আজ সোমবার, ২১ জানুয়ারী ২০১৯ ইং

প্রবাসীদের ঈদ মানে কষ্ট

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৮-০৮-১৯ ১০:৩০:৫৫

মুসলমানদের জন্য সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব হচ্ছে ঈদ। প্রতিবছর খুশির বার্তা নিয়ে আসে ঈদ পরিবারের স্বচ্ছতা ও নিজের ভবিষ্যতের জন্য দীর্ঘদিন স্বদেশের বাইরে ঈদ আসলেই তাদের কষ্ট যেন আরো বেড়ে যায় ।এই ঈদকে নিয়ে প্রস্তুতির কমতি থাকেনা।

যেমন ঈদুল ফিতর শেষ হতেই প্রবাসীরা প্রস্তুতি নেয় ঈদুল আযহার মালয়েশিয়াতে দেখেছি ঈদুল আযহার। আগেই প্রবাসীরা খোঁজে বাড়তি কাজ ।

কোরবানি ঈদ টাকাটা একটু বেশি দেওয়া লাগবে গতবারের চেয়ে  এবার গরু একটু বড় কিনবে ছোট ভাই বোনদের আবদার তাই ছুটির দিনেও যেন ছুটি নেয় তাদের। প্রিয়জনদের মুখে হাসি ফুটাতে পারলেও নিজেকে রাখে সব উৎসবের বাহিরে। মালয়েশিয়াতে ঈদের দিনেও কাজ করতে হয় অনেক প্রবাসীর ।

মালয়েশিয়া অন্যতম একটি মুসলিম দেশ হলেও এখানে বেশিরভাগ মালিক  চাইনিজ  ।স্থানীয় নাগরিকদের সাথে প্রবাসীদের ভ্রাতিত্ববোধ, সৌহার্দ্য প্রকাশ প্রায় শূণ্যের কোঠায়। মুসলিম হলেও তাঁরা প্রবাসীদের থেকে নিজেদের আলাদা ও শ্রেষ্ঠ ভাবতে পছন্দ করে। তাদের সাথে প্রবাসীদের সামাজিক সম্পর্ক ঈদের দিনগুলোতেও দেখা যায় না।

 বিশেষ করে ঈদুল আযহার এখানে আলাদাভাবে গরুর হাট বসে নি আমাদের দেশের মতো এভাবে কোরবানি দিতে দেখিনি, মালয়েশিয়ানরা পঞ্চায়েতের মাধ্যমে সরকারিভাবে প্রত্যেক মহল্লায় কোরবানি দিয়ে থাকে।  প্রবাসীরা অনেকটা একঘরে হয়ে থাকতে হয়। প্রবাসের ঈদ প্রায় বাঙালী প্রবাসীর কাটে আনন্দহীন ।

 নামাজের পর প্রবাসীরা নিজেদের মধ্যে সামান্য মিষ্টি বা ঝাল কিছু তৈরী করে কেউ বা ঈদের সেমাইটা বাংলাদেশী রেষ্টুরেন্টে গিয়ে কিনে খায়, তারপর  দেশে ফোন করে কথা বলেন প্রিয়জনের সাথে, কেউ বা নিভৃতে বসে নিঃশব্দে চোখের জল ফেলেন, কেউ হয়তো ঢুকরে কেঁদে উঠেন, অনেকের কান্না সংক্রামিত হতে দেখা যায় পাশের রুমের প্রবাসীকেও। কি ভীষন কষ্টের একটি দিন।

কে বলবে আজ ঈদ!  এই দিনে দেশে কাটানো ঈদগুলো তখন এক একটা স্বর্ণালী মূহুর্ত হয়ে চোখের সামনে ভাসে। এত কিছুর পরেও প্রিয়জনের মুখে হাসি ফুটাতে পারলেই খুশি প্রবাসীরা। প্রিয়জনদের মুখের একটু হাসিতে এই ভুলে যেতে পারে সকল কষ্ট। শাহাদাত হোসেন, প্রবাসী সাংবাদিক।

সিলেটভিউ২৪ডটকম/ ১৯ আগস্ট ২০১৮/শাদিআচৌ/আআ

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   মঙ্গলবার হবিগঞ্জে আসছেন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব
  •   কানাইঘাটে অভিযানে বিজিবির গুলি, কিশোর নিহত
  •   শেখ হাসিনার সরকার, কৃষক বান্ধব সরকার: আশফাক আহমদ
  •   বালিংগা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হলেন মাসুদ খান
  •   শাবিতে ছাত্র ফ্রন্টের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত
  •   শাবিতে ইসকনের ইয়ুথ ফেস্টিভ্যাল ৩১ জানুয়ারি
  •   গণতান্ত্রিক শিক্ষক পরিষদকে সিকৃবি সাংবাদিক সমিতির শুভেচ্ছা
  •   তিন দিনের সফরে সিলেটে আসছেন সাবেক শিক্ষামন্ত্রী
  •   সুনামগঞ্জে কাজ দেয়ার কথা বলে নারীকে গণধর্ষণ!
  •   আমি বিএনপির সৃষ্টি: আব্দুল হাকিম চৌধুরী
  •   দেখা মিলল ‘লাল নেকড়ে চাঁদ’
  •   সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা
  •   বিশ্বনাথে দশঘর ইউনিয়ন প্রগতি ট্রাস্ট ইউকের বৃত্তি বিতরণ
  •   আশুগঞ্জ আদর্শ স্কুলে নতুন ভবনের উদ্বোধন করলেন শফিক চৌধুরী
  •   'বিএনপির এমন শোচনীয় পরাজয় আমরাও আশা করিনি'
  • সাম্প্রতিক মুক্তমত খবর

  •   শাবিপ্রবির জিইবি বিভাগ, অনাকাঙ্খিত ঘটনা ও কিছু প্রশ্ন
  •   শীতের হাওয়ার লাগল নাচন
  •   মৌচাক হায় একলা আজি!
  •   ‘ফাটা-ফুতাইলে ঘষাঘষি আর মাঝখানো মরিছর খারাফি!’
  •   একটি আত্মহত্যা এবং একটি নষ্টস্বপ্নের গল্প
  •   তা‌রেক রহমা‌নের বিএন‌পি ও গণতন্ত্রহীনতার দায়
  •   আমাদের সচেতন হতে হবে...
  •   'আপনার জন্যই শাকিব খানকে ফিরে পেয়েছি'
  •   ইমরান আহমদ : সোনালী ইতিহাসের পুনর্জাগরণের মহানায়ক
  •   নুরুল ইসলাম নাহিদ আমাদের গর্ব, আমাদের অহংকার
  •   মন্ত্রীদের বন্ধ করতে হবে অতিকথন, ফেসবুকে লোক দেখানো কাজ
  •   সদ্য সাবেক শিক্ষামন্ত্রী ও কিছু কথা
  •   ইসলামে নারীদের সশস্ত্র জিহাদ নিষিদ্ধ
  •   ব্রি‌টিশ বনাম বাংলিশ গণতন্ত্র ও তিন বাং‌লায় গণতন্ত্রহীনতা
  •   আমি আজ শুধু একটি দাবি নিয়ে এসেছি...