আজ শনিবার, ১০ এপ্রিল ২০২১ ইং

সেতুর গার্ডার ভেঙে পড়ায় দুটি তদন্ত কমিটি

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০২১-০৩-০৩ ১১:২৭:০৮

নিজস্ব প্রতিবেদক :  পাগলা- জগন্নাথপুর-আউশকান্দি আঞ্চলিক মহাসড়কের জগন্নাথপুর-সুনামগঞ্জ অংশে কুন্দানালা সেতুর গার্ডার ভেঙে পড়ার ঘটনায় দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। একটি সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয় থেকে আর অপরটি সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের পক্ষ থেকে।

জানা গেছে, মঙ্গলবার (২ মার্চ) মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে গঠিত তদন্ত কমিটিতে অতিরিক্ত সচিব জাকির হোসেনের নেতৃত্বে চার সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। ৫ কর্মদিবসের মধ্যে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে তদন্ত কমিটিকে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

অপরদিকে, সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের ডিজাইন বিভাগের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী শিশির কুমার রাওকে প্রধান করে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। আজ সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সেতু ও ডিজাইন বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

মন্ত্রণালয়ের সেতু ও ডিজাইন বিভাগের তদন্ত কমিটির সদস্য নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুর রহমান বলেন, ধসে যাওয়া সেতু আজ পরিদর্শন করেছেন তারা। তদন্ত প্রতিবেদন আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে দেওয়া হবে বলে আশা করছেন। এর আগে এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করা ঠিক নয় বলে জানান তিনি।

সড়ক ও জনপথ অধিদফতর সুনামগঞ্জের নির্বাহী প্রকৌশলী জহিরুল ইসলাম বলেন, শুনেছি সেতু ধসে পড়ার ঘটনায় মন্ত্রণালয় থেকে গতকাল একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। অপরদিকে সেতু ও ডিজাইন বিভাগের পক্ষ থেকে তদন্ত কমিটি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

তিনি বলেন, আমরা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে দ্রুত ধসে পড়া গার্ডার সরিয়ে কাজ শুরু করতে বলেছি।

এলাকাবাসী জানান, রাজধানী ঢাকার সঙ্গে সুনামগঞ্জের দূরত্ব কমাতে সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কের ডাবর পয়েন্ট থেকে পাগলা-জগন্নাথপুর-রানীগঞ্জ আউশকান্দি আঞ্চলিক মহাসড়ক হচ্ছে। এই সড়ক প্রশস্ত করতে দেড় বছর আগে প্রায় ১০০ কোটি টাকা ব্যয়ে ডাবর পয়েন্ট থেকে জগন্নাথপুর পর্যন্ত ড্রেনেজসহ ২২ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ডাবর থেকে জগন্নাথপুর অংশে পুরাতন সেতুগুলো ভেঙে ৭টি নতুন সেতু নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে ৬ মাস আগেই। সাতটি সেতু নির্মাণকাজে ১১০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। কাজ করছে ঢাকার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এমএম বিল্ডার্স এ- ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেড। গত রবিবার রাতে ওই সড়কের ছাতক অংশের কুন্দানালা খালের ওপর প্রায় ১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ৫০ ফুট ১২ মিটার দৈর্ঘ্য এবং ১০ ফুট ২৫ মিটার প্রস্তের নির্মাণাধীন সেতুটি ধসে পড়ে। অভিযোগ ওঠে নিম্নমানের কাজের জন্য সেতুটি ভেঙে পড়েছে। তবে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তাদের দাবি, গার্ডার বসানোর সময় হাইড্রোলিক জ্যাক বিকল হওয়ায় সেতুটি ধসে গেছে।

এদিকে ওই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কাজ নিয়ে এখন শঙ্কায় পড়েছেন উপজেলাবাসী। এই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জগন্নাথপুরের রানীগঞ্জের কুশিয়ারা নদী ওপর দীর্ঘতম একটি সেতু প্রায় দেড়শ’ কোটি টাকা ব্যয় নির্মাণকাজ করছে। এছাড়া সড়কে আরও সাতটি সেতুর কাজ করছে ওই প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে একটি সেতু উদ্বোধনের আগেই ভেঙে যাওয়ায় প্রতিষ্ঠানের কাজের মান নিয়ে এখন সন্দেহ তৈরি হয়েছে স্থানীয়দের। এসব সেতুর কাজ ঠিকমতো হয়েছে কিনা তা সংশ্লিষ্টদের যাচাইয়ের আহ্বান জানিয়েছেন তারা।


সিলেট ভিউ ২৪ ডটকম/পিটি-৮

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন