আজ সোমবার, ০১ জুন ২০২০ ইং

নবীগঞ্জে শিশুকে নগ্ন করে নির্যাতন, ভিডিও পাঠিয়ে মায়ের কাছে টাকা দাবি

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৯-১১-০৬ ১৫:৪০:২৪

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি :: নবীগঞ্জে শিশুকে নগ্ন করে নির্যাতনের ভিডিও সৌদি প্রবাসী মায়ের কাছে পাঠিয়ে দীর্ঘদিন ধরে মুক্তিপণ আদায় করে আসছে সৎ বাবা। এমন একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হলে সৎ বাবাকে আটক করে পুলিশ।

বুধবার সকালে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ সৎ বাবা স্বপন মিয়াকে আটক করেছে। আটককৃত স্বপন মিয়া উপজেলার চরগাঁও গ্রামের বাসিন্ধা।
 
জানা যায়, উপজেলার চরগাঁও গ্রামের সুফি মিয়ার সাথে প্রায় ৭ বছর আগে বিয়ে হয় নিহত শিশুর মা সুমনা বেগমের। বিয়ের পর তাদের দাম্পত্ত্য জীবনে জিসান মিয়া নামে এক ছেলে সন্তান ছিল। কিন্তু বিয়ের কয়েক বছর পর সুফি মিয়া মারা গেলে তার (সুফি মিয়ার) ভাই স্বপন মিয়ার সাথে পূণরায় বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন সুমনা বেগম। এক পর্যায়ে সংসারের অভাব অনটনের কারণে জীবিকার তাগিদে সৌদিআরব পাড়ি জমান সুমনা বেগম। তিনি সেখানে যাওয়ার কয়েক মাস পর ছেলের উপর অমানুষিক নির্যাতন শুরু করেন স্বপন মিয়া। শুধু তাই নয়, সেই নির্যাতনের ভিডিও ধারণ করে শিশুর মা সুমনা বেগমের কাছে পাঠাত সৎ বাবা স্বপন মিয়া। এ সময় তিনি শিশুর মায়ের কাছে মোটা অংকের টাকা মুক্তিপণ দাবি করতেন। টাকা না দিলে নির্যাতনের মাত্র বাড়িয়ে দেয়া হতো। সন্তারের সুখের কথা চিন্তা করে বারবার টাকা দিয়ে আসছেন তিনি। আর বিষয়টি কাওকে জানালে শিশু জিসানকে মেরে পেলার হুমকিও দেয়া হতো।

সম্প্রতি সেই নির্যাতনের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। ভিডিওতে দেখা যায় শিশু জিসানকে উলঙ্গ করে বিভিন্নভাবে নির্যাতন করা হয়। এমনকি ৬ বছর বয়সি শিশুটিকে মাথা নিচে ও পা উপরে ঝুঁলিয়েও মারপিট করা হয়। ভিডিও ভাইরালের পর স্থানীয় লোকজন শিশুটিকে উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় পুলিশ শিশু সৎ বাবা স্বপন মিয়াকে আটক করেছে। ঘটনার খর পেয়ে পুলিশের উধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ উল্ল্যা বলেন, ‘এ ঘটনায় অভিযুক্ত শিশুর সৎ পিতা দাবিদার স্বপন মিয়াকে আটক করা হয়েছে। বিকেলে সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে বিস্তারিত জানানো হবে।’

সিলেটভিউ২৪ডটকম/০৬ নভেম্বর ২০১৯/কেএস/এসডি

@

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন