আজ রবিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ইং

সাতছড়ি উদ্যানে পর্যটকের ঢল, অব্যবস্থাপনায় ক্ষোভ

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৯-০৬-০৭ ১২:৫১:৩৭

কাজল সরকার, হবিগঞ্জ :: ঈদ মানে খুশি। আর সেই খুশিকে দ্বিগুণ করে নিতে পরিবার পরিজন নিয়ে অনেকেই ছুটে চলে কাছে কিংবা দূরের দর্শনীয় স্থানগুলোতে। ঈদের ছুটিতে রোদ বৃষ্টি উপেক্ষা করে হবিগঞ্জের ‘সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান’ এ নামে ভ্রমণপ্রেমী মানুষের ঢল। ঈদের দিন সারাদিন বৃষ্টি হলেও সেখানে টিকিট বিক্রি হয়েছে ৬০ হাজার টাকার। আর ঈদের ছুটিতে এর পরিমাণ বেড়ে ৫ লাখ ছাড়াবে বলে ধারণা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

উদ্যানের ভেতরের অব্যবস্থাপনা আর ট্রি এডভ্যাঞ্চার পরিত্যক্ত থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন দর্শনার্থীরা। তবে কর্তৃপক্ষ বলছে ঈদের আগ মূহূর্তে টানা কয়েকদিন বৃষ্টি হওয়ায় উদ্যানের পরিবেশ কিছুটা খারাপ হয়ে পড়েছে। একই সাথে ট্রি এডভ্যাঞ্চার মেরামত করা সম্ভব হয়নি।

হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট উপজেলার অবস্থিত রঘুনন্দর পাহাড়েরর সাতটি ছড়া থেকে মূলত নামকরণ করা হয়েছে ‘সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান’। সুবজ প্রকৃতি আর বন্য প্রাণীদের দেখতে দর্শনার্থী ছুটে আসেন এখানে।

ঈদের দ্বিতীয় দিনে সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে গিয়ে দেখা যায়, দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে লোকজন প্রাইভেট কার, মাইক্রোবাস, সিএনজি অটোরিক্সা ও মোটরসাইকেলযোগে পরিবার-পরিজন ও বন্ধুবান্ধব নিয়ে বেড়াতে এসেছেন। বিশেষ করে নারী ও শিশুদের উপস্থিতি ছিল লক্ষ্য করার মতো। দর্শনার্থীদের পদচারণা আর নানা রকম পাখ-পাখালির শব্দে মাতোয়ারা হয়ে উঠেছে উদ্যোনের চারপাশ। কেউ কেউ ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন ছবি ও সেলফি তুলতে। শুধু উদ্যোনের ভেতরেই নয়, পাশের সবুজ চা বাগানগুলোতেও অনেক দর্শনার্থী ঘুরে ঘুরে দেখেছেন। স্মৃতি রাখার জন্য পরিবার পরিজনের সঙ্গে বন্ধি হয়েছেন এক ফ্রেমে। আর সোশ্যাল মিডিয়াকে কাপাতে তুলেছেন সেলফি।

ঈদের দ্বিতীয় দিনে কোন বৃষ্টি না হলেও ঈদের দিন দিনভর কখনো হালকা আবার কখনো ভারিভর্ষণ হয়েছে। কিন্তু এই বৃষ্টি উপেক্ষা করেই দর্শনার্থীর ঢল নামে সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে। ওই দিন এই উদ্যান থেকে ৬০ হাজার টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে বলে জানায় কর্তৃপক্ষ।

এদিকে, ঈদে অতিরিক্ত রাজস্ব আদায়ের জন্য খোলে দেয়া হয়েছে উদ্যোনের পুরাতন গেটও (বর্তমানে যেটি পরিত্যক্ত)। অন্যসময় একটি গেল থেকে রাজস্ব আদায় করা হলেও ঈদ উপলক্ষে উদ্যানের তিনটি গেট থেকে রাজস্ব আদায় করছে কর্তৃপক্ষ।

অপরদিকে, পর্যটকদের দীর্ঘদিনের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৫ সালে নির্মিত ট্রি এডভ্যাঞ্চারটি ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ অজুহাতে বন্ধ রেখেছে কর্তৃপক্ষ। বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তরুণ দর্শনার্থীরা।

এ ব্যাপারে মাধবপুর থেকে ঘুরতে আসা দর্শনার্থী মো. ফয়জ মিয়া বলেন- ‘ঈদে পরিবার পরিজন নিয়ে ঘুরতে আসার জন্য কাছের মনোরম পর্যটন স্পট সাতছড়ি উদ্যান। তাই সুযোগ পেলেই এখানে আসি। কিন্তু এখানের প্রাকৃতিক দৃশ্য অপরূপ হলেও পরিবেশ অনেকটা খারাপ।’

তিনি বলেন- বিষয়টি নিয়ে সব সময় অভিযোগ করে আসলেও কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। এছাড়া এখানে পর্যটকদের খাওয়া দাওয়ারও কোন সু-ব্যবস্থা নেই। নেই নিরাপদ পানির ব্যবস্থাও।

বানিয়াচং উপজেলা থেকে ঘুরতে আসা তরুণ রুবেল দাস বলেন- ‘এখানে নিরাপত্তার অভাব রয়েছে। এছাড়া আমরা যারা তরুণরা রয়েছি তাদের সব চেয়ে বেশি পছন্দ ট্রি এডভ্যাঞ্চার। যেটিতে ছড়ব বলে এসেছিলাম। কিন্তু কর্তৃপক্ষ এটিকে ঝুঁকিপূর্ণ দাবি করে পরিত্যক্ত করে রেখেছে।’

তিনি বলেন- ‘কর্তৃপক্ষের উচিত ছিলো ঈদের পূর্বে এটি মেরামত করা এবং পর্যটকদের নিরাত্তার জন্য পুলিশ মোতায়েন করা।’
মাধবপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাব্বির হাসান আকাশ পরিবার-পরিজন নিয়ে সাতছড়ি উদ্যানে ঘুরতে এসেছেন। তিনি বলেন- ‘এখানে পর্যটকদের কোন নিরাপত্তা নেই। এছাড়া খাওয়া-দাওয়ার কোন সুযোগ-সুবিধা নেই। এমনকি নিরাপদ পানি পর্যন্ত নেই এখানে। যা সত্যি দুঃখজনক।’

সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানের রেঞ্জ কর্মকর্তা মাহমুদ হোসেন বলেন- ‘পর্যটকদের সব ধরণের সুয়োগ-সুবিধার জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা চলছে। এছাড়া দর্শনার্থীদের নিরাপদ পানির জন্য এখানে একটি গভীর নলকূপ বসানো হচ্ছে।’

ট্রি এডভ্যাঞ্চার পরিত্যক্ত রাখার বিষয়ে তিনি বলেন- ‘দীর্ঘদিন ধরে এটি মেরামত না করায় বর্তমানে এটি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। ঈদের আগে টাকা কয়েকদিন বৃষ্টি থাকায় এটি মেরামত করা সম্ভব হয়নি।’

সিলেটভিউ২৪ডটকম/০৭ জুন ২০১৯/কেএস/ডিজেএস

@

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   যুক্তরাষ্ট্রের চালানো অভিযানে ওসামা বিন লাদেনের ছেলে হামজা নিহত: ট্রাম্প
  •   পিযুষের মুক্তির দাবি জানালেন পংকজ দেবনাথ
  •   ১৭ লাখ ৯০ হাজার টাকার জাল নোটসহ রোহিঙ্গা যুবক আটক
  •   রাজশাহীর সারদায় পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী
  •   শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে কাঁচপুর রণক্ষেত্র
  •   ভুল সংশোধনের কথা বলে লিখে নিল ১৩ শতক জমি
  •   রোগ থেকে সেরে ওঠার পর স্বাভাবিক পর্যায়ে ফিরে আসতে করণীয়
  •   কোনও ক্যাডার বাহিনী পোষা যাবে না, নেতাকর্মীদের শেখ হাসিনা
  •   সাজা শেষে ৪১ হাজার অভিবাসীকে ফেরত পাঠালো মালয়েশিয়া
  •   শীঘ্রই আমিরাতের আজমানে বাংলাদেশ স্কুল প্রতিষ্ঠা হচ্ছে
  •   মুসার দায়ের কুপে আহত পুলিশ সদস্য এখন কিছুটা আশংকামুক্ত
  •   শাহজালাল কারাতে ট্রেনিং সেন্টারের শিক্ষার্থীদের সনদ বিতরণ
  •   কুমারগাঁওয়ে রেস্টুরেন্টে বাস শ্রমিকদের হামলা-ভাঙচুর, আহত ১
  •   দুবাইয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় কানাইঘাটের আলতাফ নিহত
  •   পূর্ব ধলাই স্টোন সাপ্লাইয়ার্স ব্যবসায়ী সমিতির কমিটি অনুমোদন
  • সাম্প্রতিক হবিগঞ্জ খবর

  •   মুসার দায়ের কুপে আহত পুলিশ সদস্য এখন কিছুটা আশংকামুক্ত
  •   যেভাবে 'সন্ত্রাস' উপাধি লাভ করেন নবীগঞ্জের ছাত্রলীগ নেতা মুসা
  •   লাখাইয়ে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন
  •   মাধবপুরে মোটরসাইকেলের সিটের নিচ থেকে ফেনসিডিল উদ্ধার
  •   পুলিশের উপর হামলাকারী মুসার ৪ স্বজন আটক
  •   চুনারুঘাটের প্রবীন রাজনীতিবিদ মুসলিম চেয়ারম্যানের ১৩তম মৃত্যু বার্ষিকী আজ
  •   নবীগঞ্জে সাবেক ছাত্রলীগ নেতাকে গ্রেফতার করতে গিয়ে আহত ওসি ও এসআই
  •   নবীগঞ্জের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মনসুর আলী খানের মাতার ইন্তেকাল
  •   মাধবপুরে পুলিশের গাড়ীতে ডাকাতি, মালামাল লুট
  •   মাধবপুরে ডাকাত ‘পিচ্চি’ সুমন গ্রেফতার
  •   মাধবপুরে গাঁজাসহ ২ পাচারকারী গ্রেফতার
  •   হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালের কোয়ার্টারে চুরি
  •   মাধবপুরে নারীসহ কৃষকলীগের যুগ্ম আহবায়ক সাদ্দাম আটক
  •   আজমিরীগঞ্জে সড়ক দূর্ঘটনায় ব্যবসায়ি নিহত
  •   লাখাইয়ে ‘পতাকা উৎসব’