আজ রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯ ইং

মি. মান্নান, আমরা বড়ই কনফিউজড

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৯-১১-২৮ ১৭:৫৮:৫৬

বায়ে এম এ মান্নান, ডানে সুজাত মনসুর

সুজাত মনসুর :: কোন ব্যক্তি বিশেষকে নিয়ে এত কনফিউজড আগে কখনো হইনি, কিন্তু এবার হচ্ছি। আর সেই ব্যক্তি হচ্ছেন আমাদের পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। গত কয়েক বছর তাঁর কিছু কৃতকর্মের সমালোচনা করে লিখেছি। কেননা, আমার নিকট মনে হয়েছে তিনি কাজগুলো সঠিক করছেন না। আবার নির্বাচন পরবর্তী একটি টকশোতে একটা গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক বক্তব্য ও তাঁর জীবনবৃত্তান্ত পড়ে আমার চিন্তার জগতে আমূল পরিবর্তন হয়। প্রশংসা করে বিশাল কলাম লিখেছি।

অন্যদিকে, দুর্নীতিবিরোধী অভিযান নিয়েও তাঁর কথাবার্তা মানুষকে আশান্বিত করেছে। মানুষ এটাও বিশ্বাস করে, তিনি একজন সৎ ব্যক্তি। কিন্তু সাম্প্রতিককালে ক্যাসিনোকাণ্ড ও দুদক কর্তৃক দুর্নীতির অভিযোগে যার ব্যাংক হিসাব তলব ও বিদেশ গমনে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে, সেই এমপি রতনের সাথে দহরম-মহরম ও সফরসঙ্গী করা এবং তাকে ছাড়া সুনামগঞ্জ আওয়ামী লীগের নেতাদের সাথে বৈঠকে বসতে অনীহা প্রকাশ মি. মান্নানের কথিত ‌সততার সার্টিফিকেট কলুষিত হয়।

তিনি আসলেই কি এবং সত্যিকার অর্থে কি ধারণ করেন, সেটাই বুঝতে পারছি না। তিনি কি দুর্নীতি দমন করতে চান, নাকি দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেয়ার মাধ্যমে দুর্নীতিকে লালন করতে চান? প্রশ্ন আসতে পারে রতন অভিযুক্ত, দণ্ডিত নন। তা সত্য, কিন্তু সরকারি দলের একজন সাংসদের বিরুদ্ধে কোন প্রমাণ ছাড়া অভিযোগ দায়ের করার মতো দুঃসাহস দুদক দেখাতে পারে না। এছাড়া অভিযুক্ত ব্যক্তির সাথে একজন প্রভাবশালী মন্ত্রীর দহরম-মহরম তদন্ত কাজকে নিশ্চিতভাবেই প্রভাবিত করবে। বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর দুর্নীতির ব্যাপারে জিরো টলারেন্স নীতিরও পরিপন্থী।

আমার মনে হয়, প্রত্যাশার চেয়ে বড় পদ পাওয়াতে মি. মান্নান নিজেই কনফিউজড। আরেকটি বিষয়, তিনি হয়তো এমপিদের সাথে জোট বেঁধে আব্দুস সামাদ আজাদ ও সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের মতো জেলার রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ করতে চাচ্ছেন। কিন্তু হয়তো ভুলে গেছেন রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ করতে চাইলে দীর্ঘজীবনের রাজনৈতিক অভিজ্ঞতার প্রয়োজন হয়। সামাদ আজাদ ও সেনগুপ্তের দীর্ঘজীবনের রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা এবং মাটি ও মানুষের সাথে আত্মিক সম্পর্ক ছিলো। একমাত্র মহিবুর রহমান মানিক ছাড়া তিনি, জয়া সেনগুপ্ত ও রতনের কোন ধরনের রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা এবং মাটি ও মানুষের সাথে সম্পর্ক নেই।

মি. মান্নান আপনার অবস্থান পরিষ্কার করুন, মানুষকে আর কনফিউজড করবেন না। ইতিহাস ক্ষমা করবে না।

*লেখক: যুক্তরাজ্য প্রবাসী লেখক ও রাজনীতিবিদ।

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   সিলেটে রাতের আঁধারে স্মৃতিসৌধের ফুল চুরি
  •   জিন্দাবাজারের ‘রাস্তার রাজা’ হকাররা
  •   ‘সিলেটে অটোরিক্সা শ্রমিকদের শতভাগ বৈধ ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকবে’
  •   জানালা ও লিডিং ইউনিভার্সিটি সোশ্যাল সার্ভিসেস ক্লাবের উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরন
  •   হাতিমনগর ব্লাড ব্যাংক'র পুর্নাঙ্গ কমিটির অনুমোদন
  •   সিলেটে আটাব নির্বাচনে জয়ী হলেন যারা
  •   বিশ্বনাথে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে প্রশাসনের শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পন ও সভা
  •   উষ্ণতার অভিযানে শাবির ‘স্বপ্নোত্থান’
  •   সুনামগঞ্জে পিটিআই বদ্ধভূমিতে পুষ্পস্তবক অর্পন ও মোমবাতি প্রজ্জ্বলন
  •   দেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে: এমপি কয়েস
  •   জগন্নাথপুরে দুই জনপ্রতিনিধির সুস্থতা কামনা
  •   জৈন্তাপুর বিদ্যুৎ সরবরাহ অফিসের স্থান পরিবর্তন
  •   শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবসে সিলেট জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলি
  •   সিলেট মহানগর আ.লীগের বুদ্ধিজীবী দিবস পালন
  •   জগন্নাথপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস পালন
  • সাম্প্রতিক মুক্তমত খবর

  •   চলে যাওয়া মানে সব শেষ নয়...|| মান্না চৌধুরী
  •   মন্ত্রী ইমরান সাহেবের অতি কথন
  •   কলিকালের ‘বড়গাঙ’
  •   নিরহংকার এক রাজনীতিবীদ আজাদুর রহমান আজাদ
  •   বাংলা সাহিত্য ও আমাদের রবীন্দ্রনাথ
  •   সাংবাদিক মনসুর ও কিছু স্মৃতিকথা
  •   পিয়াজের দাম কত হলে মন্ত্রীর পদত্যাগ চাওয়া যায়?
  •   শিক্ষার প্রকারভেদে শিক্ষার্থী, পরিবার ও শিক্ষকের দায়িত্ববোধ
  •   রাঙ্গার নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়া উচিত
  •   মেয়েরাও যৌতুক নেয়!
  •   একজন রেনু এবং তার ৪৬ বছরের রাজনৈতিক বর্নাঢ্য ক্যারিয়ার
  •   মাস্টার ও শিক্ষক শব্দের ব্যবচ্ছেদ
  •   কৃষির অগ্রযাত্রার সারথী সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়
  •   স্মৃতিতে ধীরেশ স্যার
  •   প্রাইমারি শিক্ষক বাবা এবং আমার শৈশবের স্মৃতিচারণ