আজ মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ ২০২১ ইং

সিলেটে অ্যাকশনে পুলিশ, ‘নিশিকন্যারা’ দৌঁড়ে

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২১-০১-২৭ ১৬:১৫:৩২

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সম্প্রতি সিলেটে অপরাধ দমনে কঠোর অবস্থান নিয়েছে মহানগর পুলিশ (এসএমপি)। প্রতিদিনই সিলেট মহানগর এলাকায় পুলিশের জালে ধরা পড়ছেন ছোট-বড় অপরাধী। দেয়া হচ্ছে শাস্তি, পাঠানো হচ্ছে কারাগারে। যে কারণে সম্প্রতি আতঙ্কে আছেন সিলেটের চোর, ডাকাত, ছিনতাইকারী ও ধর্ষকসহ নানা রকমের অপরাধী।

এদের পাশাপাশি দৌঁড়ের উপর আছেন অন্ধকার জগতে পা দেয়া ‘নিশিকন্যারা’। গত কয়েকদিন থেকে সিলেট মহানগরীর আবাসিক হোটেলগুলোতে নিয়মিত অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। মাত্র সাত দিনে সিলেটের তিনটি আবাসিক হোটেল থেকে ২৮ জন নারী-পুরুষ অসামাজিক কার্যকলাপের দায়ে আটক হয়েছেন। পরবর্তীতে তাদের জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

শুধু এই তিন হোটেলই নয়, নির্দিষ্ট তথ্য ও তালিকার ভিত্তিতে নগরীর হোটেলগুলোতে অভিযান চালানো হবে- এমনটাই জানিয়েছে এসএমপি সূত্র। ইতোমধ্যে সিলেট মহানগরীতে অবস্থিত আবাসিক হোটেলগুলোর তালিকা হালনাগাদ করা হয়েছে। এর মধ্য থেকে সন্দেহের তালিকায় থাকা হোটেলগুলোতে দ্রুত অভিযান পরিচালনা করা হবে।

এছাড়াও অসামাজিক কার্যকলাপ চলছে- তাৎক্ষণিকভাবে পাওয়া এমন তথ্যের ভিত্তিতে যে কোনো হোটেলে ঝটিকা অভিযান চালাবে পুলিশ।

এসএমপি জানায়, সর্বশেষ গত ২১ জানুয়ারি রাত ৮টার দিকে সিলেট নগরীর বন্দরবাজারস্থ লালদিঘীরপাড় হোটেল সোনালীতে অভিযান চালিয়ে অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকার দায়ে ৬ নারী ও ৬ পুরুষকে আটক করে কোতোয়ালি থানাপুলিশ। অভিযানের সময় তারা অবৈধ যৌনকর্মে লিপ্ত ছিলেন।

এর আগে ১৭ জানুয়ারি রাত ৩টার দিকে দক্ষিণ সুরমার ভার্থখলাস্থ হানিফ আবাসিক হোটেলে অভিযান চালিয়ে এক নারী ও এক পুরুষকে আটক করে পুলিশ। তারাও অবৈধ কাজে লিপ্ত ছিলেন।

এর দুদিন আগে (১৫ জানুয়ারি) দক্ষিণ সুরমার হুমায়ুন রশিদ চত্বর এলাকার তিতাস আবাসিক হোটেলে বিশেষ অভিযান চালিয়ে অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকাবস্থায় এক সঙ্গে ১৪জনকে আটক করা হয়। এর মধ্যে ৯ পুরুষ ও ৫ মহিলা ছিলেন।

অভিযানের বিষয়ে সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম) বিএম আশরাফ উল্যাহ তাহের সিলেটভিউ-কে বলেন, ‘সিলেট মহানগরীর আবাসিক হোটেলগুলোকে কঠোর নজরদারিতে রাখা হয়েছে। সিলেটে অসামাজিক কার্যকলাপ দমনে নিয়মিত অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। ইতোমধ্যে মহানগরীর আবাসিক হোটেলগুলোর তালিকা হালনাগাদ করা হয়েছে। সিলেট মহানগরীতে মোট ১৯৪টি আবাসিক হোটেল রয়েছে। এর মধ্য থেকে সন্দেহের তালিকায় থাকা হোটেলগুলোতে দ্রুত অভিযান চালানো হবে। এছাড়াও তাৎক্ষণিক পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতেও অভিযান পরিচালনা করা হবে।’

অপর এক প্রশ্নের জবাবে বিএম আশরাফ উল্যাহ তাহের বলেন, আবাসিক হোটেলগুলোতে শুধু  যে পেশাদার নারীদের সঙ্গে সবাই অবৈধ মেলামেশা করে তা না, অনেকেই নিজের সঙ্গে করে প্রেমিকা বা নারী নিয়ে হোটেলে আসে। অসামাজিক কার্যকলাপ দমনে তাদেরও ছাড় দেবে না পুলিশ।


সিলেটভিউ২৪ডটকম / ডালিম-৫

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন