আজ শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

কয়লা গেল কই, তদন্তের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৮-০৭-২৩ ১৯:২৬:৫৪

সিলেটভিউ ডেস্ক :: দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের প্রায় সোয়া লাখ টন কয়লা কোথায় গেল তার ‘পূর্ণ তদন্ত’ করতে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন।

কয়লা উধাও হয়ে যাওয়ার ঘটনায় দুর্নীতি দমন কমিশন অনুসন্ধানের ঘোষণা দেওয়ার পর সোমবার বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও থনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার কথা সাংবাদিকদের জানান।

কয়লা উধাওয়ের ঘটনায় মামলা করার জন্যও ইতোমধ্যে পেট্রোবাংলাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী।

কয়লা সরবরাহ না পাওয়ায় বড়পুকুরিয়া কয়লাভিত্তিক তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের উৎপাদন রোববার রাতে বন্ধ হয়ে গেছে।

ক্ষমতার অপব্যবহার, জালিয়াতি, বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে ১ লাখ ১৬ হাজার টন কয়লা খোলা বাজারে বিক্রি করে আনুমানিক ২০০ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে বড় পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাবীব উদ্দিন আহমদ ও অন্যদের বিরুদ্ধে।

এনিয়ে  আলোচনার মধ্যে সোমবার ঢাকার ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জাতীয় পাবলিক সার্ভিস দিবস উদযাপন ও জনপ্রশাসন পদক বিতরণ অনুষ্ঠান শেষে প্রধানমন্ত্রী সচিবালয়ে তার কার্যালয়ে যান। সেখানে জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী, সংশ্লিষ্ট সচিব, পিডিবি ও পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্টদের নিয়ে বৈঠকে করেন তিনি।

বৈঠকের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নে নসরুল হামিদ বলেন, “উনি (প্রধানমন্ত্রী) পূর্ণ তদন্ত করতে বলেছেন।

“কারণ ঘটনাটা হয়ে আসছে প্রায় ২০০৫ সাল থেকে। আমরা পুরোটা কাজে নেমেছি।

“মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এ বিষয়টাই বলেছেন যে, সকলকে জানান দেওয়া। সকলকে আগে থেকে প্রস্তুতি নেওয়া, সকলে যেন ধৈর্য ধরে,” বলেন নসরুল। 

প্রধানমন্ত্রী কি এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ- এক সাংবাদিকের প্রশ্নে তিনি বলেন, “অবশ্যই, উনি তো আমার মন্ত্রী, এই বিভাগের মন্ত্রী।”

প্রতিমন্ত্রীর আগে পিডিবির চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ বিদ্যুৎ ভবনে সাংবাদিকদের বলেন, “মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, মানুষের যেন ভোগান্তি কম হয় সেদিকে নজর রাখতে হবে।”

খনির কোল ইয়ার্ড থেকে কয়লা উধাও হয়ে যাওয়ার ঘটনায় বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির শীর্ষ পাঁচ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে ব্যবস্থা নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। কয়লা নিয়ে দুর্নীতির খবর অনুসন্ধানের জন্য তিন সদস্যের একটি কমিটি করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

প্রতিমন্ত্রী কয়লা খনির কর্মকর্তাদের দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলেছেন।

তিনি বলেন, “দুমাস আগে থেকেই বিদ্যুৎ বিভাগ থেকে বলা হচ্ছিল যে, আমাদের কয়লার সঙ্কট চলছে। কিন্তু ওখানকার যে প্রধান প্রকৌশলী তিনি বলছিলেন, না কোনো সঙ্কট নেই। তখন বিদ্যুৎ বিভাগ থেকে তদন্ত দল পাঠানোর পর তথ্যটা উদঘাটন হল।”

কয়লার এই অবস্থা জানাজানির পর বৃহস্পতিবার রাতে এক অফিস আদেশে খনির মহাব্যবস্থাপক (মাইন অপারেশন) নুরুজ্জামান চৌধুরী ও উপ-মহাব্যবস্থাপক (স্টোর) খালেদুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করে।

ওই রাতেই খনির শীর্ষ কর্মকর্তা ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাবিব উদ্দিন আহমদকে অপসারণ করে পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যানের দপ্তরে সংযুক্ত করা হয়। আর মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন ও কোম্পানি সচিব) আবুল কাশেম প্রধানিয়াকে পশ্চিমাঞ্চল গ্যাস কোম্পানি লিমিটেড সিরাজগঞ্জে তাৎক্ষণিক বদলি করা হয়।

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্ব পেয়েছেন পেট্রোবাংলার পরিচালক আইয়ুব খান। ঢাকা থেকে গিয়ে এরইমধ্যে দায়িত্ব নিয়েছেন তিনি।

এদিকে ঘটনা তদন্তে পেট্রোবাংলার পরিচালক কামরুজ্জামানকে প্রধান করে শুক্রবার তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এ তদন্ত প্রতিবেদন মঙ্গলবারের মধ্যে পাওয়া যাবে বলে জানিয়ে নসরুল হামিদ বলেন, “তদন্ত প্রতিবেদনে জানতে চাচ্ছি, কয়লার অস্তিত্বটা কোথায়?”

দোষীদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া হবে- জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, “ইতোমধ্যেই তারা ব্যবস্থা নিচ্ছে কেইস করার জন্য। তদন্ত চলবে। শাস্তি পাবে।

“এটা তো একদিনে হয়নি। এটা বহুদিনের ব্যাপার। অনেকে বলছেন, ২০০৫ সাল থেকে। পেছনের দিকে যেসকল ব্যক্তি আছেন আমরা তাদেরকেও তদন্ত করে দেখতে চায়। তাদের সময়কার অবস্থাটা কী ছিল?”

পেট্রোবাংলার তদারকিতে কোনো সমস্যা ছিল কি না- জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, “আমি বলব, অবশ্যই সমস্যা ছিল। পেট্রোবাংলার অধীনের কোম্পানি। ওভারঅল তার মনিটিরংতো থাকতেই হবে।

৫২৫ মেগাওয়াট ক্ষমতার বড়পুকুরিয়া কেন্দ্রে উৎপাদন বন্ধ থাকায় রংপুর বিভাগের আট জেলা বিদ্যুৎ সঙ্কটে পড়ায় বিকল্প পথ খুঁজছে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড।

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী জানান, উত্তরাঞ্চলে বৃহত্তর রংপুর ও রংপুর সদর অঞ্চলে বিদ্যুতের অবস্থা ‘স্বাভাবিক’ হতে আরো মাসখানেক সময় লাগবে।

শিফট পরিবর্তন করে অগাস্টের শেষে নতুন করে কয়লা উত্তোলন শুরু হলে তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র পুনরায় চালু হবে বলে জানান তিনি।

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   গোলাপগঞ্জ জাসাসের সভাপতিকে গ্রেফতারে ফয়সল চৌধুরীর নিন্দা
  •   ২০১৮ সালে গুগলে কাকে বেশি খুঁজেছেন বাংলাদেশিরা?
  •   চুরি করতে যেয়ে 'অদ্ভুত' বিপদে চোর, ঠাই হলো হাসপাতালে!
  •   গুগলে ভারতীয়রা বেশি খুঁজেছে যাদের
  •   ‘বাংলাদেশে বিয়ের পর প্রতিদিনই আমাকে ধর্ষণ করা হতো’
  •   রাখাইন ভাষায় ছাপানো নির্বাচনী পোস্টার ভাইরাল
  •   ব্রিটেনে ইনভেস্টর ভিসা স্থগিত
  •   খাসদবিরে সন্ধ্যা রাতে ডাকাতি
  •   নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিতে সিলেট ফিরছেন প্রবাসীরা
  •   ভোটারের কথা:‘বিফদে-আফদে যারে ফাইমু, তারেউ ভোট দিমু’
  •   বালাগঞ্জের নূরানিয়া মাদরাসার ১৬তম বার্ষিক জলসা সম্পন্ন
  •   বালাগঞ্জে জেলা পরিষদ সদস্যের উদ্যোগে নৌকা মার্কার সমর্থনে সভা
  •   সিকৃবিতে শোকর‌্যালি ও আলোক প্রজ্জ্বলন অনুষ্ঠিত
  •   ড. মোমেনের সমর্থনে ১৪নং ওয়ার্ড আ.লীগের মতবিনিময় সভা
  •   সন্ধানী ওসমানী মেডিকেল কলেজের উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠিত
  • সাম্প্রতিক অর্থনীতি খবর

  •   নৌসম্পদকে কেন্দ্র করে এগিয়ে যাচ্ছে দেশের জাহাজ নির্মাণ শিল্প
  •   বাধ্য হয়ে নতুন ব্যাংকের অনুমতি দিয়েছি
  •   চামড়া শিল্পের বিষ্ময়কর উন্নয়নে সরকারের অবদান
  •   মানব উন্নয়ন সূচকে ভারত ও পাকিস্তানকে ছাড়িয়েছে বাংলাদেশ
  •   একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প
  •   বাংলাদেশের ক্রমবর্ধমান রপ্তানিখাত ‘সিরামিক শিল্প’
  •   দুর্নীতি অনিয়মে ধ্বংস হচ্ছে ব্যাংকিং খাত
  •   চীন থেকে ৯৭ শতাংশ পণ্যের শুল্ক সুবিধা পাচ্ছে বাংলাদেশ
  •   কুরবানির হাটে যেভাবে চিনবেন জাল নোট?
  •   পূবালী ব্যাংক সিলেট শাখায় বিদায় সংবর্ধনা
  •   আবারও কমলো স্বর্ণের দাম
  •   ভোটের বছরের বাজেট পাস
  •   ইসলামী বন্ড চালু করছে সরকার: দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগে নতুন সম্ভাবনা
  •   বাজেটে মধ্যবিত্তের ওপর করের বোঝা চাপানো হয়েছে: সিপিডি
  •   পুঁজিবাজারে স্বস্তিতে বিনিয়োগকারীরা