আজ রবিবার, ১২ জুলাই ২০২০ ইং

বিশ্বনাথে অটোরিক্সা স্ট্যান্ড দখল নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ৪০

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২০-০১-১৪ ১৯:৫০:০৩

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিশ্বনাথ :: সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার লামাকাজী ইউনিয়নের মাহতাবপুর মাছের আড়ৎ’র সামনের সিএনজি চালিত অটোরিক্সা স্ট্যান্ড দখল নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় উভয় পক্ষের প্রায় ৪০ জন ব্যক্তি আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ‘সবুজ মিয়া (রেজিঃ নং ৭০৭) ও আবাস আলী (রেজিঃ নং ২০৯৭) গ্রুপের মধ্যে উক্ত সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

গুরুত্বর আহতদেরকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সংঘর্ষ চলাকালে কয়েকটি সিএনজি চালিত অটোরিক্সা ভাংচুর করা হয়।

স্থানীয়রা জানান, উভয় পক্ষের পাল্টাপাল্টি ইট-পাটকেল নিক্ষেপের কারণে প্রায় আধ ঘন্টা সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে এলাকাবাসীর সহযোগীতায় পরস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। পরে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

সংঘর্ষ ও পাল্টাপাল্টি ইট-পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনায় সবুজ মিয়া গ্রুপের আহতরা হলেন- সবুজ মিয়া (৩৫), সুজন মিয়া (২০), জুয়েল আহমদ (২০), আনসার আলী (৪০), আলাধীন (১৭), এনায়েত হোসেন (২৫), ছাদিক মিয়া (২০), ছালেক মিয়া (১৮), ফরহাদ মিয়া (১৮), মনসুর আলী (২০), কবির আহমদ (২৭), ইমরান আহমদ (২২), গোলাম আলী (৩০), মোহাম্মদ আলী (৩২), আবদুস সালাম (২৮), নজির আহমদ (২৪), আবদুল হাফিজ (১৯), আনোয়ার (৩৫), জাহাঙ্গীর আলম (২২), আমিনুর ইসলাম (৩২) এবং আব্বাস উদ্দিন গ্রুপের আহতরা হলেন- চমক আলী (২৫), ফারুক মিয়া (২২), রুবেল আহমদ (২৫), সাজ্জাদ মিয়া (২৪) প্রমুখ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে , উপজেলার লামাকাজী ইউনিয়নের মাহতাবপুর মৎস্য আড়তের সামনস্থ সিএনজি চালিত অটোরিক্সা স্ট্যান্ড দখল নিয়ে ‘সবুজ মিয়া (রেজিঃ নং ৭০৭) ও আবাস আলী (রেজিঃ নং ২০৯৭)’ গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছে।

মঙ্গলবার সকালে সবুজ মিয়ার পক্ষের লোকজন সিএনজি স্ট্যান্ড দখল নিতে সাইন বোর্ড নির্মাণ করেন। এতে আব্বাস উদ্দিনের পক্ষের লোকজন বাঁধা দেয়। এ নিয়ে উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে উভয় পক্ষের লোকজন লাটি-সোটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এসময় উভয় পক্ষের লোকজন একে অপরকে লক্ষ্য করে পাল্টাপাল্টি ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

অটোরিক্সা স্ট্যান্ড দখল নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) শামীম মুসা বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে এলাকাবাসীকে সাথে নিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। বিষয়টি আপোষ-মিমাংসায় শেষ করার উদ্যোগ গ্রহন করেছেন।

সিলেটভিউ২৪ডটকম/১৪ জানুয়ারি ২০২০/পিবিও/এসএইচ

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন