আজ শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০ ইং

সাদা না হলে দলেই সুযোগ পেতাম না : জন্টি রোডস

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২০-০১-২২ ২০:৫২:৫৮

সিলেটভিউ ডেস্ক :: দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটে সাদা এবং কালোদের লড়াই বহু পুরনো। বর্ণবাদ এক সময় এতটা ঝাঁকিয়ে বসেছিল দেশটিতে, যে কারণে ২২ বছর ক্রিকেটে নিষিদ্ধ থাকতে হয় দেশটিকে।

বর্ণবাদের কালোছায়া থেকে কাগজে-কলমে বের হয়ে আসলেও দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে কি সত্যিই এই অন্ধকার দুরিভূত হয়েছে? প্রোটিয়া ক্রিকেট দলে বর্ণের ভারসাম্য আনার জন্য এখনও চালু রয়েছে কোটা প্রথা। কোটার ভিত্তিতেই কিছু সাদা খেলোয়াড়, কিছু কালো খেলোয়াড় দিয়ে দল সাজানো হয়।

কোটা প্রথা চালু করার অন্যতম কারণ, দেশেরর পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠিতে সামনের সারিতে নিয়ে আসা। এ কারণে, দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দল বাছাইয়ে অনেক সময় পরিসংখ্যান কিংবা ফর্ম কাজ করে না। কোটাই সেখানে মুখ্য হয়ে ওঠে।

সাবেক ক্রিকেটার জন্টি রোডস ছিলেন দুনিয়া কাঁপানো ফিল্ডার। ফিল্ডিংয়ে এতটাই উৎকর্ষতা সাধন করেছিলেন যে, তিনি কিংবদন্তিতে পরিণত হয়েছেন। সেরা ফিল্ডিংয়ের উদাহরণ দিতে গেলে জন্টি রোডসের নামই চলে আসে সবার আগে।

সেই জন্টি রোডস এবার সাদা-কালো বিতর্ক নিয়ে মুখ খুলেছেন। বলে দিয়েছেন, সাদা না হলে দলেই তিনি সুযোগ পেতেন না। ভারতের দ্য হিন্দু, ডেকান হেরাল্ড এবং দ্য নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে জন্টি রোডস স্বীকার করেছেন, সাদাদের অধিকার না থাকলে আমি দেশের হয়ে খেলতেই পারতাম না।

জন্টি রোডস বলেন, ‘সত্যিই আমি এই ফ্যাক্ট থেকে উপকৃত হয়েছি, কারণ সত্যি বলতে দেশের অর্ধেক মানুষের সঙ্গে লড়াই করতে হয়নি আমাকে।’ পরক্ষণে তিনি বলেন, ‘সত্যি বলতে, আমাকে শুধু লড়াই করতে হয়েছে সাদাদের সঙ্গেই।’

দক্ষিণ আফ্রিকা দলে নিজের অন্তর্ভূক্তির সময়টার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘নিশ্চয়ই আপনি সাদাদের অধিকার সম্পর্কে কথা বলবেন। এ বিষয়টা সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ উষ্ণতা এবং বিতর্ক চড়াচ্ছে। তবে এটাই হচ্ছে মূল সমস্যা। এ বিষয়টা নিয়ে আমি খুব সতর্ক। একজন খেলোয়াড় হিসেবে আমার পরিসংখ্যান খুব ভালো হওয়ার কারণে তখন আমি দলে সুযোগ পেয়েছিলাম।’

তবে সাদাদের জন্য রিজার্ভ কোটা না থাকলে জন্টি রোডসের দলে সুযোগ পাওয়া কঠিন হয়ে যেতো। তিনি বলেন, ‘যদি আমাদের পুরো দেশের মানুষের সঙ্গে লড়াই করতে হতো, তাহলে সম্ভবত আমি খেলারই সুযোগ পেতাম না। তাহলে আমি হয়তো মাঠের মধ্যে এভাবে ডাইভ দিয়ে ফিল্ডিংও করতে পারতাম না।’

জন্টি রোডস ছিলেন, বর্ণবাদ থেকে মুক্তির পর দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেটে শুরুর দিকে সাদাদের মধ্যে একজন। বর্ণের সমন্বয়ের কারণে তখন থেকেই দলটির চেহারায় বেশ পরিবর্তন আসে। বর্ণের ভিত্তিতেই তৈরি হয় কোটা সিস্টেম। দক্ষিণ আফ্রিকা দলে নতুন ট্রান্সফরমেশন সিস্টেমে ৬জন খেলোয়াড় থাকবেন নানা বর্ণের। এর মধ্যে একেবারেই আফ্রিকান কালো খেলোয়াড় থাকতে হবে দু’জন।

জন্টি রোডস এই ট্রান্সফরমেশন সিস্টেমটাকে পুরোপুর সমর্থন করেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের দক্ষিণ আফ্রিকা বর্ণবাদের উত্তরাধিকার। কয়টি প্রজন্মকে এই সমস্যায় ভুগতে হবে আরও? এখনও আমাদের দেশে পিছিয়ে পড়া অনেক বড় জনগোষ্ঠি রয়েছে। তাদের কিছু রাজনৈতিক অধিকার রয়েছে সত্য; কিন্তু অর্থনৈতিক স্বাধীনতা নেই।’

সৌজন্যে :: জাগোনিউজ২৪
সিলেটভিউ২৪ডটকম/২২ জানুয়ারি ২০২০/জিএসি

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন