আজ রবিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ ইং

ব‌হে তৃ‌প্তিধারা, জীবনের উঠোনময়

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৮-০৬-২৮ ১৪:৫১:৪২

লেখক

মুন‌জের অাহমদ চৌধুরী :: ভূলের কারনে যা হারায় সেট‌া কখ‌নো অাস‌লে ছিলই না তোমার।পথ হারা‌তে পা‌রে, কিন্তু গন্তব্য হা‌রি‌য়ে যাব‌ার নয়। অার ভালবাসা কোন অ‌র্থেই হা‌রি‌য়ে ফেলবার বা জোড়া লাগাবার কোন জি‌নিস নয়।

তৃ‌প্তি অার অান‌ন্দের ম‌ধ্যে পার্থক্য‌ রেখাটা পড়‌তে পারা মান‌ু‌ষের জন্য পৃ‌থিবীটা ক‌ঠিন, ত‌বে অ‌-জেয় নয়। চো‌খের দেখা দৃশ্যও কখ‌নো অসত্য হয়।

অাবার, প্রবল সকল সুন্দ‌রেই মি‌থ্যে থা‌কে। সত্য ও সুন্দর একসা‌থে বলা সহজ হ‌লেও সত্য অার সুন্দ‌রে একসা‌থে হ‌লে সংঘাত অা‌সে। অসুন্দর সেখানে অাঘাত হা‌নেই। অাবার অসুন্দ‌রের ঝড়ে সম্প‌র্কের টি‌কে থাকবার যে অনুভূ‌তি,‌ সেটাই  ভালবাসা।

জীবন কখ‌নো অামা‌দের অান‌ন্দের অধ্যায় খু‌লে পড়ায়, কখ‌নো বেদনার । অামরা যে যে ভা‌বেই দিনযাপন ক‌রি না কেন,‌ যে পেশায়, যে দে‌শে, সবখা‌নে। দিন‌শে‌ষে কিন্তু অামাদের সবাই‌কে সমস্যা-সংকট পোহা‌তে হয়। অান‌ন্দের মুহুর্তগু‌লির উদযাপ‌নের শ্রেনী‌ বা রু‌চিভেদ হয়‌তে‌া অামা‌দের সবাই‌কে "এক কাতা‌র"- এ‌ অান‌তে পা‌রে না। কিন্তু, দুঃ‌খের মুহুর্তগু‌লি অামা‌দের খুব সহ‌জেই এক কর‌তে পা‌রে। দুঃ‌খের বা শো‌কের সে বড় এক অদ্ভুত ক্ষমতা।

সমব্যাথা বুঝবার সম‌বেদনার এক ধর‌নের অদ্ভুত রক‌মের সংক্রমনতা অাছে, অন্যের একই ধর‌নের ব্যাথ‌াগুলি‌কে ছুঁয়ে যাব‌ার।

একটা সময়, স‌য়ে যায় পুর‌নো দুঃখ। পুর‌নো ক্ষত সে‌রে উঠবার অভিজ্ঞতালব্ধ পথটি তখন প্রেরনা হ‌য়ে ফি‌রে অা‌সে। জীবন এ‌গি‌য়ে চ‌লে তখন পরবর্তী সংক‌টের সা‌থে লড়াই করবার জন্য।

অার এই সংক‌টের সা‌থে নৈ‌তিকতা নি‌য়ে লড়াই করবার পথ বে‌য়ে জীবন শুদ্ধ হয়। তৃ‌প্তির উৎস অার পথ তখন জীবন‌কে পুর্নাঙ্গ‌তা দেয়। তখন সময় অামা‌দের ক্ষমাশীলতা শেখায়, মার্জনার মহত্বের অধ্যায়‌টি পড়ায় মমতায়।

এই যে এক একটা লড়াই সংগ্রা‌মের পর,খা‌নিকক্ষ‌নের যুদ্ধ‌ বিরতী...‌সেটা প‌রিন‌তি নয়।

মৃত্যুর মুহুর্ত অব‌ধি,জীব‌নের প্রবলতম প‌রিন‌তি হ‌লো ' গ‌তি' । দুঃ‌খকে অভার‌টেক ক‌রে, সংকট‌কে ভেদ ক‌রে জীব‌নের প্র‌য়োজ‌নে বা অান‌ন্দের কাজ‌টি ক‌রে অাত্মা‌কে তৃপ্ত করবার প্র‌য়োজ‌নে ছু‌টেঁ চলা,লড়াই‌য়ের ময়দান না ফে‌লে না পালা‌নো- সেইটাই জীবন।
ক‌র্মের প্র‌তি ভালবাসা,‌বি‌বে‌কের দায়গু‌লির প্র‌তি দায়বদ্ধতা জীবন‌কে গ‌তির লড়াই‌য়ে দাড় ক‌রি‌য়ে দেয়। ম‌নে রাখি সবসময় ক্ষমাশীলতা, মান‌বিকতা  শুধু  একটা 'অার্ট ' না। অার্ট হ‌লে সবাই অ‌ভিন‌য়ের চেষ্টা কর‌তো। সেটা ইশ্ব‌রেরও দান।

কাউ‌কে পরামর্শ দেবার যোগ্যতা বা ধৃষ্টতা কোনটাই অামার নেই। সুন্দর অাসলে খুউব সাধার‌নে থা‌কে। সাধারন মানুষগু‌লিই অসাধারন সব কাজগু‌লি ক‌রে। অা‌পোষ কর‌তে পারা অার না পারার বিষয়টা মেরুদ‌ন্ডে থা‌কে। শেষব‌ধি তৃপ্তি নি‌য়ে বে‌চেঁ থাকবার থাকবার চেষ্টা ক‌রি।‌হে‌রে যাওয়া এবং পে‌রে য‌াওয়ার মধ্যখা‌নে কিছু নেই। জীব‌নের এটা বড় ট্রা‌জে‌ডি।

পুরুষ হিসে‌বে নয়, মানুষ হি‌সে‌বে ভা‌বি নি‌জে‌কে। অার  পুরুষ বে‌শি সা‌প্নিক, পুরুষ কিছুটা দায়িত্বহীন প্রকৃ‌তিগতভা‌বেই। অাবার নারীর ম‌ধ্যে যেম‌নি লক্ষী রূপ থা‌কে, তেম‌নি থা‌কে উর্বশী রূপও। জীবন  অাস‌লে নদীর ম‌তোন। কখ‌নো পদ্মার ম‌তো প্রমত্ত ত‌টিনীর রূপ থাকে, কখ‌নো স্রোতহীন। অাবার, প্র‌ত্যেক‌ জীব‌নেরও জোয়ার-ভাটার ক্ষন অা‌সে, প্র‌তি‌টি অায়ূস্মা‌নের এক‌টি শ্রেষ্ঠ সময় নির্ধারন ক‌রে দেন করুনাময়।

তবু ব‌লি, জীব‌নের মহাসড়‌কে একব‌ার ট্রাক-অাউট হ‌লেই শেষ। অতএব, অ‌ভিষ্ট গন্ত‌ব্যের পা‌নে লড়াই‌য়ে নি‌জের গ‌তি ধ‌রে রেখ বন্ধু। সাম‌লে রে‌খো অাবে‌গের পাল। দেখ‌বে, জীবন তোমা‌কে ঠকা‌বে না। কখ‌নোই, কোনভা‌বেই।

ফার্ষ্টবয়‌দের যে দে‌শে অাত্মহত্য‌াও কর‌তে হয়, সে‌দে‌শেও ‌বি‌বে‌কের কা‌ছে সৎ থাকবার অানন্দ তোমা‌কে তৃপ্ত কর‌বে।

জীব‌নে‌র সা‌থে ম‌নের যে কখ‌নো ভিন্নমত সেটাই বাস্তবতা। জীবন নি‌জেই  অামার কা‌ছে মা‌ঝে ম‌ধ্যে অানন্দ নি‌তে অা‌সে।


লেখক: সাংবাদিক, যুক্তরাজ্য প্রবাসী।

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রলীগের প্যানেলে ভিপি প্রার্থী শোভন জিএস রাব্বানী টিবিটি
  •   কাতারে বৃহত্তর সিলেট আওয়ামী যুব পরিবারের মাতৃভাষা দিবস উদযাপন
  •   অবশেষে ফেঞ্চুগঞ্জ-সিলেট মহাসড়কের গাছ কাটায় মামলা দায়ের
  •   সিলেটভিউর সংবাদ: স্কলারশিপ পেলো রিক্সাচালক শিক্ষার্থী আশরাফুল
  •   শাবিতে জামালপুর স্টুডেন্ট এসোসিয়েশনের নতুন কমিটি গঠন
  •   বিয়ের দাওয়াত না পেয়ে হামলা!
  •   প্রবাসীদের হয়রানী বন্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে : ড. মোমেন
  •   ইলিয়াসপত্নী লুনার সুস্থতা কামনায় বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের দোয়া মাহফিল
  •   আওয়ামী সরকার নিজেদের ধ্বংস ডেকে আনবে: ডা. জাহিদ হোসেন
  •   সিলেটের অভিজাত হাউজিং এস্টেটের একাল-সেকাল
  •   হিরের আংটি ফেরত দিয়ে আমেরিকায় প্রশংসিত সিলেটের যুবক
  •   লাঙ্গল, গরু নিয়ে জমি চাষে নামলেন পুলিশ সুপার!
  •   সাবেক মন্ত্রীকে বিয়ে করছেন সেই সানাই
  •   ওসমানী মেডিকেলের ছাত্র মেজর রবীনকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন
  •   বাংলাদেশী কন্যার চোখে প্রাণ খুঁজবে নাসা
  • সাম্প্রতিক ফিচার খবর

  •   নৈতিক অবক্ষয়ের রঙ্গমঞ্চে শিক্ষাঙ্গন, লাগাম ধরবে কে?
  •   ৭৮ টি লাশ: শুধুই দূঘর্টনা নাকি হত্যা?
  •   একটি বাড়ি, চেতনার বাতিঘর...
  •   শিশুদের মনস্তাত্ত্বিক ভিত্তি পর্যবেক্ষেণেই কর্মমুখী শিক্ষার প্রয়োজন
  •   নবীন প্রাণে বসন্তের আহবান
  •   প্রসঙ্গ: কবি আনোয়ার হোসেন মিছবাহ’র ‘ছেঁড়া পঙক্তি’
  •   একুশ বছরে পদার্পণ, জ্ঞানের আলোকবর্তিকা : লংলা আধুনিক ডিগ্রি কলেজ
  •   ‘যাও মা, তুমি একদিন বাংলাদেশের ইন্দিরা গান্ধী হবে’
  •   ক্যাম্পাসে বন্ধুত্বের তিনটি বছর পার
  •   রহস্যময়ী ক্লিওপেট্রার অজানা কাহিনী
  •   পাগলদের নিয়েই আমার কারবার
  •   স্বপ্নের রাজনীতি, রাজনীতির স্বপ্ন
  •   সিলেট-৪ আসন: সংসদ নির্বাচনের সেকাল-একাল
  •   সিলেট অঞ্চলে প্রবাসী বিনিয়োগ: একটি সামগ্রিক পর্যালোচনা
  •   মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিকথা: মার্চ থেকে ডিসেম্বর, ১৯৭১