আজ শনিবার, ০৬ জুন ২০২০ ইং

‌ওমানে শ্রমিকদের চিকিৎসা ব্যয় কোম্পানির মালিককে বহন করতে হবে

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২০-০৫-১৪ ১৯:০২:২১

রেজওয়ান আহমদ সুজন, ওমান প্রতিনিধি :: মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ওমানে কোভিড-১৯ মোকাবেলায় গঠিত সুপ্রিম কমিটি বিভিন্ন পদক্ষেপ নিলেও অনেকের জনসমাগম এড়িয়ে চলছেন না।

সামাজিক দূরত্ব বজায় না রাখায় প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা এমনটি জানিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

বৃহস্পতিবার করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সপ্তম বারের মতন সংবাদ সম্মেলনে ওমানের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. আহমদ আল সাদী বলেন, বারবার সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কথা বলা হলেও গত এক সপ্তাহ পূর্বে বিয়ের অনুষ্ঠানে প্রায়  দেড়শ লোকের সমাগম ঘটে এবং সেই অনুষ্ঠান থেকে প্রায় ৩০০ ব্যক্তি আক্রান্ত হয়েছেন।

এছাড়া তিনি বেশ কিছু তথ্য জানান-

১. অনেক জায়গায় গণ ইফতার সমাবেশগুলো এখনো বিদ্যমান এবং কিছু লোক সামাজিক দূরত্ব মেনে চলছেনা।

২. আঠারো বছর বয়সের একজন মহিলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে এসেছিলেন করোনা পরীক্ষার জন্য তিনি জানান একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে তিন শত লোক জমায়েত হয়েছিলেন।

৩. কিছু কোম্পানি মালিকের গাফলতির কারণে এক সাথে বসবাসরত প্রায় ৭০ জন প্রবাসী সবাই করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

৪. করোনা লক্ষণযুক্ত একজন নাগরিক স্বাভাবিকভাবে বসবাস করতে গিয়ে তার এক বছরের শিশু সহ পরিবারের প্রায় ১৭ জন সদস্যকে আক্রান্ত করেছে।

৫. করোনা আক্রান্ত ৩১ জন রোগী আইসিইউ-তে সহ ৯৫ জন রোগী হাসপাতালে আছেন এবং বাকি রোগীদের বাড়িতে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

৬. কোভিড-১৯ পরীক্ষার জন্য এখন পর্যন্ত প্রায় চার লক্ষ ওমানি রিয়াল ব্যয় করা হয়েছে।

৭. এখন থেকে প্রবাসীদের করোনা চিকিৎসা ব্যয় তাদের কোম্পানি কে বহন করতে হবে।

৮. কারফিউ জারি করার জন্য কিছু নাগরিক প্রস্তাব করেছেন এবং সুপ্রিম কমিটিতে পাঠানো হয়েছে আগামী সপ্তাহে নেয়া হবে সিদ্ধান্ত।

৯. নির্দেশনা অমান্য করলে যে সমস্ত বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতি দেয়া হয়েছে তা বন্ধ করা হবে।

১০. ওমানে প্রতিদিন প্রায় এক হাজার পাঁচশত থেকে দুই হাজার করোনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত প্রায় ৬১,০০০ হাজার কোভিড-১৯ পরীক্ষা করা হয়েছে।

১১. আগামী ২৯ মে পর্যন্ত লকডাউন যে সময়সীমা নির্ধারিত করা হয়েছিল তা চলবে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে লকডাউন এর সময় সীমা বাড়ানো হতে পারে।

১২. সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন রাজধানী মার্কেটের হামরিয়া ও ওয়াদি কবির অঞ্চলে।

এছাড়া, ঈদের পর করোনা শনাক্ত সংখ্যা অনেক বেশি বৃদ্ধি পেতে পারে বলে মনে করছেন ওমানে রোগ নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর মহাপরিচালক।

তিনি সবাইকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখে সরকারের নির্দেশনাবলী অনুসরণ করার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন।


সিলেটভিউ২৪ডটকম/১৪ মে ২০২০/আরএএস/এসডি

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন