আজ মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

বিশ্ব আবার স্কুলে যাচ্ছে!

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৮-১২-০১ ২০:২২:৩২

হিল্লোল পুরকায়স্থ :: বিশ্ব বিশ্বাস(১৪)। পিতা অমর চাঁন বিশ্বাস। সুনামগঞ্জের দিরাই পৌরশহরস্থ মজলিশপুর গ্রামে ভাড়াটিয়া বাসায় থাকে বিশ্ব বিশ্বাসের পরিবার। তারা দুই বোন এক ভাই, ভাই-বোনদের মধ্যে সবার ছোট বিশ্ব বিশ্বাস।

বছর খানেক  আগে সিএনজি অটোরিক্সাতে বড় বোনের বাড়ি বেড়াতে যাওয়ার সময় চরনারচর নামক স্থানে  লেগুনা গাড়ীর সাথে ধাক্কা লেগে ডোবায়  পরে যায় বিশ্ব। সেই দূর্ঘটনায় তার পা হয়ে যায় ক্ষতবিক্ষত। বোনের বাড়িতে আর যাওয়া হয়না। দিরাই সদর হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাকে রেফার করে সিলেটে।

বিশ্বের দরিদ্র পিতা তাকে ভর্তি করান ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। চিকিৎসা চলাকালীন সময় বিশ্ব বিশ্বাসের পায়ে পচন ধরে যায়, পায়ের ভাঙা অংশ থেকে মাংস খসে পড়ার উপক্রম। এদিকে দিনমজুর পিতা অমর চান বিশ্বাস এক মাত্র ছেলের চিকিৎসার টাকা যোগাড় করতে পারছিলেন না। বিশ্বের সার্জারির প্রয়োজন ছিল, পাশাপাশি দামি
ওষধ যা বিশ্বের পিতার সামর্থের বাহিরে।

দরিদ্র দিনমজুর  পিতা সন্তানের চিকিৎসার জন্য ছবি নিয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরেছে কিন্তু তাতে যা উঠে তা দিয়ে খাবার কিনবেন না, পুত্রের চিকিৎসা করাবেন।

সেই সময় আমার সাথে সাক্ষাতে তিনি সব খুলে বলেন। উনার চোখ মুখে দেখতে পাই সন্তানের জন্য দরিদ্র পিতার হাহাকার। গৌতম দাস কে সাথে নিয়ে সিদ্ধান্ত নেই বিশ্বের জন্য কিছু একটা করার। পরিচিতদেরকে বিশ্বের সাহায্যে  এগিয়ে আসতে বলি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিশ্বের চিকিৎসায় সাহায্য চেয়ে স্ট্যাটাস লিখি। তারপর থেকে বিভিন্ন জায়গা থেকে সাড়া আসতে থাকে বিশ্বের চিকিৎসায় এগিয়ে আসেন শাহজাহান সিরাজ, প্রবাসী শাহ কামাল, মাইদুল মিয়া ।

স্ট্যাটাসটি নজরে পড়ে শম্ভু নামে এক পুলিশ কনস্টেবলের। তার সূত্র ধরে অনলাইন ভিত্তিক সেচ্ছাসেবী সংগঠন বুস্টার্স বিশ্ব'র চিকিৎসার দায়িত্ব গ্রহন করে।

এরপর থেকে বিশ্বকে রক্ষার প্রাণপণ লড়াই শুরু হয়। বিভিন্ন সময় রক্ত দেওয়া থেকে শুরু করে এক বছরে পর পর ৯টি অপারেশন করা হয়। বছর ব্যাপি চিকিৎসায়  বিশ্বের পা অনেকটা ভালো হয়। লক্ষাধিক টাকা খরচ করার পাশাপাশি বিভিন্ন ভাবে সহায়তা দিয়ে যায় বুস্টার্স সংগঠনের সদস্যরা।

বিশ্ব এখন অনেকটা সুস্হ হয়ে উঠেছে, লাঠি দিয়ে হাঁটতেও পারছে। বিশ্ব'র পিতার সাথে কথা বলে জেনেছি বিশ্ব এখন ৭ম শ্রেণীর বার্ষিক পরীক্ষা দিচ্ছে। স্বপ্ন পূরনের প্রত্যাশায় সামনের দিকে এগিয়ে যাক বিশ্ব এমনটাই কামনা আমাদের।

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   শ্রুতির আয়োজনে অপূর্ব শর্মার গবেষণা থেকে আবৃত্তি ও পাঠ অনুষ্ঠিত
  •   জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সুমনের কারামুক্তি পর ছাত্রদলের সৌজন্য সাক্ষাৎ
  •   বড়লেখায় জামায়াত নেতা জেলহাজতে
  •   প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে স্বাগত জানিয়ে সিলেটে তাঁতী লীগের মিছিল মঙ্গলবার
  •   মোমেনের সমর্থনে খাদিমপাড়া ইউপি'র ৯নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ
  •   জীবনের শেষ মূহুর্ত পর্যন্ত জনগনের পাশে থাকব: মতিন চৌধুরী
  •   মৌলভীবাজার-২ আসনে নৌকার প্রচারণায় মগ্ন সলমান
  •   প্রধানমন্ত্রী হাওরাঞ্চলের উন্নয়নের যেকোনো প্রস্তাব দ্রুত অনুমোদন দেন: প্রতিমন্ত্রী মান্নান
  •   বিএনপি ক্ষমতায় গেলে দেশ উন্নয়নের ধারায় ফিরবে: ফয়সল চৌধুরী
  •   আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে এহিয়া ও মুহিবকে জরিমানা
  •   ৪ ছাত্রলীগ নেতার শাস্তি দাবি করলো শাবি প্রেসক্লাব
  •   রোটারি ক্লাব অব মেট্রোপলিটনের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা
  •   উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থার জন্য ধানের শীষে ভোট দিন: শফি চৌধুরী
  •   মণিপুরী কালচারাল কমপ্লেক্সের মহান বিজয় দিবস উদযাপন
  •   'নৌকার পক্ষে মাঠে-ময়দানে সর্বাত্মকভাবে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে'
  • সাম্প্রতিক ফিচার খবর

  •   সিলেট অঞ্চলে প্রবাসী বিনিয়োগ: একটি সামগ্রিক পর্যালোচনা
  •   মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিকথা: মার্চ থেকে ডিসেম্বর, ১৯৭১
  •   কুঁড়ে ঘরেই মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশ দেখেন একজন ওদুদ
  •   ফিরে দেখা : পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২১ বছর
  •   বাংলাদেশি পাসপোর্ট নিয়ে শততম দেশভ্রমণ করলেন কাজী আজমেরী
  •   নিখোঁজ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর সন্ধানে
  •   দূর্গোৎসব শুধু নতুন কাপড় পরিধানের জন্য নয়
  •   কাঁদবে রুপালি গিটার কাঁদবে রুপালি প্রজন্ম
  •   আপনার লেখা আরও ভালো করতে ৭টি কলাকৌশল
  •   নামিদামি স্কুলে পড়লেই কি শিশুরা মেধাবী হয়?
  •   রেলের উন্নয়নে বৃটিশদের ছাড়িয়ে গেল বর্তমান সরকার
  •   একজন বোকামানবের জন্ম কিংবা একটা গাধাকে ভালোবাসার গল্প
  •   সিলেট টু ঢাকা: ভার্চুয়াল যুগ; ননভার্চুয়াল ভালোবাসা
  •   আজ বিশ্ব শিক্ষক দিবস
  •   বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু ভবন ‘বুর্জ খলিফা’র অজানা ইতিহাস