আজ বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ইং

আগষ্টে কাতার ফিরতে পারবেন ছুটিতে থাকা নাগরিক

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২০-০৭-২৩ ১৫:২৫:৩৪

শুয়াইব আহমদ, কাতার :: বিশ্বব্যাপী মহামারি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ও সংক্রমণ রোধে দীর্ঘদিন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নাগরিকদের কাতার প্রবেশের উপর  নিষেধাজ্ঞা অবশেষে উঠিয়ে নিয়েছে ২০২২ সালের বিশ্বকাপ ফুটবলের আয়োজক মধ্যপ্রাচ্যের তেলসমৃদ্ধ দেশ কাতার। 

আগষ্টের প্রথম থেকেই কাতারে ফিরতে পারবেন ছুটিতে থাকা দেশটিতে বসবাসকারী বাংলাদেশিসহ
বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নাগরিক।

বুধবার (২২ জুলাই) এক বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে দেশটির সরকারি যোগাযোগ বিভাগ ও জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। তবে সম্পূর্ণ বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করা হবে প্রাথমিকভাবে প্রয়ােজনের ভিত্তিতে ।

কাতার এর চলমান পরিস্থিতির উপর নজর রেখে, ছুটিতে থাকা দেশটির সরকারি এবং আধা-সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে যারা কর্মরত ছিলেন তাদের প্রয়ােজনীয়তা এবং মানবিক কারণ বিবেচনায় যাদের আসা প্রয়ােজন, তাদের বিষয়টি আগে গুরুত্ব দেওয়া হবে। তবে যেসব বাংলাদেশি নাগরিক দেশটিতে কোম্পানির ভিসায় বা ব্যক্তি ভিসায় কর্মরত ছিলেন। বর্তমানে বাংলাদেশে ছুটিতে গিয়ে আটকা পড়েছেন, তাদের জন্য  কাতার ফিরে আসতে চাইলে দুটি শর্ত প্রযােজ্য। প্রথমত - কাতার পাের্টাল থেকে রিটার্ন রেসিডেন্স ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে।
কাতার পাের্টাল লিংক - https://portal.www.gov.qa

দ্বিতীয়ত - ফিরে আসার অনুমতি পেলে এক সপ্তাহ কাতার জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় নির্ধারিত হোটেলে  কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে তবে সেক্ষেত্রে হোটেল এর খরচ নিয়োগদাতা কোম্পানি অথবা যারা ঘরে কাজ করেন তাদের মালিক কে বহন করতে হবে।

উল্লেখ যে বাংলাদেশ থেকে কাতার আসার পূর্বে সরকার ঘোষিত  বাংলাদেশের ১১ টি মেডিকেল সেন্টার থেকে ভ্রমনের ৪৮ ঘন্টা পূর্বের করোনা মুক্ত সার্টিফিকেট নিয়ে কাতারে আসতে হবে।

এদিকে কাতার জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে কাতার ভ্রমণে করোনাভাইরাস সংক্রমিত বিশ্বের কম ঝুকিপূর্ণ ৪০ টি দেশের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছ।

তালিকাভুক্ত দেশগুলোর নাগরিক কাতারে ফিরে আসার পর তাদের হোটেল কোয়ারেন্টিন লাগবে না তবে সেসব দেশের নাগরিকদের কাতার পৌঁছার পর  বিমানবন্দরে করোনা পরিক্ষা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

পরীক্ষায় যাদের করোনা পজিটিভ আসবে তাদের ১০ টি শর্তসাপেক্ষে এক সপ্তাহ হােম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।  এক সপ্তাহ পর পুনরায় তাদের করোনা পরীক্ষা করা হবে এবং পরীক্ষায় যদি নেগেটিভ ফলাফল আসে তবেই তিনি অবাধে চলাফেরা করতে পারবেন আর যদি আবারও পজিটিভ আসে তবে তাকে আইসােলেশন সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হবে।

কাতার ভ্রমণে করোনা কম ঝুঁকিপূর্ণ বিশ্বের ৪০ টি  দেশের তাকিলায় রয়েছে- ভিয়েতনাম, চীন, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, ব্রুনাই, নিউজিল্যান্ড, মালটা, ফিনল্যান্ড, হাঙ্গেরি, বেলজিয়াম, যুক্তরাজ্য, চেক, অস্ট্রিয়া, সুইজারল্যান্ড, আলজেরিয়া, তুরস্ক, কোরিয়া, এস্তোনিয়া, নরওয়ে, লিথুয়ানিয়া, লাতভিয়া, জাপান, সাইপ্রাস, গ্রিস, আয়ারল্যান্ড, ইতালি, স্লোভাকিয়া, ডেনমার্ক, নেদারল্যান্ড, জার্মানি, মরক্কো, পােল্যান্ড, ফ্রান্স, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, স্লোভানিয়া, আইসল্যান্ড, স্পেন, ক্রোয়েশিয়া ও এন্ডােরা।

কাতার সরকারি যোগাযোগ বিভাগ ও জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়- সপরিবারে যাঁরা কাতার থাকেন এবং বর্তমানে করোনার প্রাদুর্ভাবে দেশে আটকা পড়েছেন তারা কাতারে ফেরার পর নিজ খরচে মন্ত্রণালয় নির্ধারিত হোটেলে এক সপ্তাহ কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। এক সপ্তাহ অতিবাহিত হওয়ার পর তাঁদের করোনা পরীক্ষা করা হবে। পরীক্ষায় ফলাফল নেগেটিভ আসলে তবেই তারা নিজ বাসস্থানে যেতে পারবেন এবং বাসায় গিয়ে আরও এক সপ্তাহ হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। আর পজিটিভ হলে তাদের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধানে আইসোলেশন সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে এ-ও জানানো হয়- ৫৫ বছর ঊর্ধ্ব ব্যক্তি, হার্টের সমস্যায় ভুগছেন এমন ব্যক্তি, ক্যানসারে আক্রান্ত চিকিৎসাধীন ব্যক্তি, অন্তঃসত্ত্বা নারী, ৫ বছরের কম বয়সী শিশু, লিভার ও কিডনি রোগে আক্রান্ত ব্যক্তি, প্রতিবন্ধী শিশু ও শিশুর মা, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিসসহ নানা রোগে ভুগছেন এমন অসুস্থ ব্যক্তিদের এক সপ্তাহে হোটেল কোয়ারেন্টিনের পরিবর্তে এক সপ্তাহ হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।


সিলেটভিউ২৪ডটকম/২৩ জুলাই ২০২০/এসএ/এসডি

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন