •   প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ
  •   ছেলে আমার সহজ-সরল, সে পরিস্থিতির শিকার: শোভনের বাবা
  •   কমিশন কেলেঙ্কারিতে ফেঁসে যাচ্ছেন জাবি উপাচার্য
  •   এরা শোভন-রাব্বানীর চেয়েও খারাপ: শেখ হাসিনা
  •   ‘এনআরসি নিয়ে উদ্বেগ থাকলেও ভারতকে বিশ্বাস করতে চাই’