আজ শনিবার, ০৪ এপ্রিল ২০২০ ইং

৮০ নম্বর পেলেও হবে না আর 'এ' প্লাস

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২০-০২-২০ ১১:৪৫:২৮

দেশের সব পাবলিক পরীক্ষায় গ্রেডিং পদ্ধতির যে সংস্কারের কথা বলা হচ্ছিল তা চলতি শিক্ষাবর্ষে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার ফলাফলের মাধ্যমে কার্যকর হতে যাচ্ছে। আন্তর্জাতিক অঙ্গনের সঙ্গে মিলিয়ে পুরোনো পদ্ধতি জিপিএ-ফাইভের পরিবর্তে পরীক্ষার ফলাফলের সর্বোচ্চ মান জিপিএ-ফোর নির্ধারণ করা হচ্ছে। অর্থাৎ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে জেএসসি পর্যন্ত গ্রেডিং পদ্ধতিতে আর কোনো প্রভেদ থাকবে না। চলতি মাসেই এ-সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, চলতি ২০২০ শিক্ষাবর্ষে জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা থেকে নতুন গ্রেডিং পদ্ধতি কার্যকর করা হবে। ২০২১ সাল থেকে এসএসসি-সমমান ও এইচএসসি-সমমান পরীক্ষায় জিপিএ-৪ কার্যকর করা হবে।

আন্তর্জাতিক অঙ্গনের সঙ্গে মিলিয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফলে ৫ পয়েন্টের গ্রেডিং পদ্ধতির বদলে ৪ পয়েন্ট চালু করার কথা সরকার ভাবছে বলে বেশ কয়েকবার জানিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার ফলাফলের সর্বোচ্চ মান জিপিএ ৪ চলতি শিক্ষাবর্ষ থেকে কার্যকর হবে আভাস দিয়েছিলেন তিনি।

২০১৯ সালের ৮ সেপ্টেম্বর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে গ্রেড পরিবর্তন-সংক্রান্ত একটি সভার আয়োজন করেছিল শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ওই সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সিজিপিএ-৪ এর সঙ্গে সমন্বয় করে নিচের স্তরের সব পাবলিক পরীক্ষার ফলাফলে জিপিএ-৪ করার পক্ষেই মত আসে।

ওই সভায় নতুন গ্রেডিং পদ্ধতিতে জিপিএ-৫ এর স্থানে জিপিএ-৪ নির্ধারণের সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হয়। তবে এ ক্ষেত্রে পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের কাঠিন্যের স্তর, মার্কিংয়ের গুণগত মান ইত্যাদি পরিবর্তন হচ্ছে না। আগের পদ্ধতিতে খাতা মূল্যায়ন ও নম্বর বণ্টন করা হবে।

নতুন গ্রেডিং পদ্ধতিতে জেএসসি-জেডিসি, এসএসসি-সমমান, এইচএসসি-সমমান পরীক্ষায় নম্বরের ভিত্তিতে সর্বোচ্চ মান নির্ধারণ হয়েছে জিপিএ-৪। এ ক্ষেত্রে ৯০-১০০ পর্যন্ত এ প্লাস জিপিএ-৪, ৮০-৮৯ পর্যন্ত ‘এ’ জিপিএ-৩.৫, ৭০-৭৯ ‘বি’ প্লাস জিপিএ-৩, ৬০-৬৯ ‘বি’ জিপিএ-২ দশমিক ৫, ৫০-৫৯ ‘সি’ প্লাস জিপিএ-২, ৪০-৪৯ ‘সি’ জিপিএ-১ দশমিক ৫, ৩৩-৩৯ ‘ডি’ জিপিএ-১ এবং শূন্য থেকে ৩২ ‘এফ’ গ্রেড জিপিএ-০ বা ফেল নির্ধারণ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০০১ সালে পাবলিক পরীক্ষার ফলাফলে সনাতন পদ্ধতিতে নম্বর দেয়ার পরিবর্তে গ্রেড পদ্ধতি চালু করা হয়। ২০০৩ সালে সর্বোচ্চ ৫ সূচকের (পয়েন্ট বা স্কেল) ভিত্তিতে ফল প্রকাশ করা হয়।

-ঢাকাটাইমস

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   মার্কিন সাংবাদিক হত্যায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পাকিস্তানি মুক্তি পাচ্ছে!
  •   বাংলাদেশে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবর উদ্দেশ্যপ্রণোদিত: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
  •   খাদ্য সহায়তা নিয়ে গোয়াইনঘাটে ঘরে ঘরে এসপি'র প্রতিনিধি দল
  •   কুলাউড়ায় ভূমিহারা দিন মজুরের পাশে দাঁড়ালো সামাদ-ফওজিয়া ফাউণ্ডেশন
  •   নারী নির্যাতন বাড়াচ্ছে হোম কোয়ারেন্টিন
  •   চাল নিয়ে কাউন্সিলর লায়েকের ‘চালবাজি’!
  •   ১১ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ থাকবে গণপরিবহন
  •   সিলেটে রাস্তায় লোকসমাগম কম
  •   ৮৭ হাজার কোটি টাকার প্যাকেজ প্রণোদনার প্রস্তাব বিএনপির
  •   করোনার উপসর্গে সিলেটে কোয়ারেন্টিনে ১৩ জন
  •   করোনা : কেন এত লোক মাথা কামাচ্ছে?
  •   দ্রুত ভ্যাকসিন চান বিল গেটস, বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার খরচেও রাজি
  •   দোয়ারাবাজারে বিদ্যানিকেতন কিন্ডারগার্টেনের খাদ্যসামগ্রী বিতরণ
  •   প্রথমে করোনা নেগেটিভ; দিনকয়েক পরেই পজিটিভ হয়ে মৃত্যু
  •   করোনায় মৃতের দাফন নিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা
  • সাম্প্রতিক জাতীয় খবর

  •   বাংলাদেশে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবর উদ্দেশ্যপ্রণোদিত: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
  •   ১১ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ থাকবে গণপরিবহন
  •   করোনা: দেশে ২ শিশুসহ নতুন আক্রান্ত ৯
  •   দেশে করোনায় আরও দুজনের মৃত্যু
  •   করোনায় আক্রান্ত র‌্যাব সদস্য, টেকনাফে ১৫ বাড়ি-দোকান লকডাউন
  •   ট্রাফিক পুলিশকে ২৫ হাজার মাস্ক দিল বসুন্ধরা
  •   সমন্বিত কার্যক্রমে যুক্ত হল আইইডিসিআর
  •   ৬ দিনে ৩৬ মৃত্যু : কারণ শুধুই নিউমোনিয়া?
  •   যুক্তরাষ্ট্রে ২৪ ঘণ্টায় ১৮ বাংলাদেশির মৃত্যু
  •   ঢাকায় সাংবাদিক করোনায় আক্রান্ত, ৪৭ জন কোয়ারেন্টিনে
  •   ঢাকায় টেলিভিশন সংবাদকর্মী করোনায় আক্রান্ত
  •   চট্টগ্রামে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত
  •   হাসপাতাল-ক্লিনিক-চেম্বার বন্ধ থাকলে ব্যবস্থা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
  •   করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের পাশে থাকবে যুক্তরাজ্য
  •   সামরিক চিকিৎসা সার্ভিস মহাপরিদপ্তরকে পিপিই ও মাস্ক সরবরাহ করলো বসুন্ধরা