আজ মঙ্গলবার, ০৪ অগাস্ট ২০২০ ইং

ফেঞ্চুগঞ্জ সরকারি কলেজের গৌরবের ৫০ বছর

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২০-০৭-০১ ০১:২০:২৯

অসীম কুমার তালুকদার :: আজ ১লা জুলাই ২০২০ খ্রিস্টাব্দ। আজ থেকে ঠিক ৫০ বছর আগে সিলেট জেলার ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা ও তৎপার্শ্ববর্তী এলাকার জনসাধারণের ঐকান্তিক ইচ্ছা ও চেষ্টায় ফেঞ্চুগঞ্জ সরকারি কলেজ ১লা জুলাই, ১৯৭০ খ্রি. থেকে উচ্চমাধ্যমিক কলেজ হিসেবে যাত্রা শুরু করে। সময়ের চাহিদাকে বিবেচনায় রেখে এলাকার উচ্চ শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে ১৯৭৩ খ্রি. ১লা জুলাই হতে কলেজটি চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্তি একটি পূর্ণাঙ্গ ডিগ্রি কলেজের উন্নতি হয়। তখন থেকেই ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার একমাত্র উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে এই কলেজ এক বিশাল এলাকার শিক্ষা ও সংস্কৃতির প্রাণকেন্দ্রে পরিণত হয়েছে।

এরপর থেকে আর কলেজটিকে আর ফিরে থাকাতে হয়নি। সিলেট -৩ আসনের মানানীয় সংসদ সদস্য জনাব মাহমুদ-উস-সামাদ চৌধুরী ২০০৯ সালে কলেজ পরিচালনা পরিষদের সভাপতি হওয়ার পর থেকে কলেজটির রঙ যেন আরও উজ্জ্বল হতে লাগল। শিক্ষকস্বল্পতা দূরীকরণ সহ ব্যপক উন্নয়ন সাধন হয়েছে মননীয় সাংসদের প্রচেষ্টায়। শিক্ষাবান্ধব সভাপতির প্রচেষ্টায় ২০১৩-২০১৪ শিক্ষা বর্ষ হতে কলেজটিতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে চার বছর মেয়াদী স্নাতক( সম্মান) কোর্স চালু হয় এবং বর্তমানের ৪টি বিষয়ে স্নাতক (সম্মান) কোর্স চালু আছে। কলেজটি সরকারিকরণের জিও জারী হওয়ার পূর্ব পর্যন্ত মাননীয় সংসদ সদস্য কলেজ পরিচালনার সভাপতির দ্বায়ীত্ব পলন করেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর সুযোগ্য কন্যা, বৈষম্যহীন শিক্ষা ব্যবস্থার অগ্রপথিক, ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপকার, মানবতার মহানেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাপূর্বের মেয়াদে থাকাকালীন সরকারি কলেজ বিহীন উপজেলাসমূহে ১টি করে কলেজ সরকারিকরণের সিদ্ধান্ত নেন এবং ৩০/০৬/২০১৬ খ্রি. তারিখে কলেজটি সরকারিকরণের জন্য তালিকাভুক্ত করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় ০৮/০৮/২০১৮ খ্রি. তারিখে কলেজটি সরকারিকরণ করে জিও প্রকাশ করা হয়।

চা বাগান আর বৃক্ষরাজি শোভিত পাহাড়ী টিলায় অতি মনোরম পরিবেশে অবস্থিত এই কলেজটি বর্তমানে শিক্ষক-কর্মচারী ৪০ জন এবং শিক্ষার্থী সংখ্যা প্রায় ২৫০০ জন। শিক্ষা ও সংস্কৃতির বিকাশে কলেজটি ইতোমধ্যে স্বকীয় ঐতিহ্যের ধারা সৃষ্টি করেছে।

লেখক: প্রভাষক, ইংরেজি বিভাগ, ফেঞ্চুগঞ্জ সরকারি কলেজ, সিলেট।

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন