আজ সোমবার, ০১ জুন ২০২০ ইং

১১ ভাড়াটিয়ার ভাড়া মওকুফ করলেন তাসকিনের বাবা

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২০-০৪-০২ ১৮:১০:৫১

সিলেটভিউ ডেস্ক :: করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে দেশে কার্যত লকডাউন চলছে। এতে স্থবির হয়ে পড়েছে অর্থনীতির চাকা। সংসার কিভাবে চলবে এই চিন্তায় উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় দিন কাটছে নিম্ন আয়ের লোকজনের।

এমন পরিস্থিতিতে রাজধানী ঢাকায় ভাড়াটিয়াদের পাশে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে বেশ কয়েকজন বাড়িওয়ালা। অনেকেই মার্চ মাসের ভাড়া মওকুফ করে দিয়েছেন।

জাতীয় দলের অন্যতম পেসার তাসকির আহমেদের বাবা আবদুর রশিদও বাড়িভাড়া মওকুফ করে দিয়েছেন। ভাড়াটিয়াদের এক মাসের বাড়িভাড়া মওকুফ করে দিয়েছেন তিনি।

জানা গেছে, তাসকিনের ইচ্ছাতেই এমন উদ্যোগ নিয়েছেন আবদুর রশিদ। আসছে জন্মদিনে ছেলে কি উপহার চায় জানতে চাইলে তাসকিন বাবাকে অনুরোধ করেন, ভাড়াটিয়াদের ১ মাসের বাড়িভাড়া মওকুফ করে দিতে। এটাই হবে তার জন্মদিনের উপহার।

এ বিষয়ে তাসকিনের বাবা আবদুর রশিদ বলেন, ‘সামর্থ্যে যতটুকু আছে আমি করলাম। মঙ্গলবার মোহাম্মদপুরে কিছু ত্রাণ দিয়ে আসার পর বাসায় বিশ্রাম নিচ্ছিলাম। তাসকিন এসে আবদার করল, বাবা, তোমার ভাড়াটিয়াদের জন্য এক মাসের ভাড়া মওকুফ করে দাও। ছেলের কথায় আমিও খুশি হলাম। ও তো আর খারাপ কিছু আবদার করেনি। আবদার না রেখে কি আর পারা যায়? এরপর সে নিজ থেকেই বলল, ধরে নাও এটাই আমার জন্মদিনের উপহার।’

তাসকিন বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতিতে গরীব পরিবারের জন্য ত্রাণ রয়েছে। তারা বিভিন্ন দিক থেকে সহায়তা পায়। কিন্তু মধ্যবিত্ত অনেক পরিবারের এ সুযোগ নেই। তারা কারো কাছেই হাত পাততে পারে না। আমাদের দুটি বাড়ি থেকে ভাড়া বাবদ বাবা এক লাখ টাকার মতো পান। বাবাকে অনুরোধ করি যে, এবার আমার জন্মদিনের উপহার হিসেবে সেই ভাড়া যেন তিনি মাফ করে দেন। বাবা সঙ্গে সঙ্গে রাজি হয়ে যান এবং খুশিও হয়েছেন।’

সূত্র জানায়, কয়েক বছর আগে মোহাম্মদপুরে অ্যাপার্টমেন্ট কিনেছেন তাসকিন। বর্তমানে সপরিবারে সেখানেই থাকছেন। তবে মোহাম্মদপুর জাকির হোসেন রোডে এবং বসিলায় দুটি বাড়ি আছে তাসকিনের বাবার। দুই বাড়িতে ১১টি পরিবার ভাড়া থাকেন। সবগুলো পরিবারের এক মাসের ভাড়া মওকুফ করে দিয়েছেন তাসকিনের বাবা। আগামী শুক্রবার বাংলাদেশ দলের অন্যতম ফাস্ট বোলার তাসকিন আহমেদের জন্মদিন। এ দিন ২৫ বছর পূর্ণ হবে তার।

সৌজন্যে : যুগান্তর

সিলেটভিউ২৪ডটকম/২ এপ্রিল ২০২০/মিআচৌ

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন