আজ মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০ ইং

মুসার দায়ের কুপে আহত পুলিশ সদস্য এখন কিছুটা আশংকামুক্ত

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৯-০৯-১৫ ০৯:৩১:০৫

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি:: নবীগঞ্জে ছাত্রলীগনেতা সন্ত্রাস  সোহানুর রহমান মুসার দায়ের কুপে আহত নবীগঞ্জ থানার পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) উত্তম কুমার বর্তমানে কিছুটা আশংকামুক্ত রয়েছেন বলে জানিয়েছেন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইকবাল হোসেন

তিনি জানান, উত্তম কুমার এখন কিছুটা আশংকামুক্ত রয়েছেন। তবে তিনি এখন ও সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন ডাক্তার বলেছেন আরও কয়েকদিন তার চিকিৎসার পরে তাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হবে। এরপরে তিনি কিছুদিন বিশ্রামনেওয়ার পরে পুরপুরি সুস্থ হয়ে উঠবেন।

উল্লেখ্য গত বৃহস্পতিবার  ১২ (সেপ্টেম্বর) উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও তালিখা ভুক্ত সন্ত্রাস সোহানুর রহমান মুসার বিরুদ্ধে একটি মামলায় পরোয়ানা থাকায় তাকে গ্রেফতার করতে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ পৌরএলাকার ছালামতপুর গ্রামে তার দোখানে অভিযান চালালে সে পুলিশ দেখে তার দোখান থেকে দাঁড়ালো রামদা দিয়ে পুলিশের উপর হামলা করে সে পালিয়ে যায় । এ সময় নবীগঞ্জ থানার পরিদর্শক উত্তম কুমার ও উপ-পরিদর্শক ফখরুজ্জামান সহ আরও ৩ পুলিশ কর্মকর্তা আহত হন। এ সময় স্থানীয়রা আহত পুলিশ সদস্যদের উদ্ধারকরে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে আশংকা জনক অবস্থা পরিদর্শক উত্তম কুমারকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

পরে একইদিন রাতে পুলিশ মুসার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তার পরিবারে ৪ সদস্য কে আটক করেন। আটককৃতরা হলেন  মুসার মা সামছুন্নাহার (৫০), বোন মৌসুমী আক্তার (২৬), শাম্মী আক্তার (২২) ও তন্নী আক্তার (১৯)। এ সময় মুসার বাড়ী থেকে একটি গাড়ী ও একটি মোটর সাইকেল জব্দ করা হয়।

এর পরে পুলিশ বাধী হয়ে ১৫ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। এর পরে ওই মামলায় তাদের গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করেন । 

ওসি মো. ইকবাল হোসেন জানান, সোহানুর রহমান মুসাকে গ্রেফতার করতে পুলিশের অভিযায় অব্যাহত রয়েছে। তাকে গ্রেফতারে আগে পর্যন্ত এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।            


সি‌লেট‌ভিউ২৪ডটকম/১৫‌ সে‌প্টেম্বর ২০১৯/আমীর হামজা/মিআচৌ
 

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন