আজ বুধবার, ২২ জানুয়ারী ২০২০ ইং

তিনদিন পর ফের ধরা খেলেন সেই চক্ষু ডাক্তার!

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৯-০৮-২৩ ২১:২৩:৫৯

সিলেটভিউ ডেস্ক :: মাত্র তিনদিন আগে র‌্যাবের অভিযানে ভ্রাম্যমাণ আদালতে দোষী সাব্যস্ত হয়ে এক লাখ টাকা জরিমানা দিয়েছেন তিনি। তিনদিন পর আবারও একই অপরাধে দোষী সাব্যস্ত হলেন তিনি।

নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলা শহরের বিভিন্নস্থানে ভুয়া সাইনবোর্ড টানিয়ে প্রতারণা করে চিকিৎসা চালিয়ে যাচ্ছিল মোজাম্মেল হক নামে এক ভুয়া চক্ষু চিকিৎসক। গত সোমবার কেন্দুয়া উপজেলার রামপুর বাজারে মায়ের দোয়া ফার্মেসি থেকে অভিযান চালিয়ে জরিমানা করা হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার একই ব্যক্তিকে কেন্দুয়ার একটি ফার্মেসি থেকে আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এক লাখ জরিমানা করেছেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত সোমবার উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শিরীন সুলতানা উপজেলার রামপুর বাজারে মায়ের দোয়া ফার্মেসির চেম্বার থেকে মোজাম্মেল হক নামে এক চক্ষু চিকিৎসককে তার ডাক্তারি কাগজ পত্র দেখাতে বললে তা দেখাতে ব্যর্থ হওয়ায় তাকে এক লাখ টাকা জরিমানা করে।

কিন্তু সেই ভুয়া চিকিৎসক বাড়িতে বসে না থেকে আবারও বৃহস্পতিবার চক্ষু রোগী দেখার জন্য কেন্দুয়া পৌর সদরে কেন্দুয়া ফার্মেসির চেম্বারে তিনি একজন এমবিবিএস ডাক্তারকে সঙ্গে করে নিয়ে চক্ষু রোগীদের ব্যবস্থা পত্রে নিজেকে আবার চক্ষুু চিকিৎসক হিসেবে উল্লেখ করেন।

এ সময় খবর পেয়ে কেন্দুয়া উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও কেন্দুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আল-ইমরান রুহুল ইসলাম তাকে আটক করে জানতে চাইলে তিনি বলেন রোগী দেখছেন না, শুধু ভিশন টেস্ট করছেন কিন্তু দেখা গেল, ভিশন টেস্ট করে প্রদত্ত ব্যবস্থা পত্রে নিজেকে ‘চক্ষু চিকিৎসক’ হিসেবে উল্লেখ করছেন।

এসময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট তাকে প্রশ্ন করলে তিনি স্বীকার করলেন, ভুল হয়েছে, বুঝতে পারেননি। তাই ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিল আইন, ২০১০এর ২৮(১)২৯(১) ধারার অপরাধে পুনরায় এক লাখ টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ড আরোপ করেন। পরে এ ভুয়া চিকিৎসক নগদ এক লাখ টাকা অর্থদণ্ড দিয়ে চলে যান। তিনি উপজেলার নওপাড়া ইউনিয়নের বহুলী গ্রামের সাহাব উদ্দিনের ছেলে।


সৌজন্যে : জাগোনিউজ২৪

সিলেটভিউ২৪ডটকম/২৩ আগস্ট ২০১৯/জিএসি

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   সিলেটের মেয়ে অজ্ঞাতভাবে ঢাকায়, খোঁজ মিলছেনা পরিবারের
  •   তেমুখীতে প্রতিপক্ষের আঘাতে লাইটেস স্ট্যান্ডের সম্পাদক আহত
  •   যুবদল নেতা মকসুদের মুক্তি দাবি জানালেন ফয়সল চৌধুরী
  •   সিএনজি ফিলিং স্টেশন ওনার্স এসোসিয়েশনের মতবিনিময় সভা
  •   ছাতকে শীতার্তদের পাশে যুবলীগ
  •   ইসমাত আরা সাদেকের মৃত্যুতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর শোক
  •   সিলেটে শেষ হল চার দিনব্যাপি পিঠা উৎসব
  •   ফুটপাতে ‘খুঁটি’ গাড়লো সিসিক!
  •   সিলেটে যা থাকছে ‘ডিজিটাল এক্সপো’তে
  •   খালেদা জিয়া রাজনৈতিক প্রতিহিংসার বলি: মিজান চৌধুরী
  •   ছাতকে মিনি নাইট ফুটবল প্রতিযোগিতার উদ্বোধন
  •   নবীগঞ্জে গিরীন্দ্র চন্দ্র দাশের শেষবিদায়ে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা
  •   বিশ্বনাথে ‘এনআরডি ফাউন্ডেশন’র ৪র্থ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন
  •   যুবদল নেতা মকসুদের মুক্তি দাবি ইটালি পাদোবা যুবদলের
  •   সিলেটে সড়ক-মহাসড়কে মৃত্যুর মিছিল কেন থামছে না?
  • সাম্প্রতিক জাতীয় খবর

  •   ধানে নয়, খড়ের দামে খুশি কৃষক!
  •   এক মাসে এমপিশূন্য পাঁচ আসন
  •   ঢাকা সিটি নির্বাচনে সেনা মোতায়েন হচ্ছে না
  •   কিছু কিছু মৃত্যু সত্যিই অত্যন্ত কষ্টের, বেদনার: সংসদে প্রধানমন্ত্রী
  •   রোহিঙ্গাদের মানবিক সাহায্য দিয়ে আমরা এখন সংকটে: সেতুমন্ত্রী
  •   মুজিববর্ষে বাড়ি পাবে ৬৮ হাজার দরিদ্র পরিবার
  •   ইসমত আরা সাদেক অত্যন্ত সৎ ছিলেন : প্রধানমন্ত্রী
  •   খালেদা জিয়ার জামিন নিয়ে আমরা কেন চিন্তা-ভাবনা করব?
  •   আমদানি হয়েছে সোয়া ৩ লাখ টন পেঁয়াজ
  •   ক্লাস চলাকালীন মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ল স্কুলছাত্রী
  •   বিয়ের অনুষ্ঠানে মদ্যপানে দুইজনের মৃত্যু
  •   দুই সিটিতে কাজ করবেন ৬৪ বিচারিক হাকিম
  •   রিফাত হত্যা মামলা বাতিলে মিন্নির আবেদন খারিজ
  •   ১০ বছরে রেমিট্যান্স এসেছে ১৫৩ বিলিয়ন ডলার
  •   দুগ্রুপের সংঘর্ষে রক্তাক্ত ইবি: ছাত্রলীগ সম্পাদসহ আহত ৩০