আজ শনিবার, ০৬ জুন ২০২০ ইং

শমশেরনগরে মিথ্যা মামলায় হয়রানি: ইউপি সদস্যের অভিযোগ

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২০-০৫-২১ ২০:৩০:৪৫

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মহিলা সদস্যের দেয়া অভিযোগে সহযোগিতা না করায় ইউপি সদস্যের উপর মামলা দিয়ে হয়রানি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শমশেরনগর ইউপি সদস্য রুহেল আহমদ চৌধুরী বৃহস্পতিবার (২১ মে) দুপুরে মুন্সিবাজারস্থ কমলকুড়ির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন।

লিখিত বক্তব্যে শমশেরনগর ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য রুহেল আহমদ চৌধুরী বলেন, গত ১৬ মে শমশেরনগর ইউনিয়নের ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত ইউ.পি সদস্য শারমিন বেগম চৌধুরী ও ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য নমিতা সিং ইউপি চেয়ারম্যান জুয়েল আহমদ এর বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দেন। এই অভিযোগে সহযোগিতা না করায় শারমিন বেগম চৌধুরী  ক্ষুব্ধ হয়ে আমাকে নাজেহাল করার পায়তারায় লিপ্ত রয়েছেন।

সম্প্রতি করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় সরকারের প্রণোদনা সহায়তা দেওয়ার তালিকায় আমার ওয়ার্ডের ভ‚লত্রæটি সংশোধনের জন্য গত ১৩ মে বেলা ২টায় উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয়ে গিয়ে আমার দেওয়া তালিকা ভুলত্রুটি দেখতে থাকি। কিছুক্ষণ পর সেখানে উপস্থিত হন পার্শ্ববর্তী ৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডের ইউ.পি সদস্যা শারমিন সেখানে দেখার সাথে অকথ্য ভাষায় শমশেরনগর ইউ.পি চেয়ারম্যানকে গালিগালাজ করতে থাকেন। পরে উনার দু’টি নাম কেন বাদ দেয়া হয়েছে বলে আমার কাছে জবাব চাইলে আমি উনাকে উক্ত নাম দেয়ার বিষয়ে আমি জানিনা বলে জানালে, তিনি আমাকে চেয়ারম্যানের চামচা, দালাল এবং আমার মা-বাবাকেও অশালিন ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন।

পরে উপজেলা নির্বাচন অফিসের সামনে এসেও তিনি মারমুখী হয়ে উঠেন। আমি আত্মসম্মান রক্ষার্থে সরাসরি শমশেরনগর ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যানকে বিষয়টি অবহিত করার জন্য চলে আসি। কিছুক্ষণ পরই ইউনিয়ন পরিষদে উপস্থিত হয়ে শারমিন ফের আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। এক পর্যায়ে তার সামনে থাকা একটি বাইসাইকেল ধরে সাইকেলের ধাক্কায় আমাকে চাপা দিতে চাইলে আমি আত্মরক্ষার্থে সাইকেল আটকে দেই। চেয়ারম্যান এসে উভয়পক্ষকে নিয়ে আলোচনা করে উপযুক্ত বিচার করার আশ্বাস দিলে আমি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে চলে আসি। ঘটনার পরদিন গত ১৪ মে আমি জানতে পারি কোন তদন্ত ছাড়া তড়িঘড়ি আমার নামে কমলগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ইউ.পি সদস্য শারমিন বেগম চৌধুরী মামলা দায়েরের পরও নানাভাবে মেরেফেলার হুমকি ধামকি প্রদান করছেন। নানা মামলা মোকদ্দমায় জড়িত করে আর্থিক ও মানসিকভাবে হয়রানি করার পায়তারায় লিপ্ত রয়েছেন। উনার এহেন আচরনে আমি চরম নিরাপত্তাহীনতায় আছি। ইউপি সদস্য শারমিন এই ধরণের কার্যক্রম ও মিথ্যা মামলা দায়েরের বিষয়ে আমি গত ১৯ মে মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ প্রেরণ করেছি।

অভিযোগ বিষয়ে জানতে চাইলে শমশেরনগর ইউনিয়নের ওয়ার্ডের ইউ.পি সদস্যা শারমিন বেগম চৌধুরী বলেন, আমি কোন মিথ্যা মামলা দেইনি। আমার স্বাক্ষী প্রমাণ আছে। শমশেরনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. জুয়েল আহমদ বলেন, এ বিষয়টি আমি সামাজিকভাবে দেখার চেষ্টা করলেও মহিলা সদস্য না মেনে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এখন আইনীভাবে বিষয়টি দেখা হবে।

কমলগঞ্জ থানার ওসি আরিফুর রহমান বলেন, মহিলা সদস্যের লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে থানায় মামলা হয়েছে। বিষয়টি তদন্তাধীন আছে।

সিলেটভিউ২৪ডটকম/২১ মে ২০২০/জয়নাল/পিডি

@

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন