আজ মঙ্গলবার, ২২ জানুয়ারী ২০১৯ ইং

স্বপ্নের রাজনীতি, রাজনীতির স্বপ্ন

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৯-০১-০৭ ১১:৪৮:৫২

অনিরুদ্ধ মজুমদার পলাশ :: অনেক স্বপ্ন নিয়ে রাজনীতিতে এসেছিলাম। অন্য ৮/১০টা ছেলের মতো স্বাভাবিক জীবন কাটাতে পারি নাই। অন্যরা যখন ক্লাস শেষে বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিচ্ছিলো আমি তখন তৎকালীন বিএনপি -জামাত সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করছিলাম।

রাজনীতি করার কারনে সাথের বন্ধুরা এমনকি শিক্ষকরাও ভালো করে কথা বলতে চাইতো না। প্রখর রোদে কিংবা বৃষ্টিতে ঘরে বসে না থেকে রাস্তায় পিকেটিং করতে হয়েছে। বিকেল বেলায় অন্যরা যখন খেলা বা আড্ডায় ব্যস্ত থাকতো তখন কোর্ট পয়েন্টে বিক্ষোভ সমাবেশে যোগ দিতে হতো। যেখানে জন্মের পর থেকে আজ অবধি বাবা মায়ের হাতে একবারও মার খাইনি সেখানে পিকেটিং কিংবা বিক্ষোভ করা কালীন কতোবার পুলিশের মার খেয়েছি তার হিসেব নেই।

সাথের বন্ধুরা যখন দলবেঁধে ঘুরে বেড়াতো আমি তখন সিনিয়র নেতাদের সাথে মিছিলে যেতাম। একবারও খারাপ লাগে নাই। গর্ব হতো, যে বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া সংগঠনের সাথে জড়িত হতে পেরেছিলাম। বাবার পাঠানো খরচের টাকা জমিয়ে সংগঠনের জুনিয়র ভাইদেরকে নিয়ে খরচ করতাম। ২০০৬-২০০৯ পুরোটা সময়ই মূলত বিরোধী দলের স্বাদ  নিতে হয়েছে। ছাত্রদল -শিবির এর অনেক নির্যাতন এবং হুমকি সহ্য করতে হয়েছে। এমন অনেক সময় গিয়েছে যখন পরিক্ষা মিস করেও দলীয় কাজে যোগ দিয়েছি। ২০১৩/১৪ সালে যখন সারাদেশে বিএনপি-জামাত একযোগে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়েছে, তখন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিরোধ গড়েছি। আজও মনে হয় প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে পরিক্ষা কেন্দ্রে গিয়ে পরিক্ষা দিতে হয়েছিলো। নিজ বাড়িতে জামাত শিবির হামলা করেছিলো। প্রাণভয়ে সেদিন মা আর বোন দরজা বন্ধ করে কোনরকম জীবন রক্ষা করেছিলেন।

আজ যেখানে সাথের বন্ধুরা চাকরি করে পরিবারের হাল ধরেছে, আমি সেখানে আজও বাবার হাতের দিকেই চেয়ে থাকি। কষ্টগুলো বলে শেষ করার মতো না ।অন্য বাবা মায়েরা যেখানে সন্তানদের সাফল্য নিয়ে গর্ব করে, আমার বাবা মা সেখানে নিজ সন্তানের ভবিষ্যৎ চিন্তা করে চোখের জল মুছে।তারপরও স্বপ্ন দেখি। হয়তো বাকি জীবনটাও দেখবো।

লেখক : জেলা ছাত্রলীগ নেতা

(লেখাটি অনিরুদ্ধ মজুমদার পলাশের ফেসবুক থেকে নেয়া।)

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   এসআইইউতে বিবিএ ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থীদের ইন্ড্রাষ্ট্রিয়াল ট্যুর
  •   বালাগঞ্জে 'তিন ভাই ডে-নাইট মিনি ফুটবল টুর্ণামেণ্ট'র উদ্বোধন
  •   সুনামগঞ্জে ভেজাল বিরোধী অভিযান, ৭ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা
  •   সময় থাকতে ভোটাধিকার ফিরিয়ে দিন, নইলে বিপদ হবে: রিজভী
  •   বাহুবলে গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক
  •   সুনামগঞ্জে বিদেশী মদসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক
  •   বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে দাফনের দাবি বুলবুল পুত্রের
  •   পাঁচ-এ পাঁচের অপেক্ষায় সিলেট!
  •   এরশাদ সুস্থ আছেন, গুজবে কান না দেয়ার আহ্বান
  •   সিলেটের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের দাবিতে মন্ত্রীর কাছে আবেদন
  •   প্রকল্প বাস্তবায়নের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ
  •   সঙ্গীত পরিচালক বুলবুলের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক
  •   হাফিজ শিশু আব্দুল আহাদ বাঁচতে চায়
  •   চুনারুঘাটে ইয়াবাসহ আটক ১
  •   দ্বন্দ্বের কারণে দেওবন্দ মাদরাসায় তাবলিগের কার্যক্রম নিষিদ্ধ
  • সাম্প্রতিক ফিচার খবর

  •   সিলেট-৪ আসন: সংসদ নির্বাচনের সেকাল-একাল
  •   সিলেট অঞ্চলে প্রবাসী বিনিয়োগ: একটি সামগ্রিক পর্যালোচনা
  •   মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিকথা: মার্চ থেকে ডিসেম্বর, ১৯৭১
  •   কুঁড়ে ঘরেই মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশ দেখেন একজন ওদুদ
  •   ফিরে দেখা : পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২১ বছর
  •   বিশ্ব আবার স্কুলে যাচ্ছে!
  •   বাংলাদেশি পাসপোর্ট নিয়ে শততম দেশভ্রমণ করলেন কাজী আজমেরী
  •   নিখোঁজ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর সন্ধানে
  •   দূর্গোৎসব শুধু নতুন কাপড় পরিধানের জন্য নয়
  •   কাঁদবে রুপালি গিটার কাঁদবে রুপালি প্রজন্ম
  •   আপনার লেখা আরও ভালো করতে ৭টি কলাকৌশল
  •   নামিদামি স্কুলে পড়লেই কি শিশুরা মেধাবী হয়?
  •   রেলের উন্নয়নে বৃটিশদের ছাড়িয়ে গেল বর্তমান সরকার
  •   একজন বোকামানবের জন্ম কিংবা একটা গাধাকে ভালোবাসার গল্প
  •   সিলেট টু ঢাকা: ভার্চুয়াল যুগ; ননভার্চুয়াল ভালোবাসা