আজ সোমবার, ০১ জুন ২০২০ ইং

ফেইসবুক ভিত্তিক ত্রান সহায়তা গোয়াইনঘাটের জন্যে আর্শীবাদ না অন্তরায়?

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২০-০৪-০৪ ০০:৫২:৪০

এম এ মতিন, গোয়াইনঘাট :: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, ফেইসবুক ভিত্তিক ত্রান সহয়তা, গোয়াইনঘাট বাসীর জন্যে কতটুকু আর্শীবাদ।

সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্টানসহ প্রতিটি প্রতিষ্টানের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের দীর্ঘদিন ধরে ছুটি থাকায় গ্রাম গঞ্জে নিম্ন আয় ও শ্রমজীবী মানুষের দুঃখ,দুর্দশা ও দুর্ভোগ ক্রমশই বৃদ্ধি পাচ্ছে।প্রায় চার লক্ষাধিক জনগোষ্ঠীর আবাস্থল গোয়াইনঘাট উপজেলা।এই উপজেলার অধিকাংশ মানুষইই দিন আনে দিন খায়।করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ মহামারীরর প্রকোপে গ্রাম বাংলার মানুষের মধ্যে চরম উদ্বেগ ও হতাশা বিরাজ করছে।এ ভাইরাসের প্রকোপ যতই বাড়ছে ততই অসহায় নিরীহ দরিদ্র মানুষের দীর্ঘশ্বাস প্রকট হচ্ছে।মৃত্যুর ভয়ে হোম কোয়ারেন্টাইনে আর ক্ষুধার জ্বালায় বাইরে আসা,এই দুইয়ের যন্ত্রনায় জনজীবন অতীষ্ট হয়ে উঠেছে।ইদানিং কিছু সামাজিক সেচ্ছাসেবী সংগঠন নিজ উদোগ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরন করলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি বিতরনির ছবি বারংবার প্রচার করায় অন্যান্য সাহায্যকারী লোকেরা মনে করে, এই এলাকায় অধিক হারে সাহায্য পাচ্ছেন।

ফলে তারা অন্য এলাকার দিকে ফিরে যাচ্ছেন, আর এতে বঞ্চিত হচ্ছেন এলাকার শ্রমজীবী নিম্নমানের হাজার হাজার কর্মহীন মানুষ। তাই, সাহায্য সামগ্রীর পরিমাণ বৃদ্ধি করে প্রচারের পরিমাণ কমানো হলে অত্র এলাকার জন্য মঙ্গল হবে বলে আশা করেন সচেতন এলাকাবাসী।

সরকারি খাদ্যসামগ্রী স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসননের সম্বনয়ে বিতরন করা হলেও প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল।বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ গোয়াইনঘাট শাখা থেকে দরিদ্র লোকের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরনের সিদ্ধান্ত গ্রহন করেছেন।পাশাপাশি গোয়াইনঘাট উপজেলা বিএনপির তত্ত্বাবধানে স্ব স্ব ইউনিয়নে বিএনপির উদোগ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে গোয়াইনঘাট উপজেলা বিএনপির দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

এমতাবস্থায় জরুরী ভিত্তিতে সরকারের সাহায্য সামগ্রী বৃদ্ধি করে আর্তমানবতার কল্যাণে সমাজের বিত্তশালীরা এগিয়ে না আসলে মানবিক বিপর্যয়ের আশঙ্কা করছেন এলাকার বিজ্ঞজনেরা।

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন