আজ মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০ ইং

গৃহবধূকে গণধর্ষণকারীদের শাস্তির দাবীতে নারীমুক্তি সংসদের সমাবেশ

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২০-০৯-২৮ ২১:৪৪:১৮

সিলেট :: বাংলাদেশ নারীমুক্তি সংসদ সিলেট জেলা কমিটির উদ্যোগে দেশব্যাপি নারীর প্রতি সহিংসতা, মুরারীচাঁদ কলেজ সিলেট ছাত্রাবাসে গৃহবধুকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে এক প্রতিবাদী নারী সমাবেশ সোমবার বিকাল ৪টায় স্থানীয় বন্দরবাজারস্থ কোর্ট পয়েন্টে অনুষ্ঠিত হয়।

সংগঠনের সভাপতি ইন্দ্রানী সেন শম্পার সভাপতিত্বে এবং সাংগঠনিক সম্পাদক উত্তরা সেন পম্পার পরিচালনায় সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি সিলেট জেলা কমিটির সভাপতি কমরেড সিকান্দর আলী বলেন, করোনা মহামারীর এই সংকটময় মূহুর্তে বিশ্ববাসী যখন শংকিত, লক্ষ লক্ষ নারী পুরুষ যখন কর্মহীন, বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দা যখন চরম আকার ধারণ করেছে, ঠিক সে সময়ে দেশব্যাপি ক্রমাগতভাবে বেড়েছে নারী নির্যাতন। শিশু থেকে প্রৌঢ় নারী কেউই আজ নিরাপদ নয়। নারীরা আজ পরিবারে, কর্মক্ষেত্রে, পরিবহনে, মাদ্রাসায়, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিরাপদে চলতে পারে না। অথচ স্বাধীনভাবে চলাফেরা করা নারীর সাংবিধানিক অধিকার। তিনি আরো বলেন, সিলেট এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণের মত ন্যক্কারজনক ঘটনা এ ঐতিহ্যবাহি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সুনাম ভুলন্ঠিত করেছে। ক্ষময়াসীন রাজনৈতিক দলের আশ্রয়ে প্রশ্রয়ে এসব ছাত্র নামধারী কুলাঙ্গাররা এ দেশের ছাত্র রাজনীতির গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাসকে কলঙ্কিত করেছে। করোনা মহামারীতে সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকাকালীন সময়েও কিভাবে এসব ছাত্রনামধারী বহিরাগতরা ছাত্রাবাসের অভ্যন্তরে মাদক, জুয়া এবং ধর্ষণের মত অপরাধ করার সাহস পাচ্ছে। ছাত্রাবাস প্রশাসন ও এম সি কলেজ প্রশাসন এ ঘটনার দায় কোন ভাবেই এড়াতে পারেন না।
সমাবেশে অন্যান্য বক্তারা বলেন - বিচারহীনতার সংস্কৃতি ও বিচারের দীর্ঘসূত্রিতা এবং গডফাদারদের আশ্রয়ে প্রশ্রয়ে এসব নরপশুরা ধর্ষণ,খুন, ইভটিজিং, ছিনতাই এর মত অপরাধ করার সাহস পাচ্ছে। বক্তারা এম সি কলেজ ছাত্রাবাসের গণধর্ষণসহ নারীর প্রতি সকল প্রকার সহিংসতা বন্ধে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে দোষীদের দৃষ্যান্তমুলক শাস্তি দাবী করেন।
সভাপতির বক্তব্যে ইন্দ্রানী সেন শম্পা বলেন- নারীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সরকারের সাংবিধানিক দায়িত্ব। প্রশাসনের কিছু উচ্চপর্যায়ে নারী আসীন থাকলেই নারীর ক্ষমতায়ন নিশ্চিত হয় না। তিনি আরো বলেন আমরা প্রগতিশীল রাজনৈতিক কর্মীরা অন্যায়ের প্রতিবাদ করলেই আইসিটি এ্যাক্টে মামলা হয় কিন্ত অবাধে পর্ণিগ্রাফি চর্চার মাধ্যেমে দেশের যুবসমাজেরা যে বিপথে যাচ্ছে যার ফলে ধর্ষণের মত ঘটনা ঘটছে এ ব্যাপারে সরকার উদাসীন। তিনি নারী অধিকার নিশ্চিত করণে সকল নির্যাতনের দ্রুত শাস্তি দাবী করেন।

সমাবেশে অন্যনের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি সিলেট জেলা সদস্য মহিতোষ চৌধুরী প্রসাদ, ওয়ার্কার্স পার্টি দক্ষিণ সুরমা উপজেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন রুমেল, যুবমৈত্রী সিলেট জেলা নেতা হিমাংশু মিত্র, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন সিলেট জেলা সম্পাদক কাজী আনোয়ার হোসেন, আদিবাসী শ্রমিক নেতা মিলন ওঁরাও, শৈলেন মুন্ডা, নারীমুক্তি সিলেট জেলার সহ সভাপতি সাবিত্রী সেন, সদস্য আকলিমা আক্তার, ছাত্রমৈত্রী সিলেট জেলা সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানা চৌধুরী, সালেহ আহমদ প্রমুখ।

সিলেটভিউ২৪ডটকম/২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০/প্রেবি/ডিজেএস


শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন