‘ঢালাও এমপিও দেয়া হবে না’

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৮-০১-১৪ ২০:৩৫:৫৫

এমপিও সুবিধার বাইরে থাকা সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে এই সুবিধা দেয়ার বিষয়টি নাকচ করে দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি জানান, অল্প কিছু সংখ্যক প্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্তি করা হবে।

রবিবার সচিবালয়ে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের সঙ্গে ইরা ইনফোটেক লিমিটেডের একটি চুক্তি সই অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

সবশেষ ২০১০ সালে এক হাজার ৬২৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে এমপিও সুবিধার আওতায় আনা হয়েছিল। এরপর আর কোনো প্রতিষ্ঠানকে এই সুবিধা দেয়নি সরকার। আর সম্প্রতি এমপিও দাবিতে রাজধানীতে অবস্থানের পর অনশন কর্মসূচি পালন করেছে নন এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা।

গত ৩১ ডিসেম্বর থেকে ছয় জানুয়ারি পর্যন্ত জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান নিয়ে অনশন করেছিল নন এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে তার এপিএস সাজ্জাদ হাসান এবং ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়ার আশ্বাসে তারা কর্মসূচি প্রত্যাহার করে এলাকায় ফিরে যান।

এর আগে কর্মসূচির তৃতীয় দিনে শিক্ষকদের কাছে গিয়ে তাদেরকে বোঝাতে ব্যর্থ হয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তিনি সেদিন জানান, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এ বিষয়ে অর্থ বরাদ্দের বিষয়ে তাকে আশ্বাস দিয়েছেন। কিন্তু শিক্ষকরা জানিয়ে দেন, প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে আশ্বাস না পেয়ে তারা ঘরে ফিরে যাবেন না।

শিক্ষামন্ত্রী যেদিন শিক্ষকদের কাছে গিয়েছিলেন সেদিন বিদেশ রওয়ানা হয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী। তবে দেশে ফিরে এই প্রথম তিনি বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন। 

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘চলতি বছর কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্ত করা হবে। তবে সেটা ঢালাওভাবে হবে না।’

‘এমনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আছে যেগুলোর এক রুমে পাঁচ ক্লাসের শিক্ষা কার্যক্রম চলে। এসব স্কুলকে এমপিও দেয়া হবে না। মানসম্মত স্কুলকেই এমপিও দেয়া হবে।’

শিক্ষকদের হিসাব অনুযায়ী এমপিও সুবিধার বাইরে থাকা সাড়ে পাঁচ হাজার প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদেরকে এই সুবিধার আওতায় আনতে বছরে এক হাজার কোটি টাকার মতো লাগবে। তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয় অর্থ মন্ত্রণালয়কে একাধিকবার প্রস্তাব দিলেও তারা অর্থ বরাদ্দ দেয়নি।

এ সময় অর্থমন্ত্রী ইবতেদায়ি মাদ্রাসার শিক্ষকদের দাবি নিয়েও কথা বলেন। জাতীয়করণের দাবিতে এসব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরাও জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান নিয়ে অনশন করছেন।

অর্থমন্ত্রীবলেন, ‘মাদ্রাসার শিক্ষকরা জাতীয়করণের জন্য অনশন করছেন। এই মুহূর্তে তাদের জন্য সরকারের কিছু করার নেই।’

এমপিওভুক্তির দাবি ছাড়াও সম্প্রতি এমপিও সুবিধা পাওয়া শিক্ষকরা তাদের প্রতিষ্ঠানকে জাতীয়করণের দাবি তুলছেন। তবে তাদের দাবি নাকচ করেছেন অর্থমন্ত্রী। বলেছেন, জাতীয়করণের বিষয়ে বর্তমানে সরকারের কোনো সিদ্ধান্ত নেই।-ঢাকাটাইমস

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   সিলেটে ফুলেল শ্রদ্ধায় কবি নজরুলের জন্মবার্ষিকী পালন
  •   জৈন্তাপুর জাতীয়তাবাদী প্রবাসী অনলাইন পরিষদের ইফতার মাহফিল
  •   জকিগঞ্জে মাদকসহ গ্রেপ্তার ১
  •   সাড়ে ৮ হাজার সৌদি রিয়াল নিতে পারবেন বাংলাদেশী হজযাত্রীরা
  •   রাজধানীতে কাজী নজরুলের সমাধিতে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা
  •   ভারত সফরে গেলেন প্রধানমন্ত্রী
  •   নেত্রকোনায় 'বন্দুকযুদ্ধে' ২ নিহত, আহত ৩
  •   সিলেটে মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৮৮
  •   ওসমানী মেডিকেলের সাবেক উপ-পরিচালকের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা
  •   মহাকাশে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট: সিলেটে ছাত্রলীগের আনন্দ মিছিল
  •   অন্ধকারে হাকালুকি জিরো পয়েন্ট!
  •   জর্জিয়া রাজ্য সিনেটে শেখ রহমানের জয়
  •   সহসা মুক্তি মিলছে না খালেদা জিয়ার
  •   শেখ হাসিনা কি মনের মতো ছাত্রলীগ পাবেন?
  •   রমজানে কী খাব, কী খাব না
  • সাম্প্রতিক শিক্ষা-ক্যাম্পাস খবর

  •   ১০৯ স্কুলে সবাই ফেল!
  •   সিলেট পাসের হারে সবচেয়ে পিছিয়ে
  •   যেভাবে জানা যাবে এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল
  •   এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল ৬ মে
  •   এসএসসির ফল মের প্রথম সপ্তাহে
  •   কেন বিভক্ত হল কোটা সংস্কারের আন্দোলন?
  •   প্রশ্ন ফাঁসকারীকে ধরিয়ে দিলে ৫ লাখ টাকা পুরস্কার
  •   প্রশ্নফাঁস এড়াতে 'সোয়াট' ও নকল রুখতে 'ড্রোন'
  •   প্রশ্নপত্রের ফাঁদ: এইচএসসি পরীক্ষার্থীরা সাবধান!
  •   প্রশ্নফাঁস চক্রের সঙ্গে জড়িত অভিযোগে বাতিল হতে পারে কয়েক হাজার শিক্ষার্থীর পরীক্ষা
  •   আসন্ন এইচএসসি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে দেশব্যাপী গোপনে চলছে প্রশ্ন ফাঁস রোধ অভিযান
  •   সোশ্যাল মিডিয়ায় সক্রিয় প্রশ্ন ফাঁসকারী প্রতারক চক্র
  •   হোয়াটস অ্যাপেও সক্রিয় প্রশ্ন ফাঁসকারী চক্র
  •   ইউটিউবেও হচ্ছে এইচএসসি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস
  •   বিভ্রান্তিমূলক প্রশ্নফাঁস হতে সাবধান! আসছে ডিজিটাল সিস্টেম