আজ শুক্রবার, ০৩ এপ্রিল ২০২০ ইং

‘করোনার কারণে ঘরে বসে থাকলে তো পেট চলবে না’

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২০-০৩-২৬ ১৯:৪৩:১২

সিলেটভিউ ডেস্ক :: দেশব্যাপী প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। সারাদেশে সরকারের তরফ থেকে সব ধরনের জনসমাগম নিষেধ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও কোচিং বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সচেতনতার জন্য মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে। জরুরি কোনো কাজ ছাড়া রাস্তাঘাটে মানুষকে না বেরোনোর জন্য বিশেষভাবে সতর্ক করা হয়েছে। পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন স্থানে মাইকিং করে প্রচার করা হচ্ছে রাস্তায় বের না হওয়ার জন্য।

গত তিনদিন থেকে নওগাঁর রাস্তাঘাটে যানবাহন, অটোরিকশা, রিকশা, ভ্যান ও মোটাসাইকেল চলাচল অনেকটা কমে গেছে। শহরে রাস্তাঘাটে অটোরিকশা ও ভ্যান তেমন চোখে পড়ছে না। এতে নিম্ন আয়ের খেটে খাওয়া মানুষরা বিপাকে পড়েছেন। আয় রোজগারের কোনো পথ না থাকায় পেটের দায়ে তারা ঘরে থাকতেও পারছেন না। তাই বাধ্য হয়ে রিকশা নিয়ে রাস্তায় নেমেছেন। বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) বেলা সাড়ে ১১টায় ভাড়ার আসায় নওগাঁ সদর হাসপাতালের গেটে সকাল থেকে অপেক্ষা করছিলেন কয়েকজন রিকশাচালক।

তাদের মধ্যে নওগাঁ সদর উপজেলার কানমটকা গ্রামের রিকশাচালক বৃদ্ধা আজিজার রহমান বলেন, বাড়িতে পরিবারের সদস্য সংখ্যা পাঁচজন। প্রতিদিন খাওয়া খরচ প্রায় ২০০ টাকা। বেসরকারি সংস্থা (এনজিও) থেকে ঋণ নিয়ে রিকশা কিনেছি। সংসারের কাজে টাকা ব্যয় করেছি। সপ্তাহে ১ হাজার ৮০০ টাকা কিস্তি দিতে হয়। প্রতিদিন প্রায় ৫/৬শ টাকা ভাড়া পেতাম। গত দুইদিন থেকে রাস্তায় বের না হওয়ার জন্য পুলিশ মাইকিং করছে। এজন্য রিকশা নিয়ে বের হতে পারিনি।

তিনি বলেন, অবস্থা খুব খারাপ। বাড়িতে কিস্তির টাকা নিতে গিয়েছিল। জানিয়ে দিয়েছি কয়েকদিন পর ছাড়া কোনো টাকা দিতে পারবো না। করোনার কারণে বাহিরে মানুষ তেমন বের হচ্ছে না। কিন্তু ঘরে বসে থাকলে তো আর পেট চলবে না। তাই বাধ্য হয়ে রিকশা নিয়ে বেরিয়েছি।

মহাদেবপুর উপজেলার আন্ধারকোটা গ্রামের রিকশাচালক রকিব উদ্দিন বলেন, এনজিও থেকে ১ লাখ টাকা ঋণ নিয়ে দুই মাস আগে ব্যাটারিচালিত রিকশা কিনেছি। প্রতি মাসে সাড়ে ৯ হাজার টাকা কিস্তি দিতে হয়। গত তিনদিন রিকশা বের করতে পারিনি। এলাকার রোগী খুব করে জোরাজুরি করায় হাসপাতালে নিয়ে এসেছি। ভয়ে ভয়ে গাড়ি চালাচ্ছি। ভাইরাসের কারণে রাস্তাঘাটে গাড়িঘোড়া কম চলছে। মানুষের আনাগোনাও কম। রিকশা বের করতে পারছিলাম না। রিকশা পড়ে থাকলে আবার ব্যাটারির সমস্যা হবে। তাই একটু বের করেছি।

এদিকে করোনা আতঙ্কে স্থবির হয়ে পড়েছে জনজীবন। আতঙ্কিত না হয়ে আগামী দুই সপ্তাহ ঘরে সময় কাটানোর জন্য জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বার বার সচেতন করা হচ্ছে।

সৌজন্যে : জাগোনিউজ ২৪
সিলেটভিউ২৪ডটকম/২৬ মার্চ ২০২০ /জিএসি

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   এক কাশিতে ৩০ লাখ টাকার খাবার নষ্ট করলেন নারী
  •   জকিগঞ্জে মাথায় গাছের ডাল পড়ে গৃহবধূর মৃত্যু
  •   বারান্দায় ফটোগ্রাফি, বৃহস্পতিবারের সেরা ফটোগ্রাফার হলেন চন্দ্রিকা
  •   হবিগঞ্জের সন্তান ব্যারিস্টার সুমনের আরেকটি মহানুভবতা
  •   টাকা-খাদ্যে ভরপুর আরিফের ভান্ডার!
  •   করোনা নিয়ে মুখ খুলে চাকরি হারালেন মার্কিন সেই ক্যাপ্টেন
  •   ছাতকের করোনা সন্দেহজনক একজনের নমুনা ঢাকায়
  •   এক মাস ১১ দিনের বেতন দান করছেন সুমন
  •   শ্বাসকষ্টে জামাইয়ের মৃত্যু, শ্বশুরবাড়ি লকডাউন
  •   জিপ উল্টে ১৭ পুলিশ সদস্য আহত
  •   বাতিল হতে পারে হজ : ২২২ বছর আগের ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি!
  •   মেশিন দিয়ে আগাম কবর খুঁড়ছে আয়ারল্যান্ড
  •   আতঙ্কে দ্বিতীয়বার করোনা পরীক্ষা করালেন ট্রাম্প
  •   করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় ফ্রান্সে ১ হাজার ৩৫৫ জনের মৃত্যু
  •   শ্বাসকষ্টে জামাইয়ের মৃত্যু, শ্বশুরবাড়ি লকডাউন
  • সাম্প্রতিক জাতীয় খবর

  •   এক মাস ১১ দিনের বেতন দান করছেন সুমন
  •   শ্বাসকষ্টে জামাইয়ের মৃত্যু, শ্বশুরবাড়ি লকডাউন
  •   জিপ উল্টে ১৭ পুলিশ সদস্য আহত
  •   শ্বাসকষ্টে জামাইয়ের মৃত্যু, শ্বশুরবাড়ি লকডাউন
  •   সাহায্য দেয়ার আগে জানাতে হবে পুলিশকে
  •   করোনা আতঙ্কের মধ্যে মশা দেখাচ্ছে ডেঙ্গুর ভয়
  •   ইতালিতে করোনায় আক্রান্ত তৃতীয় বাংলাদেশির মৃত্যু
  •   মৃত সেই নারী করোনায় আক্রান্ত ছিলেন, একশ পরিবার লকডাউন
  •   হাসপাতালে গেছে নিম্নমানের মাস্ক: চিকিৎসকদের অসন্তোষ
  •   করোনাভাইরাস নিয়ে প্রধানমন্ত্রী‌র ৩১ দফা নির্দেশনা
  •   দিল্লিতে তাবলিগে যাওয়া ৩ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত
  •   করোনা আতঙ্কে জানাজা ছাড়াই লাশ দাফন!
  •   প্রতি উপজেলার দু’জনের নমুনা পরীক্ষার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী দেননি!
  •   বাড়িভাড়া মওকুফ ও ব্যাংক লোন স্থগিতের প্রচার গুজব
  •   করোনায় প্রবাসীর বিয়ে পণ্ড!