আজ সোমবার, ০১ জুন ২০২০ ইং

চুনারুঘাট সীমান্তে ৪ মাসে জব্দ সাড়ে ১৮ লাখ টাকার চোরাচালান

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৯-০৫-০৫ ২০:৪৯:৫৮

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি :: হবিগঞ্জের চুনারুঘাট সীমান্ত চোরাকারবারিদের জন্য এক সময় নিরাপদ রুট হিসেবে পরিচিতি থাকলেও এখন আর আগের অবস্থা নেই। সীমান্তজুড়ে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ’র (বিজিবি) কড়া নিরাপত্তার কারণে এই রুট দিয়ে কমেছে চোরাচালান। চলতি বছরে শুধুমাত্র চুনারুঘাট সীমান্ত দিয়ে প্রবেশকালে ১৮ লাখ ৪৪ হাজার টাকার চোরাচালান জব্দ করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।

জানা যায়, এক সময় হবিগঞ্জে চুনারুঘাট সীমান্তটি ছিলো মাদক ব্যবসায়ী ও চোরাকারবারিদের জন্য নিরাপদ একটি রুট। কিন্তু বর্তমান সরকার মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণার পর ওই সীমান্তে কড়াকড়ি আরোপ করে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। প্রয়োজন ছাড়া সীমান্তের ধারে কাছে ঘেঁষতে দেয়া হচ্ছে না কাউকে।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের শুরু থেকে এ পর্যন্ত (৫ মে) চুনারুঘাটে দুটি ক্যাম্পের বিজিবি জোয়ানরা মোট ১৮ লাখ ৪৪ হাজার টাকার চোরাচালান জব্দ করেছেন। এর মধ্যে চিমটিবিল সীমান্ত ফাঁড়ি ১৩ লাখ ৮০ হাজার ও বাল্লা সীমান্ত ফাঁড়ি ৪ লাখ ৬৪ হাজার টাকার চোরাচালান জব্দ করে। জব্দকৃত চোরাচালানে মধ্যে রয়েছে চা পাতা, গাঁজা, মদ, চশমাসহ মোটরসাইকেল, মোবাইলসহ অন্যান্য পণ্য ও মাদক।

চিমটিবিল সীমান্ত ফাঁড়ির বিজিবি কর্মকর্তা হাবিব আহমেদ জানান, ২০০৫ সালে ভারত সরকার সীমান্ত এলাকায় কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণ করার পর চোরাচালান কিছুটা কমে আসে। তবে সম্প্রতি আবারো ওইসব সীমান্ত দিয়ে মাদকসহ চোরাচালান বৃদ্ধি পায়। কিন্তু চুনারুঘাট সীমান্ত দিয়ে বিজিবি কঠোর অবস্থানে রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় চলতি বছরের চার মাসে বিপুল পরিমাণ চোরাচালান জব্দ করা হয়েছে।’

বাল্লা সীমান্ত ফাঁড়ির বিজিবি কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত চোরাচালানকারীদের বিরুদ্ধে ১৬টি মামলা করা হয়েছে। এরমধ্যে ১৪টি মামলা দায়ের হয়েছে মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে।’

সিলেটভিউ২৪ডটকম/৫ মে ২০১৯/কেএস/পিডি

@

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন