আজ সোমবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৮ ইং

কাজলশাহ'য় যাকাতের কাপড় নিয়ে মহিলাসহ তিনজনকে মারধর, ভাংচুর

 প্রকাশিত : ২০১৮-০৬-১২ ০০:০৬:২১

     আপডেট: ২০১৮-০৬-১২ ০০:২৩:২১

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেট নগরীর পশ্চিম কাজলশাহ এলাকায় যাকাতের কাপড় বিতরণ নিয়ে সৃষ্ট ঝামেলাকে কেন্দ্র করে একটি পরিবারের উপর হামলার অভিযোগ উঠেছে।  হামলার স্বীকার হন পশ্চিম কাজলশাহ এলাকার মৃত মখলিছ মিয়ার পরিবারের সদস্যরা। সোমবার বিকাল ৪টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। 

মৃত মখলিছ মিয়ার স্ত্রী জ্যোৎস্না বেগম জানান- সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর এস এম আবজাদ হোসেন আমজাদের পক্ষ থেকে সোমবার বিকালে পশ্চিম কাজল শাহ্ এলাকার পীর মঞ্জিলে টুকন অনুযায়ী যাকাতের কাপড় বিতরণ করা হয়। জ্যোৎস্না বেগম তার দুটি টুকনে দিয়ে তার মেয়ে মিথিলা আক্তারকে সেখানে কাপড় আনতে পাঠান। টুকন দিয়ে কাপড় নিয়ে মিথিলা পীর মঞ্জিলে থেকে বাসায় ফিরে আসে। কাপড় নিয়ে বাসায় আসার কিছুক্ষণ পর অজ্ঞাত কারণে কাউন্সিলরের সমর্থক আসুক, টিপুসহ কয়েকজন তাদের বাসায় এসে কাপড় ফেরত চায়। তখন জ্যোৎস্না বেগম কাপড় ফেরত দিতে বিলম্ব করলে তাকেসহ তার ছেলে এবং মেয়েকে তারা মারধর করে। মারধরের ঘটনা নিয়ে জ্যোৎস্না বেগম তাদেরকে বিচার- সালিশ ডাকার কথা বললে তারা আবারো ক্ষিপ্ত হয় পরিবারের উপর। এসময় জ্যোৎস্না বেগমের বাসার মেইন গেইট, আসবাপত্রসহ অন্যান্য জিনিষপত্র ভাংচুর করে এবং আবারো তাদেরকে মারধর করে। এসময় জ্যোৎস্না বেগম (৩৮), তার ছেলে রানা এবং মেয়ে মিথিলা আক্তার (৯) আহত হন।

জ্যোৎস্না বেগম আরো জানান- আমি গরিব বলে অকারণে আমাকে এবং আমার ছেলে মেয়েকে তারা মারধর করল। কিউ বিচার না করলেও আল্লাহ এর বিচার করবেন।

এ ব্যাপারে কাউন্সিলর আবজাদ হোসেন আমজাদ এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন- যাকাতের কাপড় বিতরণকালে মহিলার সাথে ভুলবোজাবুঝি হয়েছিল। যা পরবর্তীতে প্রতিবেশীদের নিয়ে সেখানেই মীমাংশা করে দেওয়া হয়েছে। মহিলা যদি সমাধান না বুঝে তাহলে তো আমার কিছু করার নেই।

সিলেটভিউ২৪ডটকম/১২ জুন ২০১৮/এসএ/ডিজেএস

আপনার মন্তব্য

Developed By - IT Lab Solutions Ltd.

Helpline - +88 018 4248 5222