আজ সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১ ইং

সিলেটে বন্ধ অ্যাপ, চলছে খেপ

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২১-০৪-০৭ ১৬:৪৯:৫৮

ছবি : মো. মোজাম্মেল হক

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সরকার ঘোষিত এক সপ্তাহের লকডাউন ঘোষণার পর সিলেটে উবার ও পাঠাওসহ রাইড শেয়ারিং কোম্পানিগুলো পার্সেল ডেলিভারি ছাড়া তাদের সব কার্যক্রম বন্ধ রেখেছে। রাইড শেয়ারিং কোম্পানিগুলো তাদের সেবা বন্ধ রাখলেও সিলেটে থেমে নেই মোটরসাইকেলে যাত্রী পরিবহন।

অ্যাপের পরিবর্তে এখন খেপে চলছে যাত্রী পারাপার। এ নিয়ে পুলিশের কড়াকড়ি অবস্থান থাকলেও চোখ ফাঁকি দিয়েই চলছে সেবাটি।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে সোমবার (৫ এপ্রিল) থেকে সিলেটসহ সারাদেশে লকডাউন ঘোষণা করে বিধি-নিষেধ আরোপ করে সরকার। এতে নগরীতে সব ধরনের গণপরিবহন বন্ধ রয়েছে। ফলে অফিসগামী যাত্রীরা অনেকটা বিপাকে পড়েন। এ সুযোগেই অ্যাপে পরিচালিত মোটরবাইকগুলো এখন অ্যাপের পরিবর্তে খেপে (চুক্তি করে) যাত্রী পরিবহন করছে।

বুধবার (৭ এপ্রিল) নগরীর দক্ষিণ সুরমা এলাকার হুমায়ুন রশিদ চত্বরের দক্ষিণ পাশে সারিবদ্ধভাবে বেশ কয়েকটি মোটরসাইকেল দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। তাদের একজন জাকির হোসেন। তিনি বলেন, রিকশায় দুজন চলতে পারে। সিএনজি চলতে পারে। তাহলে মোটরবাইক চলতে পারবে না কেন? রিকশা-সিএনজি থেকে তো মোটরবাইক আরও নিরাপদ। এখানে কেউ মুখোমুখি বসে না।

তিনি আরও বলেন, অফিস আদালত সবই খোলা। দোকানপাটও কমবেশি খোলা। বন্ধ শুধু রাইড শেয়ারিং অ্যাপ। তাহলে মানুষ চলাচল করবে কীভাবে? অ্যাপ চলে না তাতে কী হয়েছে? এখন মানুষ নিজেদের প্রয়োজনেই আমাদেরকে খোঁজে। সে কারণে আমরা রাস্তায় আছি এবং কন্ট্রাকে যাত্রী বহন করছি।

তবে সাধারণ যাত্রীরা অভিযোগ, অ্যাপের চেয়ে খ্যাপের মাধ্যমে মোটরবাইক চালকরা কয়েকগুণ বেশি টাকা আদায় করছে। তাছাড়া গণপরিবহন বন্ধের সুযোগও তারা নিচ্ছেন। এতে বাধ্য হয়েই গন্তব্যে পৌঁছার কারণে তাদের দাবিকৃত ভাড়াই পরিশোধ করতে হচ্ছে।

অফিস থেকে ফেরার পথে হুমায়ুন রশিদ চত্বর থেকে দক্ষিণ সুরমার লালাবাজারে যাওয়ার জন্য মোটরবাইকে উঠেছেন আব্দুল্লাহ। তিনি বলেন, অন্যদিন এই পথে ৫-৬০ টাকায় যেতাম। আজ রাস্তা ফাঁকা। ১০০ টাকা দেবো বলার পরেও বাইকচালক যেতে রাজি হচ্ছে না। তিনি দাবি করছেন ১৩০ টাকা।

অপরকিদে, এভাবে অ্যাপ ছাড়া চুক্তিভিত্তিক যাওয়া নিরাপদ নয়। এতে চালক বা যাত্রী কারও নাম-পরিচয় জানা যায় না। কোনো দুর্ঘটনা ঘটলেও কোনো পক্ষের দায় নেই। সংশ্লিষ্ট অ্যাপের প্রতিষ্ঠানের কাছেও কোনো অভিযোগ করার সুযোগ নেই।


সিলেটভিউ২৪ডটকম / ৭ এপ্রিল, ২০২১ / ডালিম

@

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন