আজ মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০ ইং

সুনামগঞ্জে ভাতার জন্যে দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৯-০৫-১৩ ২১:১৫:১৪

মুক্তিযোদ্ধা মৃত মো. বদর উদ্দিন

শহীদনুর আহমেদ, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পূর্ব বীরগাঁও ইউনিয়নের বীরগাঁও  গ্রামের বাসিন্দা শামীম আহমেদ। বাবা মৃত মো. বদর উদ্দিন ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের বীর সেনানী। তিনি ৫ নম্বর সেলা সাব-সেক্টরের ক্যাপ্টেন হেলালের অধীন সাধারণ মুক্তিযোদ্ধা এফএফ হিসেবে মুক্তিযুদ্ধের রণাঙ্গনে অংশগ্রহণ করেন। মুক্তিযুদ্ধের স্বীকৃতিস্বরূপ কর্ণেল আতাউল গনী ওসমানী কর্তৃক স্বাধীনতা সংগ্রামের সনদ গ্রহণ, ভারতে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকায় নাম উঠে আসাসহ মুক্তিবার্তায় বদর উদ্দিনের নাম অর্ন্তভুক্তি হলেও উপজেলা পর্যায়ে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাইয়ে অংশ না নেয়ায় মুক্তিযোদ্ধা গ্রেজেটভুক্ত হতে পারেননি তিনি। ফলে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতির আক্ষেপ নিয়ে মৃত্যুবরণ করতে হয় তাঁকে। তাই সরকার কর্তৃক মুক্তিযোদ্ধাদের সকল সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত রয়েছেন বদর উদ্দিনের পরিবার। বাবা বরদউদ্দিনের মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি ও ভাতা প্রাপ্তির জন্যে উপজেলা  মুক্তিযোদ্ধা কমেপ্লক্স, উপজেলা নির্বাহী  অফিসারের অফিস, উপজেলা সমাজ সেবা, জেলা প্রশাসক কার্যালয় থেকে মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রনালয়েও যেতে হয়েছে ছেলে শামীম আহমদকে। কোথাও কোনো আশ্বাস না পাওয়ায় হতাশাগ্রস্ত হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করতে হচ্ছে অসহায় মুক্তিযোদ্ধার পরিবারটি।

জানা যায়, বাবার নাম গেজেটে প্রবেশের জন্য ২০১৪ সালে অনলাইনে আবেদন করেন শামীম আহমদ। ২০১৮ সালের ১০ আগস্ট মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রনালয় বিষয়টি উপজেলা যাচাই বাছাই কমিটি কি মতামত দিয়েছে জানতে পারার জন্যে নির্দেশনা দেয় সংশ্লিদের। চলতি বছরের  ১৭ ফেব্রæয়ারি দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা নির্বার্হী বরাবরে ভাতাপ্রাপ্তির জন্য আবেদন করেন শামীম। শামীমের আবেদনের প্রেক্ষিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সফি উল্লাহ আবেদনটি পর্যালোচনা করে প্রতিবেদন জমা দিতে সমাজ সেবা অফিসারকে নির্দেশনা দেন। ১৪ই মার্চ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে  প্রতিবেদন দাখিল করেন সমাজসেবা অফিসার। এই প্রতিবেদনে  দাখিলকৃত আবেদন পত্রের সাথে সংযোক্ত কাগজ পত্রে ৪টি বিবেচ্য বিষয় অনুপস্থিত থাকায় প্রতিবেদনের আলোকে মুক্তিযোদ্ধা সম্মানী ভাতা পাওয়ার ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ে আবেদনের জন্য মুক্তিযোদ্ধা পুত্র শামীমকে নির্দেশনা দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সফি উল্লাহ। পরবর্তিতে ভাতা প্রাপ্তির জন্যে মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রনালয়ে আবেদন করেন শামীম।

মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রনালয় থেকে শামীমকে বলা হয় মুক্তিযোদ্ধা বদর উদ্দিনের ভাতাপ্রাপ্তির বিষয় সম্পর্কে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে নোটিশ পাঠানো হবে। এই নোটিশের অপেক্ষায় দিনগুনতে হচ্ছে শামীমকে। বিধবা মা শামেনা বেগম , তিন ভাই ও দুই বোন, স্ত্রী সন্তান নিয়ে কোনোভাবে দিনাতিপাত করতে হয় শামীমকে। গ্রামের বাজারে টুকটাক স্বর্ণালঙ্কারে কাজ করে চলছে শামীমদের পরিবার। সরকার মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের জন্য অনেক সুযোগ সুবিধা প্রদান করলেও বাবা বদর উদ্দিনের মুক্তিযোদ্ধা স্বীকৃতি না পাওয়ায় এসব কিছু থেকে বঞ্চিত রয়েছে শামীমের পরিবার। তাই বাবা বদর উদ্দিনের নাম মুক্তিযোদ্ধা গেজেটভুক্ত করতে সংশ্লিষ্টদের কাজ অনুরোধ জানিয়েছে শামীম এর পরিবার।

মুক্তিযোদ্ধা পুত্র শামীম বলেন, আমার বাবা মুক্তিযুদ্ধের সময় সেলা ৫ নম্বর সাবসেক্টর ক্যাপ্টেন হেলালের অধীনস্ত কোম্পানী কমান্ডার সুবেদার খুরশেদ ও পরবর্তিতে শহীদ চৌধুরীর অধীনে বিভিন্ন যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। মুক্তিযুদ্ধের স্বীকৃতি স্বরূপ কর্ণেল উসমানীর কাছ থেকে মুক্তিযোদ্ধা সনদ লাভ করেন। স্বাধীনতার পরবর্তি সময়ে মুক্তিবার্তায়ও বাবার নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয়। বাবার নামে মুক্তিযোদ্ধা অধিদপ্তর থেকে দেয়া পরিচয় পত্র আমাদের কাছে আছে। মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাইয়ের সময় বাবা এলাকায় না থাকায় গেজেটে অন্তভুক্ত হতে পারেননি। গেজেটে অন্তর্ভুক্তির জন্যে ২০১৪ সালে অনলাইনে আবেদন করি। এখনও পর্যন্ত কোনো সুরাহা হয়নি। মুক্তিযোদ্ধা ভাতাপ্রাপ্তির জন্যে ইউওনও অফিস থেকে শুরু করে মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রনালয় পর্যন্ত গিয়েছে । কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে। সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের জন্যে অনেক সুযোগ সুবিধা দিলেও আমরা এসব থেকে বঞ্চিত আছি। পরিবার পরিজন নিয়ে খুব মানবেতর জীবন জাপন করছি।

এ ব্যাপারে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সভাপতি উপজেলা নির্বাহী  অফিসার মো.সফিউল্লাহ বলেন, গেজেটে অন্তর্ভুক্তির জন্যে  উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাই করা হলে বদর উদ্দিন কোনো আবেদন করেননি। মৃত বদর উদ্দিনের ছেলে ভাতাপ্রাপ্তির জন্যে আবেদন করেছেন। বদর উদ্দিনের নাম গেজেটভুক্ত না হওয়ায় মুক্তিযোদ্ধা সংসদের এ ব্যাপারে কিছু করার নেই। তবে আগামীতে যদি মুক্তিযোদ্ধাদের হালনাগাদ হয় তখন বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখা হবে।

সিলেটভিউ২৪ডটকম/ ১৩ মে ২০১৯/এসএনএ/পিডি

@

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন