আজ বুধবার, ২৭ মে ২০২০ ইং

সাবেক ছাত্রনেতা জাকিরকে বিয়ানীবাজার আ.লীগে মুল্যায়ন করা উচিত

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৯-১০-২৪ ০০:৪৪:৩৯

লুৎফুর রহমান :: ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্বের মধ্য দিয়ে আমরা পেয়েছি আমাদের মহান স্বাধীনতা, পেয়েছি লাল সবুজের পতাকা, পেয়েছি বাংলাদেশের মানচিত্র। কিন্তু পিতা হারা ভাই হারা পরিবার আজ ও যখন দেখি স্বাধীন বাংলাদেশে রাজনীতির স্বিকার, আজ ও যখন দেখি সেই ৭১ শকুন রা বাংলার মানচিএের উপরে ঝাপিয়্ পড়ে, আজ যখন দেখি শহিদ সন্তানদের বিরুদ্ধে শত শকুনের দল একসাথে পরামর্শ করে কিভাবে শহিদ তাহির আলী শহিদ নিজাম উদ্দীন, শহিদ আলতাফ হুসেনের ভাইকে রাজনীতি থেকে সরানো যায়।

আজ ও যখন দেখি আমার জাতীর পিতার পতাকাবাহি সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগকে নিয়ে হাজার ও যড়যন্ত্র।

যে মানুষটি হাঁটি হাঁটি পা পা করে বাবার হাত ধরে চলার কথা ছিল সেই সময় তাঁর বাবাকে ৭১ সালে নির্মমভাবে বিয়ানীবাজারের কিছু সংখ্যক রাজাকারের সহায়তায় হত্যা করা হল। বড় ভাইর হাত ধরে স্কুলে যাওয়ার কথা ছিল বড় ভাইকে নির্মম ভাবে বিয়ানীবাজারের কিছু সংখ্যক রাজাকারের সহায়তায় তাঁর বড় ভাইকে হত্যা করা হল।

স্বাধীন পরবর্তী সময়ে শেষ চিহ্ন মুক্তিযোদ্ধা আলতাফ হুসেন, বিয়ানীবাজার তথা সিলেটের রাজাকারের আতঙ্ক যার নাম শুনলে রাজাকার আর বিয়ানীবাজার স্কুল টিলাতে উঠতে সাহস পেত না , সেই মুক্তিযোদ্ধা আলতাফ হুসেনকে রাতের অন্ধকারে রাজাকাররা হত্যা করে।

যে মানুষটি জন্মের পর মায়ের সাদা কাপড় দেখে দেখে মুজিব আদর্শকে লালন করে পিতার হারানোর বেদনা, ভাই হারানোর বেদনাকে বুকে নিয়ে শিক্ষা শান্তির পতাকা তলে মানুযের মুক্তির আন্দোলনে যোগ দিয়েছিলেন, সেই পথ ধরে আজ বয়স পঞ্চাশের কাছাকাছি এসে দাঁড়িয়ে সেই একই আন্দোলনে আবার সেই ৭১ এর রাজাকার সন্তানদের মুখামুখি।

এ লজ্জা রাখি কোথায় এত দুঃখ, এত কষ্ট, এত এত ত্যাগ সব কিছুকে মূল্যায়নের এখনই উপযুক্ত সময়।

জাকির হুসেন ছাত্রলীগের হাজার ও নেতাকর্মী গড়ার কারিগর। দুই বারের কলেজ ছাত্র সংসদের ভি.পি, সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য, বর্তমান বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামিলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। রাজনীতি যার পেশা এবং নেশা।

গ্রাম থেকে গ্রামে যিনি আজ চল্লিশ বৎসর থেকে বিয়ানীবাজার ছাত্রলীগ, যুবলীগ, আওয়ামীলীগের সকল নেতাকর্মীদের সাথে
যোগাযোগসহ তাদের সুখে দুঃখে পাশে থাকেন।

সেই জন্য তিনি বার বার তৃণমূলের কথা বলেন, তৃণমূলের ভোটের কথা বলেন। কিন্তু দুঃখজনক হলে ও সত্য একটি যড়যন্ত্রকারী মহল সব সময় তৃণমুলকে এড়িয়ে চলে। কারন জাকির হুসেন তৃণমূল থেকে উঠে আসা রাজনীতিবিদ। তিনি হঠাৎ রাজনীতিতে আসেন নাই, তাঁর পরিবারের একটা ইতিহাস আছে।

আজ দীর্ঘ সময় আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় থাকার পরও তিনি একজন তৃণমূলের সাবেক ছাত্রনেতা দু’দুবারের কলেজ সংসদের ভি.পি। তারপর আজ পর্যন্ত তাঁর নামে কোন ধরনের টেন্ডারবাজী, চাঁদাবাজী, থানার দালালি এ সবের মধ্যে তাঁর কোন নাম নেই।

জাকির হুসেনের মত নেতাকে এবারে বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামীলীগের কমিটিতে মূল্যায়ন করা উচিত বলে আমি মনে করি। বিয়ানীবাজার আওয়ামীলীগে এ রকম তৃণমূলের সিনিয়র রাজনীতিবীদ আর কেউ আছে বলে আমার মনে হয় না।

অনেকে আছেন কেউ আগে জাসদের রাজনীতি করতেন, কেউ ছাত্র ইউনিয়ন করতেন, কেহ বাকশাল থেকে এসেছেন কিন্তু ছাত্রলীগের তৃণমুলের নেতা একমাত্র শহিদ পরিবারের সন্তান নেতা জাকির হুসেন।

লেখত : লন্ডন প্রবাসী সাবেক ছাত্রনেতা।

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন