আজ মঙ্গলবার, ২২ জানুয়ারী ২০১৯ ইং

এবার ট্রেন যাবে সমূদ্রকন্যা কক্সবাজারে

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৯-০১-১১ ১১:৩৮:৩৮

বাংলাদেশের মানুষের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন ট্রেনে চেপে সৈকত দেখবে। সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে এরই মধ্যে । ১৮ হাজার ৩৪ কোটি টাকা ব্যয়ে চট্টগ্রাম-দোহাজারী-কক্সবাজার-গুনদুম রেললাইন বসানোর কাজ চলছে। এরই মধ্যে এ প্রকল্পের প্রায় ২০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে।

রেলপথ মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, এই প্রকল্পের আওতায় চট্টগ্রামের দোহাজারী থেকে রামু পর্যন্ত ৮৮ কিলোমিটার, রামু থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত ১২ কিলোমিটার এবং রামু থেকে ঘুমধুম পর্যন্ত ২৮ কিলোমিটার রেলপথ নির্মিত হবে।

১২৮ কিলোমিটার রেলপথের মধ্যে চট্টগ্রামের সাতকানিয়া ও লোহাগাড়া; কক্সবাজারের চকরিয়া, ডুলাহাজারা, ঈদগাহ, রামু, সদর ও উখিয়া এবং নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম স্টেশন নির্মাণকাজও শুরু হচ্ছে। কিন্তু রামুতে নতুন সেনানিবাস হওয়ায় রামু-ঘুমধুম রেলপথ নির্মাণকাজ আপাতত থেমে গেছে।

প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে পর্যটন খাতের পাশাপাশি অর্থনীতিতেও বড় ধরনের পরিবর্তন আসবে বলে ধারণা করছেন বিশেষজ্ঞরা। এটি বাস্তবায়নে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) এ প্রকল্পে অর্থের জোগান দিচ্ছে।

গত বছর জুলাইয়ে চীনের বৃহত্তম ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান চায়না রেলওয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং করপোরেশন (সিআরইসি) ও দেশীয় তমা কন্সট্রাকশন কোম্পানি যৌথভাবে এ কাজ শুরু করে।

প্রকল্পের কাজ ৩ বছরের মধ্যে শেষ করার নির্দেশনা আছে। সেই অনুযায়ী ২০২২ সালের মধ্যে এ প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। তবে জমি অধিগ্রহণপ্রক্রিয়া দেরি হওয়ায় নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে প্রকল্পের কাজ শেষ করা নিয়ে সংশয় আছে।

রেলের প্রকৌশলীরা জানান, প্রকল্পের আওতাধীন চারটি বড় সেতুসহ ২৫টি সেতুর নির্মাণকাজও শুরু হয়েছে। বড় সেতুগুলো নির্মিত হচ্ছে মাতামুহুরী নদী, মাতামুহুরী শাখানদী, খরস্রোতা শঙ্খ এবং বাঁকখালী নদীর ওপর।

তারা জানান, দক্ষিণ চট্টগ্রামের চন্দনাইশ, সাতকানিয়া ও লোহাগাড়ায় রেললাইনের স্থান চিহ্নিত করে রেলপথ তৈরির জন্য মাটি ভরাটের কাজ বেশ এগিয়েছে। রাত–দিন ২৪ ঘণ্টা কাজ করে যাচ্ছেন শ্রমিকেরা। মাটি ভরাটের কাজ শেষ হলে মূল রেললাইন স্থাপনের কাজ শুরু হবে।

এরই মধ্যে চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার রেললাইন প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করতে চন্দনাইশে ১০ একর, সাতকানিয়ায় ১৭৬ একর, লোহাগাড়ায় ১৭৭ একর, চকরিয়ায় ৫১৪ একর, কক্সবাজার সদরে ২১০ একর ও রামুতে ২৭৯ একরসহ মোট ১ হাজার ৩৬৬ একরের মধ্যে বন বিভাগের ১৬৫ একর ছাড়া বাকি সব জমি অধিগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে।

এটি বাস্তবায়িত হলে ট্রান্স এশিয়ান রেলওয়ে করিডরের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন হবে। ট্রান্স এশিয়ান রেল নেটওয়ার্কের আওতায় এই রেলপথ সিঙ্গাপুর, চীন, ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়া, ভারত, বাংলাদেশ, মিয়ানমার, থাইল্যান্ড ও কোরিয়া হয়ে ইউরোপ পর্যন্ত বিস্তৃত হবে।

পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত কক্সবাজারের সঙ্গে অন্য অঞ্চলের যোগাযোগ সহজ হবে। পর্যটনশিল্পের বিকাশের পাশাপাশি বিস্তৃত হবে ব্যবসা বাণিজ্যও।

সুত্রঃ দৈনিক প্রথম আলো

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   এসআইইউতে বিবিএ ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থীদের ইন্ড্রাষ্ট্রিয়াল ট্যুর
  •   বালাগঞ্জে 'তিন ভাই ডে-নাইট মিনি ফুটবল টুর্ণামেণ্ট'র উদ্বোধন
  •   সুনামগঞ্জে ভেজাল বিরোধী অভিযান, ৭ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা
  •   সময় থাকতে ভোটাধিকার ফিরিয়ে দিন, নইলে বিপদ হবে: রিজভী
  •   বাহুবলে গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক
  •   সুনামগঞ্জে বিদেশী মদসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক
  •   বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে দাফনের দাবি বুলবুল পুত্রের
  •   পাঁচ-এ পাঁচের অপেক্ষায় সিলেট!
  •   এরশাদ সুস্থ আছেন, গুজবে কান না দেয়ার আহ্বান
  •   সিলেটের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের দাবিতে মন্ত্রীর কাছে আবেদন
  •   প্রকল্প বাস্তবায়নের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ
  •   সঙ্গীত পরিচালক বুলবুলের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক
  •   হাফিজ শিশু আব্দুল আহাদ বাঁচতে চায়
  •   চুনারুঘাটে ইয়াবাসহ আটক ১
  •   দ্বন্দ্বের কারণে দেওবন্দ মাদরাসায় তাবলিগের কার্যক্রম নিষিদ্ধ
  • সাম্প্রতিক জাতীয় খবর

  •   প্রকল্প বাস্তবায়নের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ
  •   সঙ্গীত পরিচালক বুলবুলের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক
  •   ভিকারুন্নিসা ছেড়ে অন্য স্কুলে সেই অরিত্রীর বোন
  •   প্রশ্নপত্র ফাঁসের খবর পেলে ফ্রি কল করুন ৯৯৯ নম্বরে
  •   আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল আর নেই
  •   এবার সিজারের সময় নবজাতককে কেটে ফেললেন চিকিৎসক!
  •   দাদার যে দু’টি কথা মন্ত্রীদের মেনে চলতে বললেন প্রধানমন্ত্রী
  •   অটোরিকশায় বাসের ধাক্কা, দুই নারীসহ নিহত ৪
  •   যুদ্ধাপরাধীর সন্তানরা যাতে সরকারি চাকরি না পায় সে জন্য আইন হবে
  •   আরও ২৫০ রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠাচ্ছে সৌদি
  •   ‘মন্ত্রিসভার সদস্যদের সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করতে হবে
  •   চলছে নতুন মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠক
  •   প্রশ্নপত্র ফাঁসের মত ভয়াবহতা রুখতে অভিভাবকদের সচেতনতা জরুরি
  •   জাতিসংঘের উদ্ধৃতি দিয়ে বিভ্রান্তিমূলক সংবাদ ছড়াচ্ছে বেনামী গণমাধ্যম
  •   স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তির আগেই যুদ্ধাপরাধী মুক্ত দেশ চান মুক্তিযোদ্ধারা