আজ বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২১ ইং

ফের লকডাউন কুয়ালালামপুর

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২০-১০-১৩ ০০:৩৮:৩৯

শাহাদাত হোসেন, মালয়েশিয়া :: বৈশ্বিক মহামারী করোনার ভাইরাসের সংক্রমণ আশঙ্কাজনক ভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় মালয়েশিয়ার কয়েকটি রাজ্যে ফের মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার (আরএমসিও) ঘোষণা করেছে দেশটির সরকার।

সোমবার দেশটির সিনিয়র মন্ত্রী দাতো সেরী ইসমাইল সাবরি ইয়াকুব এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন।

আগামী ১৪ অক্টোবর থেকে দুই সপ্তাহের জন্য এই লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। যেসব রাজ্যে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে, রাজধানীর কুয়ালামাপুর, পুত্রাজায়া ও সাবাহ।

তবে গত কয়েকদিন ধরে দেশটির সাবাহ, পোর্ট ক্লাং ও কেদাহ রাজ্যে লকডাউন করা হয়েছিল।

সিনিয়র মন্ত্রী বলেন, 'সেলেঙ্গরসহ আশপাশে অঞ্চলে সম্প্রতি আশঙ্কাজনক কোভিড-১৯ ভাইরাস পরিস্থিতি বৃদ্ধি পাওয়ায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে এক সুপারিশ জমা হওয়ার পর এই লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। এর ফলে মালয়েশিয়ায় সকল ধর্মীয়, ক্রীড়া, শিক্ষা ও সামাজিক কার্যক্রম নিষিদ্ধ করা হলো। তবে কল কারখানা স্বাভাবিক ভাবে চলবে। এক জেলা থেকে অন্য জেলা বা প্রদেশে যাওয়া যাবে না। তবে সাধারণ শ্রমিকরা তাদের মালিকের নিকট থেকে অনুমতিপত্র নিয়ে যেকোন জেলায় যেতে পারবেন। প্রতিটি পরিবার থেকে দু'জন বাইরে গিয়ে মুদির দোকান থেকে মালামাল কিনতে পারবেন।

রেস্টুরেন্ট বা অন্যান্য ব্যবসায়ীক কার্যক্রম সকাল ৬ থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

সম্প্রতি দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগের মহাপরিচালক সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেন আপাতত পুরো মালয়েশিয়া লকডাউন দেওয়ার পরিকল্পনা নেই সরকারের।

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সাম্প্রতিক মালয়েশিয়া খবর

  •   দেশে ফেরার পথে কুয়ালালামপুর এয়ারপোর্ট করোনা আক্রান্ত দুই বাংলাদেশি আটক
  •   মালয়েশিয়া ফেরার অনুমতি পাচ্ছেন না ছুটিতে থাকা প্রবাসীরা
  •   মালয়েশিয়ার 'এমএম গ্রুপ অফ কোম্পানি'র বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদে
  •   মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশনারের সাথে প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের সাক্ষাত
  •   মালয়েশিয়ায় শর্তসাপেক্ষে জুমার নামাজ আদায়ের অনুমতি
  •   চিকিৎসা চমকে মালয়েশিয়ায় কমতে শুরু করেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা
  •   মালয়েশিয়ায় ঈদ উদযাপিত
  •   মালয়েশিয়ায় 'এ টক অন প্লাগারিজম' শীর্ষক সেমিনার
  •   মালয়েশিয়ায় ‘এ টক অন প্লাগারিজম’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত
  •   মালয়েশিয়ায় পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন