আজ বুধবার, ২০ মার্চ ২০১৯ ইং

২০১৯ সাল নিয়ে অন্ধ নারীর ভয়ঙ্কর ভবিষ্যদ্বাণী!

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৮-১২-১২ ০১:২৮:৪১

বুলগেরিয়ার বাসিন্দা অন্ধ নারী বাবা ভ্যাঙ্গা থট রিডিং, অলৌকিক উপায়ে রোগ নিরাময় ইত্যাদি ক্রিয়ার কারণে খ্যাতি পেয়েছিলেন। তার আসল নাম ভ্যাঙ্গেলিয়া প্যানদেভা দিমিত্রোভা। ১৯১১ সালে জন্ম ভ্যাঙ্গেলিয়ার। এরপর এক ঘূর্ণিঝড়ে আহত হয়ে পর্যায়ক্রমে তিনি সম্পূর্ণ দৃষ্টিশক্তি হারান।

১৯২৫ সালে ভ্যাঙ্গা দৃষ্টিহীনদের জন্য এক বিশেষ বিদ্যালয়ে ভর্তি হন। পরে তিনি পিয়ানো বাজানো, রান্না করা, উল বোনা ইত্যাদিও শেখেন। এই সময় থেকেই তার মধ্যে অতিপ্রাকৃত ক্ষমতার উদয় দেখা দেয়। তিনি ভবিষ্যতে ঘটবে এমন ঘটনার কথা অবলীলায় বলতে শুরু করেন। অচিরেই তাকে ‘বলকানের নস্ত্রাদামুস’ বলে অভিহিত করা হয়। ১৯৯৬ সালে মারা যান ভ্যাঙ্গা। তখন তার বয়স ৮৫ বছর।

ভ্যাঙ্গা যে ভবিষ্যদ্বাণীগুলো করেছিলেন তার মধ্যে অনেক ঘটনাই মিলে গেছে। ২০১৯ সাল নিয়ে ভ্যাঙ্গা বাবা কয়েকটি ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন। এগুলো হল-
২০১৯ সালে পৃথিবীতে এক মহা সুনামির আশঙ্কা রয়েছে। যে সুনামি ২০০৪ সালের সুনামির মতোই ভয়াবহ রূপ নিতে পারে সেটি। এসময় রাশিয়ায় এক বিরাট উল্কাপতন ঘটতে পারে।

এছাড়া ২০১৯ সালটি রাশিয়ার উত্থানের বছর বলে তিনি চিহ্নিত করেছিলেন। বিশ্ব রাজনীতিতে রাশিয়া এক গুরুত্বপূর্ণ স্থানে এই বছর উঠে আসতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কে তিনি জানিয়েছিলেন, ২০১৯ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট খুবই অসুস্থ হয়ে পড়বেন। এই অসুখ মস্তিষ্কের এক রহস্যময় রোগ।

এছাড়াও ২০১৮ সাল থেকে পৃথিবীর নানা বিষয় নিয়ে তিনি ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন। সবশেষ ৩৭৯৭ সালে পৃথিবী ধ্বংস হবে বলে দাবি করেছিলেন তিনি। তার আরো কিছু ভবিষ্যদ্বাণীগুলো হল:

২০১৮ সালের পর থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সংকটের মধ্যে পড়বে। ২০২৮ সালে বিশ্বব্যাপী খাদ্যসংকট দেখা দেবে।

২০১৬ সাল থেকে ইউরোপের অবলোপ ঘটবে। (ব্রেক্সিটের কথা মাথায় রাখলে এ কথা অস্বীকার করা যাবে না।)

ইসলামি শক্তির দ্বারা ইউরোপ বিপন্ন হয়ে পড়বে। সিরিয়ায় ইসলামি শক্তিগুলো বিপুল যুদ্ধে জড়িয়ে পড়বে। ২০৪৩ নাগাদ রোম একটি মুসলিম নগরীতে পরিণতি পাবে। সেখানে প্রতিষ্ঠিত হবে খিলাফতের শাসন।

২১৩০ সাল নাগাদ মানুষ পানির তলায় বসবাসের বন্দোবস্ত করে ফেলবে। ২০৪৫ সাল নাগাদ বিশাল হিমশৈলগুলো গলতে শুরু করবে। পৃথিবীর অস্তিত্ব সংকট দেখা দেবে তখন।

২০৭৬ সাল নাগাদ ইউরোপে কমিউনিজম আবার মাথাচাড়া দেবে এবং তার প্রভাব পড়বে বিশ্বের অন্যান্য দেশেও। ৩৭৯৭ সাল নাগাদ পৃথিবীর ধ্বংস অনিবার্য। কিন্তু তত দিনে মানুষ এক নক্ষত্রলোকের সন্ধান পাবে। সেই স্থানেই গড়ে উঠবে পৃথিবীর উপনিবেশ।

সূত্র: ডেইলি মেইল।

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   ২৮ মার্চ পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত
  •   হবিগঞ্জে ঔষধের দোকানে কসমেটিক্স, তিন প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা
  •   'সড়কে শৃঙ্খলার পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলা হলেও নেয়া হয়নি'
  •   হোটেলে বকেয়া ৪ লাখ টাকা না দিয়েই পালালেন অভিনেত্রী পূজা!
  •   বিইউপির ১০ শিক্ষার্থীর সঙ্গে বৈঠকে মেয়র আতিকুল
  •   সু-প্রভাত চালক ৭ দিনের রিমান্ডে
  •   নাভারনে পিকাআপচাপায় ছাত্রীর পা বিচ্ছিন্ন
  •   হারানো জিডি তদন্ত করতে গিয়ে বের হয় আসল রহস্য
  •   শিক্ষার্থীদের অবরোধে অচল পুরান ঢাকা
  •   যে কারণে আতিফকে সরিয়ে নিজেই গাইলেন সালমান
  •   দোহারে হত্যা মামলায় ১৫ জনের মৃত্যুদণ্ড
  •   মেসিদের নতুন জার্সি
  •   সিলেট নগরীতে অস্ত্রসহ চার ছিনতাইকারী গ্রেফতার
  •   স্বপ্ন ভঙ্গের অজস্র স্মৃতি নিয়ে আমার কিছু কথা _
  •   কাদেরের বাইপাস সার্জারি সফল
  • সাম্প্রতিক বিচিত্র খবর

  •   বৃহস্পতিবার দেখা যাবে সুপারমুন, সমান হবে দিন-রাত
  •   যে হাসিতে রয়েছে সাদকার সাওয়াব
  •   ক্যানসার রোগীদের জন্য সুসংবাদ
  •   এটিএম থেকে চুরি করেও টাকা ফেরত দিল চোর, কিন্তু কেন?‌
  •   মুরগির আক্রমণে শিয়ালের মৃত্যু!
  •   সাইকেল চালিয়ে অফিসে গেলেই আয়করে ছাড়!
  •   সন্তান রেখে বিমানে মা, অতঃপর...
  •   ক্ষুদ্র ডাইনোসরের জীবাশ্ম আবিষ্কার
  •   জাগুয়ারের সঙ্গে সেলফি তুলতে গিয়ে আহত নারী
  •   বিড়াল ধরতে লাখ টাকা খরচ!
  •   ১২ হাজার মাইল পাড়ি জমিয়ে ডাঙায় উঠল এই সমুদ্র দানব
  •   বিশ্বের সবচেয়ে বয়স্ক ব্যক্তি জাপানের এই নারী!
  •   রাগ কমাবেন যেভাবে
  •   বয়ফ্রেন্ড নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি, ঘণ্টায় পারিশ্রমিক ৪০০ টাকা!
  •   ৩৩ কেজি পাঙ্গাসের দাম ৫০ হাজার টাকা!