আজ মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ইং

মাংস খাওয়া নিয়ে চিকিৎসকের ৬ পরামর্শ

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২০-০৭-২৭ ১২:৫৭:৪৬

মো. আবদুল হাফিজ শাফী  :: কোরবানির ঈদের আর মাত্র কয়েক দিন দিন বাকি। এই ঈদে সবার ঘরেই কমবেশি মাংস থাকে।

এ সময় ভুনা খিচুড়ি-মাংস, কালিয়া, রেজালা, কাবাবসহ নানা মুখরোচক ও তৈলাক্ত খাদ্য বেশি খাওয়া হয়। তবে মুখরোচক খাবার বেশি খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য মোটেও ভালো নয়, যা থেকে হতে পারে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা ও পেটের অসুক।

সুস্থ থাকতে এ সময় স্বাস্থ্যের দিক নজর দেয়া জরুরি।
ঈদে নিয়ম মেনে খেতে হবে গরু ও খাসির মাংস।

আসুন জেনে নিই এ সময় সুস্থ থাকতে কী করবেন-

১. বিশেষ করে যারা হার্টের রোগী বা রক্তে কোলেস্টেরলের পরিমাণ বেশি, তাদের গরুর বা খাসির মাংস অল্প পরিমাণে খাওয়া উচিত।

২. যাদের মেদ ভুঁড়ি আছে ও ওজন বেশি, তারা পরিমাণে কম মাংস খাবেন। কারণ অতিরিক্ত খাওয়ার ফলে হার্টের সমস্যা হতে পারে।

৩. বয়স্কদের মাংস গিলতে এবং হজমে অনেক সময় অসুবিধা হতে পারে। আর দাঁতের সমস্যা থাকলে মাংসের টুকরা গলায় আটকে যেতে পারে। তাই পরিবারে বয়োজ্যেষ্ঠ থাকলে তাদের জন্য মাংসের টুকরা ছোট ছোট করে রান্না করুন।

৪. এ সময়ে পেটের সমস্যা ও ডায়েরিয়া হতে পারে। তাই ওরস্যালাইন ঘরে রাখুন। আর যদি পাতলা পায়খানার পরিমাণ বেশি হয়, তবে ডাক্তারের পরামর্শ নিন। আর গ্যাস্ট্রিক এসিডিটি সমস্যায় বুক জ্বালা, পেটব্যথা, বমি বমি ভাব, টক ঢেকুরের সমস্যা হতে পারে। গ্যাস্ট্রিক এসিডিটির সমস্যার জন্য কিছু এন্টাসিড ট্যাবলেট ঘরে রাখতে পারেন।

৫. মাংস রান্নার জন্য সিদ্ধ করে পানি ঝরিয়ে বা চর্বি ফেলে দিয়ে রান্না করা স্বাস্থ্যকর।

৬. করোনার এ সময়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

লেখক :

ডা. মো. আবদুল হাফিজ শাফী
বিসিএস (স্বাস্থ্য)
নাক-কান-গলা বিভাগ
বিএসএমএমইউ (প্রেষণে), ঢাকা।

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন