আজ বৃহস্পতিবার, ০৪ জুন ২০২০ ইং

রাজনগরে ১০ টাকা কেজির চাল ওজনে কম দেয়ার অভিযোগ, পালালেন ডিলার

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২০-০৪-০৯ ২১:১৫:৫২

রাজনগর প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের রাজনগরে সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির (ওএমএস) আওতায় হতদরিদ্রদের কাছে বিক্রির জন্য ১০ টাকা দরের চাল বিক্রিতে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার পাঁচগাঁও ইউনিয়নের মধুর দোকানের এক ডিলার জনপ্রতি বরাদ্দের তুলনায় ক্রেতাদের ৩-৪ কেজি করে চাল কম দিয়েছেন। মৌখিক অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ও পুলিশ যাওয়ার খবর পেয়ে পালিয়ে যান ওই ডিলার।

উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় সূত্রে জানাযায়, ওএমএসের আওতায় একেকজন হতদরিদ্রকে ১০ টাকা কেজি দরে ৩০০ টাকায় ৩০ কেজি চাল দেওয়ার কথা। তবে মঙ্গলবার (৯ এপ্রিল) এই চাল বিক্রিতে জনপ্রতি ৩-৪ কেজি করে কম দিয়েছেন বলে উপজেলার মধুর দোকান এলাকার ডিলার জহিরুল ইসলাম সুমনের বিরোদ্ধে অভিযোগ ওঠে।

উপকারভোগীদের কয়েকজন চাল কিনে অন্য দোকানে মেপে দেখেন পরিমানে কম রয়েছে। বিষয়টি জানাজানি হলে অভিযোগ যায় উপজেলা নির্বাহি অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) উর্মি রায়ের কাছে।

তিনি এব্যাপারে খোঁজখবর নিতে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রককে নির্দেশ দেন। পরে খাদ্য নিয়ন্ত্রকের অফিস থেকে (ওসি এলএসডি) চন্দ্রসেন রায় পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। টের পেয়ে ওই ডিলার দোকান বন্ধ করে সটকে পড়েন।

এদিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে কয়েকজন উপকারভোগীর চাল মেপে কারো বস্তায় ২৬ কেজি আবার কারো বস্তায় ২৭ কেজি চাল রয়েছে দেখেন। বিষয়টি জানার পর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ঊর্মি রায়, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আব্দুন নূর, উপজেলা খাদ্য পরিদর্শক শাকির আহমদ খানসহ রাজনগর থানার পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে যান। তারা ডিলারকে খবর দিয়ে এনে দোকান খুলে বাকি চালের বস্তাগুলো মেপে দেখেন সেগুলোতে কম রয়েছে। এসময় যেসব বস্তায় কম রয়েছে সেসব বস্তায় ৩০ কেজি পূর্ণ করে উপকারভোগীদের কাছে বিক্রি করতে ওই ডিলারকে নির্দেশ দেয়া হয়। তবে উপজেলা খাদ্য বান্ধব কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত নিয়ে ওই ডিলারের বিরোদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানানো হয়।

উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. আব্দুন নূর বলেন, ওজনে চাল কম দেয়ার ঘটনার সত্যতা পেয়েছি। এই ঘটনায় ব্যবস্থা নেয়ার লক্ষ্যে রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে। বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঊর্মি রায় বলেন, খবর পেয়ে আমি খাদ্য নিয়ন্ত্রককে সাথে নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে সত্যতা পেয়েছি। এই কার্যক্রম যাতে বন্ধ না থাকে সেজন্য ওই ডিলারকে আপাতত পুরো ৩০ কেজি করে চাল বিক্রি করতে বলেছি। তার বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট কমিটিতে রিপোর্ট দিতে খাদ্য নিয়ন্ত্রককে বলা হয়েছে।

সিলেটভিউ২৪ডটকম / ৯ এপ্রিল ২০২০ /সোহেল/পিডি

@

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন