আজ শনিবার, ১০ এপ্রিল ২০২১ ইং

সড়কে মৃত্যুর দীর্ঘ মিছিল দেখতে চাইনা

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২১-০২-২৭ ০০:৫৪:৫৯

আলী ফজল মোহাম্মদ কাওছার :: আমরা সাধারণ জনগণ। যারা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন প্রয়োজনে যাওয়া জন্য বিভিন্ন যানবাহনে ব্যবহার করি। তাদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে রেল,বাস,ট্রাক,মিনিবাস,কার,অটোরিকশা ইত্যাদি। অনেক সময় সড়কে যাতায়াত করার সময় বিভিন্ন দুর্ঘটনায় স্বীকার হতে হয় আমাদের। অনেক সময় সড়ক দুর্ঘটনায় বিভিন্ন মানুষের প্রাণহানীর ঘটনা ঘটে। অনেক সময় সড়ক দুর্ঘটনার স্বীকার হয়ে অনেক যাত্রীকে চিরতরে পঙ্গুত্ব বরণ করতে হয়। দিনে দিনে সড়কে মৃত্যুর মিছিল দীর্ঘ হচ্ছে কিংবা অনেকে বিভিন্ন দুর্ঘটনায় পঙ্গুত্ব বরণ করে সারাজীবন দুর্বিষহ জীবন কাঠাচ্ছে।

সড়কে বিভিন্ন দুর্ঘটনার জন্য মানুষের মনে আতংকের সৃষ্টি হয়েছে। অনেক মানুষ সড়কে যাতায়াত করতে এখন ভয় পায়। তাইতো তারা বিভিন্ন সময় যাতায়াত করতে গিয়ে আকাশ পথের ব্যবহার করে। এর ফলে আর্থিকভাবে ক্ষতি হয়। কারণ সড়ক পথে যাতায়াতের চেয়ে আকাশ পথে যাতায়াতের খরচ বেশী। আমাদের দেশে বিভিন্ন কারণে সড়ক দুর্ঘটনা সংগঠিত হয়। এর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে সড়কে চালকদের বেপরোয়া গাড়ী চালানোকে কেন্দ্র করে। অনেক সময় অনেক চালক গাড়ী চালাতে গিয়ে প্রতিযোগিতা করে কার সামনে কে যাবে এনিয়ে প্রতিযোগিতা করতে গিয়ে বিভিন্ন দুর্ঘটনা ঘটে। এছাড়া বিভিন্ন গাড়ীতে বিশেষ করে বিভিন্ন ট্রাক চালকদের নেশা করে গাড়ী চালাতে গিয়ে বিভিন্ন দুর্ঘটনা ঘটে। অনেক সময় বিভিন্ন বাজারে কিংবা সড়কে নির্দিষ্ট স্থানে গাড়ী পার্কিং না করার কারণে বিভিন্ন দুর্ঘটনা ঘটে। বিভিন্ন সময় দূর দুরান্তে গাড়ী নিয়ে যাতায়াত করার সময় চালকদের বিশ্রামের সুযোগ না থাকার কারণে বিভিন্ন দুর্ঘটনা ঘটে। অনেক চালকের গাড়ী চালানোর দক্ষতা না থাকার কারণে সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। অনেক চালক বিভিন্ন সময় তাদের সহকারীদের দিয়ে গাড়ী চালায়।

চালকের সহকারীর গাড়ী চালানোর অভিজ্ঞতা কিংবা যথাযথ প্রশিক্ষণ না থাকার কারণে বিভিন্ন দুর্ঘটনা ঘটে। রাস্তাঘাটে অপরিকল্পিতভাবে বিভিন্ন জিনিস রাখার কারণে বিভিন্ন ধরণের দুর্ঘটনা ঘটে, কারণ এতে রাস্তার জায়গা কমে যায়। অনেক সময় গাড়ী চালানোর সময় চালক মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন। এর ফলে বিভিন্ন দুর্ঘটনা ঘটে। ট্রাফিক আইন মেনে না চলার জন্য বিভিন্ন দুর্ঘটনা ঘটে।

এর কি কোন সমাধান নেই?

গাড়ী চালকদের যথাযথ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে। গাড়ী চালানোর সময় চালকদের নেশাজাত দ্রব্য ব্যবহার বন্ধ করতে হবে। মোবাইল ব্যবহার বন্ধ করতে হবে। রাস্তাঘাটে বিভিন্ন জায়গায় জিনিস পত্র রাখা বন্ধ করতে হবে। রাস্তা কিংবা রাস্তায় নির্দিষ্ট স্থান ছাড়া গাড়ী পার্কিং বন্ধ রাখতে হবে। গাড়ী চালকদের দূর দুরান্তে যাতায়াতের পুর্বে পরিপূর্ণ বিশ্রাম নিতে হবে। প্রয়োজনে দুই-তিন জন চালক নিয়ে দূর দুরান্তে যাতায়াত করা যেতে পারে। ট্রাফিক আইন মেনে গাড়ী চালাতে হবে।

এর জন্য প্রয়োজনে এই বিষয়ে লেখা-পড়া করতে হবে। গাড়ী চালানোর সময় প্রতিযোগিতা বন্ধ করতে হবে। গাড়ী চালকদের এই কথা মাথায় রাখতে হবে তাদের গাড়ীতে আরো অনেক সাধারণ যাত্রী রয়েছে। নিজেদের সামান্য ভুলের জন্য যেন কোন প্রাণ ঝরে না যায় কিংবা কাউকে চিরজীবনের জন্য পঙ্গুত্ব বরণ করতে না হয়। আমরা আর সড়কে মৃত্যুর দীর্ঘ মিছিল দেখতে চাইনা। কিংবা সড়কে মৃত্যুর মিছিলে নিজেকে সামিল করতে চাইনা।


শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন