আজ রবিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ ইং

জগন্নাথপুরে শিক্ষক নিয়োগে বহিরাগতদের রুখতে 'প্রতিবাদী' আন্দোলন

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৮-০৮-০৯ ১৮:০৩:৩৫

নিজস্ব প্রতিবেদক, জগন্নাথপুর ::  সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক নিয়োগে বহিরাগতদের প্রভাব রুখতে প্রতিবাদী ছাত্র জনতা আন্দোলনে নেমেছেন।

জানা গেছে, এক সময় জগন্নাথপুরে শিক্ষিত লোকের সংখ্যা কম ছিল। তখন দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে জগন্নাথপুরে আসা প্রাইভেট গৃহ শিক্ষকগণ স্থানীয় পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ভুয়া নাগরিক সনদপত্র নিয়ে সুনামগঞ্জের কোঠায় সরকারি শিক্ষকতার চাকুরি নিয়ে সুযোগ বুঝে নিজ এলাকায় বদলি হয়ে যেতেন। এতে জগন্নাথপুর উপজেলার বিদ্যালয় গুলোতে দেখা দিতো শিক্ষক সংকট। শিক্ষক সংকটের কারণে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া ব্যাহত হতো মারাত্মকভাবে। এখন আর সেই সুযোগ নেই। সরকারি বেতন বৃদ্ধির ফলে দিনে দিনে জগন্নাথপুরের শিক্ষিত ছাত্র সমাজ চাকুরীর দিকে উৎসাহী হয়ে উঠছে।

বিদেশ যাওয়ার প্রবণতা থেকে বেড়িয়ে এসে লেখাপড়ায় এগিয়ে যাচ্ছে জগন্নাথপুরের ছাত্র সমাজ। বর্তমানে সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে চাকুরি পাওয়ার জন্য জগন্নাথপুরের শিক্ষিত ছাত্র সমাজ রীতিমতো প্রতিযোগিতা করছেন। এক্ষেত্রে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা বহিরাগতরা বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছেন। তাই বহিরাগতদের রুখতে আন্দোলনে নেমেছে জগন্নাথপুরের ছাত্র সমাজ। এতে বেকায়দায় পড়েছেন বহিরাগতদের নাগরিক সনদপত্র দেয়া জনপ্রতিনিধিরা ও দৌড়ঝাঁপ শুরু হয়েছে বহিরাগতদের।

জানা যায়, চলতি ২০১৮ সালে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় জগন্নাথপুর উপজেলা থেকে লিখিত পরীক্ষায় মোট ১৯১ জন প্রার্থী উত্তীর্ণ হয়েছেন। এর মধ্যে বহিরাগতদের সংখ্যা প্রায় অর্ধশতাধিক। বহিরাগতরা বিভিন্ন কূট-কৌশলে জগন্নাথপুর পৌরসভা ও উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদ থেকে নাগরিক সনদপত্র সংগ্রহ করে এবারো সুনামগঞ্জের কোঠায় সরকারি শিক্ষকতার চাকুরি নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন। এতে প্রতিবাদী হয়ে উঠেছেন জগন্নাথপুরের স্থায়ী বাসিন্দা ও সরকারি শিক্ষকতার চাকুরি পাওয়ার জন্য লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ছাত্র সমাজ। বহিরাগতদের রুখতে তারা রীতিমতো আন্দোলন করছেন। বিভিন্ন দপ্তরে তারা আবেদন-নিবেদন করছেন। তাদের আন্দোলনে সাড়া দিয়ে জনপ্রতিনিধিরাও তাদের ভুল বুঝতে পেরে পূর্বে দেয়া অনেক বহিরাগতদের সনদপত্র বাতিলের প্রক্রিয়া চলছে।

আন্দোলনের ধারবাহিকতায় ২ আগষ্ট বৃহস্পতিবার বহিরাগতদের সনদপত্র বাতিলের দাবিতে জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র বরাবরে আন্দোলনকারী ছাত্র সমাজের পক্ষে বিশ্বজিত দাশ, নোমান আহমদ সাদী, শহিদুর রহমান, কুতুব উদ্দিন, জামিনুর রহমান ও হরিভক্ত দাস আবেদন করেন।

আবেদনে উল্লেখ করা হয়, জগন্নাথপুর পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের স্থায়ী বাসিন্দা বলে পৌর এলাকার ইসহাকপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক আশিকুর রহমান এবং অনির্বাণ বিশ্বাস ও সেতু রঞ্জন বিশ্বাস নামের ৩ জন বহিরাগত ভূয়া নাগরিক সনদপত্র নিয়ে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন।

এ ব্যাপারে প্রতিবাদীরা বলেন, বহিরাগতদের প্রভাবে আমরা আমাদের ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত হওয়ার আশঙ্কা করছি। তাই বহিরাগতদের রুখতে আমাদের আন্দোলন চলছে। যাতে সুনামগঞ্জের কোঠায় স্থানীয় শিক্ষিত বেকারগণ সরকারি চাকুরি পায়।

তারা আরো বলেন, এ আন্দোলন আমাদের বেচে থাকায় আন্দোলন, এ আন্দোলন আমাদের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলন।

এক প্রশ্নের জবাবে তারা বলেন, এবারের পরীক্ষায় জগন্নাথপুর উপজেলা থেকে প্রায় অর্ধশতাধিক বহিরাগতরা অংশ নিয়েছে। তাদের ভুয়া নাগরিক সনদপত্র বাতিল না হলে আমাদেরকে বঞ্চিত হতে হবে। এছাড়া আগামীতে চাকুরি নেয়ার মতো বয়সও আমাদের থাকবে না। তাই এবারই আমাদের চাকুরি নিতে হবে।

এ ব্যাপারে জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র আবদুল মনাফ বলেন, প্রতিবাদীদের আবেদন পেয়েছি এবং তদন্তক্রমে ভুয়া নাগরিক সনদপত্র গুলো বাতিলের প্রক্রিয়া চলছে।

জানতে চাইলে জগন্নাথপুর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন বলেন, এবারের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় ১৯১ জন উত্তীর্ণ হয়েছেন। এর মধ্যে ৬৫ থেকে ৭০ জনকে নেয়া হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বহিরাগতদের প্রমান পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


সিলেটভিউ২৪ডটকম/০৯ আগস্ট ২০১৮/এসএইচএস/এসডি

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   যে কারণে আশরাফুলের চোখেও 'রঙিন স্বপ্ন'
  •   আগুনের সাথে দীর্ঘ যুদ্ধ শেষে ক্লান্ত হয়ে গাড়ির ওপরেই ঘুমিয়ে পড়ে দমকল সদস্যরা
  •   সিলেটের ৬ প্রকল্পের পরিচালক তিনি একাই!
  •   প্রথম জীবনে অভিনয় শিল্পী হতে চেয়েছিলেন তথ্যমন্ত্রী
  •   নৌকায় ভোট দিন, ছাতক হবে মডেল উপজেলা: ফজলুর রহমান
  •   ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রলীগের প্যানেলে ভিপি প্রার্থী শোভন জিএস রাব্বানী টিবিটি
  •   কাতারে বৃহত্তর সিলেট আওয়ামী যুব পরিবারের মাতৃভাষা দিবস উদযাপন
  •   অবশেষে ফেঞ্চুগঞ্জ-সিলেট মহাসড়কের গাছ কাটায় মামলা দায়ের
  •   সিলেটভিউর সংবাদ: স্কলারশিপ পেলো রিক্সাচালক শিক্ষার্থী আশরাফুল
  •   শাবিতে জামালপুর স্টুডেন্ট এসোসিয়েশনের নতুন কমিটি গঠন
  •   বিয়ের দাওয়াত না পেয়ে হামলা!
  •   প্রবাসীদের হয়রানী বন্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে : ড. মোমেন
  •   ইলিয়াসপত্নী লুনার সুস্থতা কামনায় বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের দোয়া মাহফিল
  •   আওয়ামী সরকার নিজেদের ধ্বংস ডেকে আনবে: ডা. জাহিদ হোসেন
  •   সিলেটের অভিজাত হাউজিং এস্টেটের একাল-সেকাল
  • সাম্প্রতিক সিলেট খবর

  •   সিলেটের ৬ প্রকল্পের পরিচালক তিনি একাই!
  •   অবশেষে ফেঞ্চুগঞ্জ-সিলেট মহাসড়কের গাছ কাটায় মামলা দায়ের
  •   শাবিতে জামালপুর স্টুডেন্ট এসোসিয়েশনের নতুন কমিটি গঠন
  •   প্রবাসীদের হয়রানী বন্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে : ড. মোমেন
  •   ইলিয়াসপত্নী লুনার সুস্থতা কামনায় বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের দোয়া মাহফিল
  •   আওয়ামী সরকার নিজেদের ধ্বংস ডেকে আনবে: ডা. জাহিদ হোসেন
  •   সিলেটের অভিজাত হাউজিং এস্টেটের একাল-সেকাল
  •   হিরের আংটি ফেরত দিয়ে আমেরিকায় প্রশংসিত সিলেটের যুবক
  •   ওসমানী মেডিকেলের ছাত্র মেজর রবীনকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন
  •   লিডিং ইউনিভার্সিটিতে ছায়া জাতিসংঘের তৃতীয় সম্মেলন সম্পন্ন
  •   মিরাবাজার এলাকাবাসীর উদ্যোগে বার্ষিক ওয়াজ মাহফিল আজ
  •   ‘শুধু গান নয়, লালনের মানবধর্মও ছড়িয়ে দিতে হবে বিশ্বময়’
  •   ২২ মাস ধরে ভিত্তিপ্রস্থরেই আটকে আছে এমসির ১০ তলা ভবন
  •   জিন্দাবাজারে হকারদের পোয়াবারো
  •   সিলেটের অভিজাতপাড়ার হাহাকার