আজ বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ইং

শমশেরনগরে চা বাগান খুলে দেওয়ার দাবিতে ছাত্র-যুব সমাজের মানববন্ধন

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২০-০৮-০২ ১৯:৪৯:৫২

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে কোন রকম পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই করোনাকালীন সময়ে শ্রমিকদের মজুরি পরিশোধ না করেই বন্ধ করে দেওয়া হয় দলই চা বাগান। অবিলম্বে ওই চা বাগান খুলে দেওয়ার দাবিতে শমশেরনগর চা বাগানের ছাত্র-যুব সমাজ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। রবিবার (২ আগষ্ট) সকাল ১১টায় শমশেরনগর চাতলাপুর সড়কে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়।

চা মজদুর পত্রিকার সম্পাদক ও শমশেরনগর ইউপি সদস্য সীতারাম বীনের সভাপতিত্বে মানবন্ধনে বক্তব্য রাখেন, চা শ্রমিক ইউনিয়নের মনু-ধলই ভ্যালীর সাধারণ সম্পাদক নির্মল দাশ পাইনকা, যুব নেতা মোহন রবিদাস, নারী নেত্রী মেরি রাল্ফ, ছাত্র নেতা কৃষ্ণ রাজভর, চা বাগান পঞ্চায়েত কমিটির সাধারণ সম্পাদক শ্রীকান্ত কানু, বাবুল মাদ্রাজী প্রমুখ।

এদিকে শুক্রবার (৩১ আগস্ট) সকাল ১০টায় চা ছাত্র-যুব পরিষদ ও চা শ্রমিকদের উদ্যোগে বাগান পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি গনেশ পাত্রের সভাপতিত্বে ও সজল কৈরীর সঞ্চালনায় আলীনগর চা বাগান কারখানার সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। তাছাড়া শুক্রবার বেলা আড়াইটায় চা বাগান ছাত্র সমাজের উদ্যোগে ছাত্র নেতা প্রদীপ পাশির সঞ্চালনায় ধলই  চা বাগান কারখানার সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

তিনটি চা বাগানে অনুষ্ঠিত পৃথক পৃথক মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, শ্রম আইন লঙ্ঘন করে দলই চা বাগান কোম্পানী ২৭ জুলাই সন্ধ্যায় নোটিশ দিয়ে চা বাগান বন্ধ ঘোষণা করে। যা সম্পূর্ণরুপে বেআইনী। কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদে উপজেলা প্রশাসন, চা বাগান মালিক পক্ষ, চা বাগান মালিকদের সংগঠন বাংলা দেশীয় চা সংসদ প্রতিনিধি, শ্রম অধিদপ্তরের শ্রীমঙ্গলস্থ শ্রম কর্মকর্তা, চা শ্রমিক ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দ, ধলই চা বাগান পঞ্চায়েত কমিটির সমন্বয়ে জরুরী বৈঠক হয়।

দীর্ঘ সাড়ে ৪ ঘন্টা চলা বৈঠকে দলই চা বাগান কতৃপক্ষের অসহযোগিতার কারণে কোন সমাধান ছাড়াই বৈঠক শেষ হয়। আগামী ৪ আগষ্ট বৈঠকে দলই চা বাগান খোলার সিদ্ধান্ত গৃহীত না হলে আগামীতে চা শিল্পাঞ্চলে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে বলেও তারা হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন।

সিলেটভিউ২৪ডটকম/২ আগস্ট ২০২০/জেএ/এসএইচ

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন